মিস মার্ভেল সিরিজ রিভিউ

আজকে পোলাপান গাইলাইয়া আমারে মঙ্গলে তুইলা দিবো। তাই আগেই বলতেছি পোস্ট পুরোটা পড়ে তারপরে যাদের ইচ্ছা হয় গাইলাবেন আর সম্ভব হইলে সেন্সর কইরা গাইলাইয়েন কারণ আমার অভিশাপ না লাগুক জোকার মামুর অভিশাপের কালে ছায়া আপনার আইডির ওপরে পড়ার সমূহ সম্ভাবনা আছে।
মিস মার্ভেল সিরিজ রিভিউ
(image credit: Marvel/Disney Plus)
তো দেখলাম আলোচিত এমসিইউ এর সো কলড প্রথম মু/সলিম সুপারহিরো যার মাধ্যমে এমসিইউতে মু/সলিম কালচারের রিপ্রেজেনটেশন হবে এবং এর ফলে আমাদের বেশকিছু সংখ্যক ছেলে ছোকরাদের মাঝে অনেক ইন্টারেস্ট তৈরি হয়েছিলো এই সিরিজ নিয়ে। প্রথম দিনই এপিসোডটা দেখে ফেললাম। 
তো দেখার পর এবং দেখার সময় আমার অনুভূতি যে খুব একটা সুখকর ছিল তা কোনভাবেই বলতে পারবো না। তার বেশকিছু কারণ আছে।
বিঃদ্রঃ মাত্র একটা এপিসোড দেখেছি এবং সেই হিসেবেই এপিসোডটার রিভিউ দিচ্ছি।
*️⃣একটা পয়েন্ট নিয়ে শুরু থেকেই অসন্তোষ ছিল শুধু আমার না, আমি সহ অনেকেরই। এইটা মূখ্য কারণ বলা যায়। মিস মার্ভেলের এবিলিটি যা কিনা আজ পর্যন্ত সোর্স মেটেরিয়াল কমিক্স সহ সব রকম মিডিয়াতেই দেখানো হয়েছে তার শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলোর আকার একত্রে কিংবা আলাদাভাবে অনেকগুণ বড় করতে পারে এবং সেই সাথে পায় সুপারহিউম্যান ড্যুরেবিলিটি এবং স্ট্রেংথ। কিন্তু এখানে ডিসি কমিকের পার্পল ল্যান্টার্ণ বা ইন্ডিগো ট্রাইবের কার্বন কপি বানিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। 
এর পেছনে কিছু অদ্ভুত এবং ভঙ্গুর ব্যাখ্যাও দেয়া হয়েছে এবং ফ্যানবয়দের মতে ইনহিউম্যানদের এখনও এমসিইউতে আনা একরকম অসম্ভব কাজ তাই এমনটা করেছে, যেটা একটা হাস্যকর অজুহাত। কারণ ইতোমধ্যে মাল্টিভার্স অব ম্যাডনেসে ইনহিউম্যানদের রাজাকেই একদম শর্ট স্ক্রিনটাইমে দেখিয়ে দেয়া হয়েছে কোনরকম ব্যাকগ্রাউন্ড ডেভেলপমেন্ট বা প্রপার ইন্ট্রোডাকশন ছাড়াই। সেখানে একটা পুরো সিরিজের সুযোগ কাজে লাগিয়ে ইনহিউম্যান রেইসটার সূচনা তৈরি মোটেই তেমন কঠিন কোন বিষয় না।
*️⃣সিরিজটার মার্কেটিং এভাবে করা হয়েছে যেন এই সিরিজে প্রথম মু/সলিম ক্যারেক্টার হিসেবে ই/সলামিক কালচারটাকে রিপ্রেজেন্ট করবে যেটা ট্রেইলার তো বটেই এপিসোডটা দেখে আরো হাস্যকর লেগেছে কারণ তারা একাধিক মু/সলিম কনজার্ভেটিভ ফ্যামিলিগুলোর রুলস, রেস্ট্রিকশনস ইত্যাদি নিয়ে খোঁচা মেরেছে। যেমন ছেলেদের ওপরে তেমন রুলস এপ্লাই করা হয় না, ওরা নাকি যেকোনো জায়গায় যখন-তখন অনুমতি ছাড়াই যেতে পারে রেস্ট্রিকশন শুধু মেয়েদের বেলাতেই হয়, রাতের বেলা পার্টিতে না যেতে দিতে চাইলে সেইটা অতিরিক্ত এবং অযাচিত বাধা ব্লা ব্লা ব্লা টাইপ।
