জনি ডেপ ও আম্বার হার্ডের কোর্টে মারামারি

সুদীর্ঘ 6 বছর ধরে চলা কেস জেতার পর JOHNNY DEPP এর আবেগঘন ও উচ্ছ্বসিত স্টেটমেন্ট –
“ছয় বছর আগে, আমার জীবন, আমার সন্তানদের জীবন, আমার সবচেয়ে কাছের মানুষদের জীবন এবং সেইসঙ্গে, বহু বছর ধরে যারা আমাকে সমর্থন করেছেন এবং বিশ্বাস করেছেন তাদের জীবন চিরতরে পরিবর্তিত হয়েছে । চোখের পলকে সব
মিডিয়ার মাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা, অত্যন্ত গুরুতর এবং অপরাধমূলক অভিযোগ আরোপ করা হয়েছিল, যা ঘৃণ্য বিষয়বস্তুর একটি সীমাহীন বাধা সৃষ্টি করেছিল, যদিও আমার বিরুদ্ধে কখনও কোনো অভিযোগ আনা হয়নি। 
এটি ইতিমধ্যেই এক ন্যানোসেকেন্ডের মধ্যে দুবার বিশ্বজুড়ে ভ্রমণ করেছে এবং এটি আমার জীবন এবং আমার কর্মজীবনে ভূমিকম্পের প্রভাব ফেলেছে। এবং ছয় বছর পরে, জুরি আমাকে আমার জীবন ফিরিয়ে দিয়েছে। আমি সত্যিই কৃতজ্ঞ
আমি যে আইনি প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হব এবং আমার জীবনে অনিবার্য, বিশ্বব্যাপী দর্শনের উচ্চতা খুব ভালভাবে জেনে এই মামলাটি চালিয়ে যাওয়ার আমার সিদ্ধান্তটি যথেষ্ট চিন্তাভাবনার পরেই নেওয়া হয়েছিল
প্রথম থেকেই এই মামলা আনার লক্ষ্য ছিল ফলাফল নির্বিশেষে সত্য প্রকাশ করা। সত্য কথা বলা এমন কিছু ছিল যা আমি আমার সন্তানদের কাছে এবং যারা আমার সমর্থনে অবিচল থেকেছে তাদের কাছে ঋণী। আমি অবশেষে এটি সম্পন্ন করেছি জেনে আমি শান্তি অনুভব করি
আমি, এবং বিশ্বজুড়ে ভালবাসার ঢেউ এবং বিপুল সমর্থন এবং উদারতা দ্বারা অভিভূত হয়েছি।

আমি আশা করি যে সত্য বলার জন্য আমার অনুসন্ধান অন্যদের সাহায্য করবে, পুরুষ বা মহিলা, যারা আমার পরিস্থিতিতে নিজেকে খুঁজে পেয়েছে এবং যারা তাদের সমর্থন করে তারা কখনও হাল ছেড়ে দেয় না। আমি আরও আশা করি যে আদালত এবং মিডিয়া উভয় ক্ষেত্রেই দোষী প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত অবস্থান এখন নির্দোষে ফিরে আসবে

আমি বিচারক, বিচারক, আদালতের স্টাফ এবং শেরিফদের মহৎ কাজকে স্বীকার করতে চাই যারা এই বিন্দুতে পৌঁছানোর জন্য তাদের নিজেদের সময় উৎসর্গ করেছেন এবং আমার পরিশ্রমী এবং অটল আইনি দলকে যারা আমাকে শেয়ার করতে সাহায্য করার জন্য একটি অসাধারণ কাজ করেছে
সেরাটি এখনও আসেনি এবং অবশেষে একটি নতুন অধ্যায় শুরু হয়েছে
সত্য কখনো বিনষ্ট হয় না। সত্য কখনো বিনষ্ট হয় না”
– জনি ডেপ
জনি ডেপ-এর এটর্নি ক্যামেল ভাসকেজ! তার একটা বিশাল ধন্যবাদ প্রাপ্য!
অ্যাম্বার হার্ডের টেস্টিমোনি শেষ হলো আজকে । অ্যাম্বারকে চমৎকার ইন্টারোগেট করেছেন ক্যামেল। 
জনি ডেপ ও আম্বার হার্ডের কোর্টে মারামারি
Johnny Depp vs Amber Heard Court Fight 

একদম ধুয়ে দিয়েছেন, যাকে বলে প্রপার হোয়াইট ওয়াশ।
অ্যাম্বারের দেয়া কনফেশনগুলোকে প্রমাণসহ লজিকালি প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন বারবার। ডিভোর্স থেকে পাওয়া ৭ মিলিয়ন ডলার ডোনেশন দেয়ার ব্যাপারটাকে মিথ্যা প্রমাণ করেছেন।
 নির্যাতনের যে ছবিগুলো অ্যাম্বার দেখিয়েছিলেন সেগুলো যে বানোয়াট- সেটাও বুঝিয়ে দিয়েছেন, পাশাপাশি মেডিকেল রেকর্ডের গড়মিল তুলে ধরেছেন,

