রেজর বাংলা অরিজিন Razer Bangla Origin

Razer (Razor) “Volkreg” প্লেনেটের এক জন সাবেক সৈনিক। Volkregian প্লেনেটে গৃহযুদ্ধ শুরু হলে সবার মতো Razer ও সৈনিক হিসেবে যোগদান করে নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তার জন্য। যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে Razer বাড়ি ফিরেই তার একমাত্র স্ত্রী Ilana কে মৃত অবস্থায় পায়। যুদ্ধ কে কেন্দ্র করেই তার স্ত্রী এই পরিণতিতে Razer এর মধ্যে ক্রোধ এর আবির্ভাব ঘটে। এবং সাথে সাথেই Red lantern রিং তাকে বেছে নেই। প্রচন্ড বিষাদে এবং ক্রোধে নিজেকে পুরোপুরি বদলে নেই। এবং এই ভাবেই তার Red Lantern corps এ যাত্রা শুরু হয়।
রেজর বাংলা অরিজিন Razer Bangla Origin
(image credit: DC COMICS)
Red lantern Corps এর প্রধান Atrocitus। তার প্রধান কাজই ছিলো Green lantern কে এক এক করে হঠিয়ে ফেলা। Zilius Zox এর সাথে করেই Razer এক এক করে Green Lantern দের সরিয়ে ফেলতে থাকে। Razer শুরু থেকেই এমন মিশনে থাকলেও সরাসরি এমন কাজে জড়াতো না। টেকনিক্যাল কাজেই বেশি সময় ব্যায় করতো।
এক মিশনে পুরো প্লেনেট ধ্বংসের দায়িত্ব দেওয়া হয় Razer কে। Zilius, Atrocitus আর Razer মিলে “Shyir Rev” এর প্লেনেট ধংসের জন্য প্লেনেটে “Planate Killer” নামক ডিভাইস দিয়ে আক্রমণ করে বসে। অধিক সময় ধরে চেস্টা করেও Hal Jordan, Atrocitus এর সাথে না পেরে এবং প্লেনেট কিলার ডিভাইস বন্ধ করতে বিফল হয়েই প্লেনেট ছাড়তে বাধ্য হয়। এবং পুরো প্লেনেট ধ্বংস হয়ে যায়। Atrocitus, প্লেনেট ধ্বংসের সময় Razer মারা গেছে ভেবেই ওকে ফেলে চলে যায়।

আর এর মাঝেই Kilowog পুরো প্লেনেট এর সিভিলিয়ান দের বাঁচিয়ে ফেলে। আর Razer, Hal এর কাছে প্রায় আত্নসমর্পণ করে নেই। প্রিজন সেলে বন্দী হয়েই Razer এর নতুন অধ্যায় শুরু হয়।

প্রিজন সেল থেকে সাময়িক জেল খানায় স্থানান্তর করা হয় Razer কে। প্রিজন সেলে Razer কে মেন্টালি টর্চার করা শুরু করা হয়। Hal আবার অন্য এক বন্দী থেকেই টর্চার এর কথা জানতে পেরে একজন প্লেনেট ধ্বংস করা আসামি Razer কে রেস্কিউ করার সিধান্ত গ্রহণ করে। Hal এর সম্পর্কে আমরা সবায় জানি, ওর যেই ভাবা সেই কাজ Razer কে রেস্কিউ করতে গিয়ে নিজেই আঁটকে পরে এক বড় বিপদে। অবশ্যই Kilowog এর জন্য কম কথা শোনাই নিই।
Razer এক দিকে জেলে বন্দী আর অন্য দিকে রেস্কিউ টিম নিজেই বন্দী তাহলে এখন বাঁচাবে কে?
Aya একজন Artificial intelligence. intercepter ship এর Nav computer। Aya কে Gurdian রাই তৈরি করে। শিপ নিয়ন্ত্রণ আর রক্ষণাবেক্ষণ কাজেই ছিল Aya’র। Aya সেই প্রিজন সেল থেকেই Razer এর গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করে আসছিল। Hal, Kilowog এরাও আঁটকা পরলে একমাত্র Aya ছিল তাদের শেষ ভরসা। AI হওয়ার কারণে সকলের চোখে ফাঁকি দিয়ে Razer কে মুক্ত করে দেয় Aya. Razer কোনো ভাবেই ফিরতে রাজি নই! পুরো প্লেনেট যে ধ্বংস করেছে ও! কত না প্রাণ গেছে তাতে! Kilowog যে পুরো প্লেনেটের সবায়কে বাঁচিয়েছে সেটা Razer এর তখনও অজানা! Aya এই সম্পর্কে বলতেই পাহাড় সমান বোঝা হালকা হয় Razer এর। Razer এরপর মুক্ত হয়েই  Hal, Kilowog কে রেস্কিউ করে নেই। এবং প্রতিশ্রুতি দেয় Red Lantern হয়েও Razer Red lantern corps দের সাথেই লড়বে। Hal, Kilowog আর Razer কে নিয়েই Red vs Green lantern এর কাহিনী এগোতে থাকে।
——————————-
মজার ব্যাপার হলো Razer কোনো comic character নয়। Green Lantern The animated Series (2011) এর original character. 
Razer নামকরণ কিন্ত আরো চমতকার!  হ্যাঁ “Raze” থেকেই বলতে গেলে Razer নাম এসেছে। Writing creativity বা Lazy writing যায় বলেন না কেনো Giancarlo Volpe and Jim Krieg কিন্তু প্রায় অনেক দিন মনে রাখার মতো একটা ক্যারেক্টার উপহার দিয়েছেন। fandom এর কারণে কিছুদিন পর কমিকেও ক্যামিও থাকলেও আমি অবাক হবো না!
এছাড়া Young Justice season 4 এপিসোড ১৯ এ Razer কে দেখা যায়। writer GLTAS কে এখন adjacent Canon বলছেন! অর্থাৎ GLTAS এর সব কিছুই Young Justice এ canon হিসেবে বিবেচিত হবে আর যেগুলো YJ এর বাইরে সেগুলো ঐ ইউনিভার্সে হয় নিই এমনটাই ধরা হবে। Writer নিজেই এ কথা বলেছেন। 
Razer এর debut ও হয় এক মজার দিনে 11/11/11 তারিখে।
Razer কে দিয়েই প্রথম Red-Blue Lantern হিসেবে কোনো adaptation এ দেখা যায়।
বর্তমান একমাত্র Red-Blue lantern Razer নিজেই।

Leave a Comment

Total Views: 416

Scroll to Top