 এখন অনেকেই বলবে যে একজন মু/সলিম হিসেবে আমি বা🍑হার্টেড তাই বলছি ইত্যাদি ইত্যাদি। তো আমি ধরে নিলাম শুধু এই কারণেই আমি নেগেটিভ বলছি। এখন নিরপেক্ষ এঙ্গেল থেকেই যদি দেখি তবে একটা কালচার রিপ্রেজেন্টের নাম করে মার্কেটিং চালিয়ে আপনি সেইটার রুলস, জীবনধারার দিকে সূক্ষভাবে আঙুল তুলবেন বিষয়টা দারুণ লজিকাল তাই না? এই কথাগুলোও আমি বলতাম না কারণ একে তে ওয়েস্টার্ন কর্পোরেট বিজনেস স্ট্র্যাটেজি তার ওপরে আমি নিজেই এইসব দেখাদেখি আর লেখালেখি করি তাই আমার বলাটাও একদিক থেকে হিপোক্রেটিক দেখায়। 
কিন্তু বললাম তার মূল কারণ ঐ যে কিছু ছেলেছোকরাদের মু/সলিম নাম দেখেই আবেগে আপ্লুত হয়ে গদগদ সব পোস্ট কমেন্ট। তাই বাস্তবতাটা একটু দৃশ্যমান না করে পারলাম না। তাছাড়া যেই জিনিস আমাদের ধ/র্মেই নিষিদ্ধ সেই জিনিস দিয়েই আমাদের রিপ্রেজেন্ট করা হচ্ছে দেখে আবেগের গড্ডালিকা প্রবাহে তরীহীন গা ভাসিয়ে দেয়ারও কোন যৌক্তিকতা নেই। নিষিদ্ধ জিনিস গ্রহণ করছি তো এটলিস্ট নিজেরা ধ/র্মটাকে আলাদা করেই দেখি। 
*️⃣পরবর্তী কারণ সিরিজের লিড কাস্ট নিজেই। ভাই জায়গায় জায়গায় এর ওভার এক্টিংয়ের দক্ষতা বেশ চোখে পড়ার মত ছিল এই এক এপিসোডেই। কিছু জায়গায় তো রীতিমতো যাকে বলে ক্রিঞ্জের হাওয়ার লাগিয়ে শিরশিরানি ধরিয়ে দিয়েছে। এই জিনিসটা সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ছোটি হাল্ক টাইটেলের ক্লিপেই টের পাওয়া গিয়েছিলো। এমনকি কিছু ইন্টারভিউতেও ইমান ভেল্লানি নামক সবার নতুন ক্রাশ মেয়েটার এক্সপ্রেশন একই অনুভূতির জোগান দিয়েছে। 
এইজন্য এটা শেষ করা আরো কিছুটা কষ্টকর হয়ে উঠেছিলো।
🎞️এপিসোডটা ওভার অল বিলো এভারেজ লেগেছে। প্রথম এপিসোডের ফার্স্ট ইম্প্রেশন তেমন জাতের হয় নি। 
ভালো কিছু উল্লেখ করার মত বলতে এর ডিফারেন্ট টোন, বিজিএম এবং ট্র্যাকগুলো এভারেজ এমসিইউ থেকে কিছুটা ভিন্ন ধারার স্বাদ দেয়।

সেটপিসগুলো মোটামুটি রকমের এবং মানানসই ছিল।

🎬ওকে ভাই, এইবার গালাগালি শুরু করেন নিরাপত্তা বজায় রেখে।
Credit: ওভি ভাইয়া

Leave a Comment

Total Views: 367

Scroll to Top