টেস্টিমনিতে দেয়া তারিখগুলোর গড়মিল পয়েন্ট আউট করেছেন।

অ্যাম্বার হার্ডের উদ্দেশ্যে ক্যামেল ভাসকেজের দেয়া সবচাইতে সেরা পাঞ্চলাইনটা ছিলো- “You know you’re in this courtroom because finally —Johnny— told the world he was a victim of domestic violence.” অ্যাম্বারের দেয়া থ্রেটের কাউন্টারপার্ট ছিলো এটা। 
এই পুরো ট্রায়াল চলাকালীন সময়ে জনি ডেপ একবারও অ্যাম্বার হার্ডের দিকে ফিরেও তাকাননি। কারণ, ডেপ প্রতিজ্ঞা করেছিলেন তিনি আর হার্ডের দিকে ফিরে তাকাবেন না। এটাও তুলে ধরেছেন।
জনি ডেপের ভক্তরা যদি ইন্টারোগেশন পুরোটা দেখতেন তবে ক্যামেলেরও ভক্ত হয়ে যেতেন। Johnny Depp’s Lawyer Grills Amber Heard লিখে ইউটিউবে সার্চ দিলেই বেশ কিছু ক্লিপ পেয়ে যাবেন।
⚜️ jonny depp Wins Defamation Case: অ্যাম্বার হার্ডের বিরুদ্ধে মানহানির মামলায় জয় পেলেন অভিনেতা জনি ডেপ, পাবেন দেড় কোটি ডলারের ক্ষতিপূরণ
অবশেষে দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান।

প্রাক্তন স্ত্রী অ্যাম্বার হার্ডের (Amber Heard) বিরুদ্ধে আনা মানহানির মামলায় (Defamation Case) জয় পেলেন হলিউড অভিনেতা জনি ডেপ (Johnny Depp)। আদালত রায় দিয়েছে, যে অভিযোগ জনির বিরুদ্ধে এনেছিলেন অ্যাম্বার, তা মিথ্যা এবং অবমাননাকর।

জনির মানহানির জন্য অ্যাম্বারকে দেড় কোটি মার্কিন ডলার ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আদালতের পর্যবেক্ষণ, জনির বিরুদ্ধে গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ আনার পিছনে অ্যাম্বারের অসৎ উদ্দেশ্য ছিল। জনির ভাবমূর্তি নষ্ট করা, তাঁর বদনাম করাই যে লক্ষ্য ছিল অ্যাম্বারের, তা মেনে মেনে নিয়েছে আদালত।
৫০ মিলিয়ন ডলারের মানহানির মামলা হলেও জনি ডেপ পাবেন ১৫ মিনিয়ন ডলার। 
মামলায় জনি ডেপ এর জয় হলেও এম্বার হার্ডেরও মানহানি হয়েছে মর্মে রায় এসেছে এবং ক্ষতিপূরণ বাবদ তিনি পাচ্ছেন ২ মিলিয়ন ডলার।
এবং জনি ডেপ জানিয়েছেন তিনি
pirates of the caribbean এর জ্যাক চরিত্রে আর ফিরছেন না।
জনি ডেপ এবং অ্যাম্বার হার্ড।
২০১২ থেকে তারা প্রেম শুরু করে, ২০১৫ তে বিয়ে। বিয়ের এক বছর পর অ্যাম্বার হার্ড কোর্টে ডিভোর্স ফাইল করে। কারণ হিসেবে বলা হয়, অ্যাম্বার হার্ড ডমেস্টিক ভায়োলেন্সের স্বীকার।
তাদের ডিভোর্সের প্রায় সমসাময়িক সময়ে পৃথিবীজুড়ে শুরু হল ‘me too’ মুভমেন্ট। ফলে যা হবার তাই হল।
জনি ডেপকে হেয় করা হল প্রচন্ডভাবে। এক সময়ের মহা প্রভাবশালী অভিনেতা, পাইরেটস অফ দ্য ক্যারিবিয়ানের জ্যাক স্প্যারোকে নির্মাতারা বিভিন্ন সিনেমা থেকে বয়কট করল।
তাকে বলা হল অ্যাডিক্ট, ‘ওয়াইফ বিটার’।
‘Me too’ মুভমেন্টের নেতিবাচক প্রভাবের উল্লেখযোগ্য শিকার জনি ডেপ।
সত্য বের হল কিছুদিন পর। আবিষ্কৃত হল, জনি ডেপ অ্যাবিউজার না, সে আসলে ভিক্টিম।
তার সহধর্মিণীই মেন্টাল ব্রেকডাউনের কারণে বিভিন্ন সময় তার গায়ে হাত তুলেছে, গালিগালাজ করেছে, তার মুখে জ্বলন্ত সিগারেটের ছ্যাঁকা দিয়েছে।
এমনকি একবার মদের বোতল ছুঁড়ে মেরে তার আঙুল কেঁটেও ফেলেছে।
অদ্ভুত, তাই না?
কিন্তু এ ঘটনা কি শুধু গুটিকয়েক? কিংবা সেলিব্রেটিদের মধ্যে? আমার মনে হয় না। শুনতে অদ্ভুত লাগতে পারে কিন্তু অনেক পরিবারেই পুরুষেরা শারীরিক কিংবা মানসিক ভায়োলেন্সের শিকার।
আমরা ধরে নিই, ছেলেদের ঝাড়ি দিলে কিংবা গালি দিলে কিছু যায় আসে না, কারণ ‘হি ইজ এ ম্যান’।
‘হি ইজ এ ম্যান’ হতে পারে, বাট ‘হি ইজ এ হিউম্যান’ এজ ওয়েল।
এবং কোনো মানুষকেই কখনও অকারণে হেয় করা উচিৎ না।
যুগটা নারীবাদের। ইতিহাস বলে, যখনই কোনো কিছুর যুগ এসেছে কেউ না কেউ তার অবৈধ সুযোগ নিয়েছে।
তাই সময় এসেছে বাই ডিফল্ট, নারী ভিক্টিম আর পুরুষ দোষী- এটা বাদ দিতে হবে। সবাইকে ইকুয়াল ফ্লোর দিতে হবে। কথা শুনতে হবে। নিরপেক্ষ বিচার করতে হবে।
An opressed can be of any gender, any race, any religion.
And whenever you find someone oppressed, you need to support.
সেটা পুরুষ হোক কিংবা মহিলা।🎭

Leave a Comment

Total Views: 294

Scroll to Top