দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৪ রিভিউ

The Flash Season 6 Episode 4 Review – দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৪ রিভিউ

The Flash Season 6 Episode 4 Review

গত ৩০ শে অক্টোবর অ্যারোভার্সের নিয়মিত সিরিজ The Flash এর সিজন ৬ এর চতুর্থ এপিসোড রিলিজ হয়েছে । আপনি যদি The Flash এর অরিজিন না যেনে থাকেন তাহলে The Flash এর অরিজিন ইতিহাস পড়ে নিন।

The Flash এর সিজন ৬ এর ট্রেইলার ব্রেকডাওন রিভিউ

The Flash সিজন ৬ ট্রেইলার ব্রেকডাওন রিভিউ পড়ুন এই লিংক থেকে

The Flash স্টার ল্যাবে সংঘটিত হওয়া এক দুর্ঘটনায় সে সুপারহিরো ক্ষমতা লাভ করে। এর পরে ল্যাবে থাকা ব্যাক্তিদের সহযোগীতায় সে অন্যায়ের বিরুদ্ধ্যে লড়াই চালিয়ে যায়। আর এই ভাবে শুরু হয় ব্যারি অ্যালেন এর The Flash যাত্রা ।

দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৪ রিভিউ

Read More: ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড 3 রিভিউ পড়ুন

ফ্ল্যাশ there will be blood review সিরিজ রিভিউ
(image Credit: The CW/DC/WB)

∑‡ স্পইলার এলার্ট †⁺

Read More: দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ২ রিভিউ পড়ুন

The Flash Season 6 Episode 4 Breakdown

★ পুর্ববর্তি এপিসোড দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৩ রিভিউ পড়ে নিন।

★ চতুর্থ এপিসোড এর সময়কাল ছিল ৪২ মিনিট। এই এপিসোডটির নাম ছিল There Will Be Blood । এটি প্রচারিত হয় The CW নেটওয়ার্ক এ ।

★ এপিসোড এর শুরুতেই পুর্ববর্তি এপিসোড গুলির কিছু দৃশ্য দেখানো হয় । বিশেষ করে ডক্টর র‍্যামসি, ডক্টর ন্যাশ ওয়েলস এবং ক্রাইসিস অন ইনফিনিটি আর্থ এর কিছু দৃশ্য দেখানো হয় ।

★ নতুন এপিসোড এর শুরুতে দেখা যায় একটি হসপিটালে যেখানে ডক্টর রুসো ওরফে ডক্টর র‍্যামসি রুসো কারো সাথে দেখা করতে যায়। সেখানে এক ডক্টরের সাথে কথা হয় । এর পরে ডক্টর র‍্যামসি রুসো একটি রুমে যায়। যেটি কিনা একটি ব্লডব্যাংক ছিল । সেখানকার লক খুলে রক্তের ব্যাগ চুরি করে ডক্টর র‍্যামসি রুসো ।

★ এর পরে স্টার ল্যাবে নিয়ে যাওয়া হয় । যেখানে রাল্ফ ডিবনি ব্যাতিত টিম ফ্ল্যাশ এর সকল সদস্য উপস্থিত ছিল । ক্রাইসিস অন ইনফিনিটি আর্থ এ ব্যারির ভ্যানিশ হয়ে যাওয়া নিয়ে আলোচনা করা হয় । তারা ব্যারিকে বাচানোর কথা বলে বিশেষ করে সিসকো র‍্যামন, যে কিনা ব্যারির বেস্ট ফ্রেন্ড। ব্যারি বলে আমাকে বাচানোর কোন উপায় নেই । তাই দয়া করে এটা নিয়ে চিন্তা করো না । অন্যদিকে আইরিস বলে আমাদের হাতে ছয়মাস সময় আছে, আমার মনে হয়, ব্যারিকে ছাড়া চলতে আমাদের তৈরি হওয়া উচিত ।

★ এরপরে ব্যারির যো ওয়েস্ট এর ফোন পেয়ে একটি হসপিটালে যায়, সেই একই হসপিটালে ডক্টর র‍্যামসি রক্ত চুরি করে । সেখানে গিয়ে জানতে পারে ব্লাড ব্যাংক থেকে কেউ একজন ১০ লিটার রক্ত চুরি করেছে । যো ওয়েস্ট ব্যারিকে জিজ্ঞাসা করে কি হয়েছে এমন চেহারা করে রেখেছো? ব্যারি বলে ক্রাইসিস ইভেন্টে আমার ভ্যানিশ হওয়া নিয়ে সিসকো ভালোভাবে নিতে পারছে না । যো ওয়েস্ট বলে সিসকো তুমার মত। তুমি চাইলেই ওকে বুঝাতে পারবে ।

★ পরবর্তিতে দেখা যায় স্টার ল্যাবে সিসকো কে বুঝানোর জন্য ব্যারির কথা বলছে। সেই মুহুর্তে সেখানে ডক্টর হ্যারিসন ন্যাশ ওয়েলস আসে । সে বলে পৃথিবীতে তার কিছু কাজ আছে । তাকে একটি ডিভাইস বানিয়ে দিলে হয়ত সে আসতে চলা ক্রাইসিস এ তাদের কে সাহায্য করতে পারে । ব্যারি আর সিসকো বলে ডক্টর হ্যারিসন কে বিশ্বাস করা যায় না। তবে আমরা তোমাকে বিশ্বাস করব ।

★ এরপরে আইরিস কে দেখা যায় রাল্ফ ডিবনি এর অফিসে। সেখানে রাল্ফ একা মন খারাপ করে বসে ছিল । আইরিস তার একটি কেস এর ব্যাপারে সহযোগীতা করতে চাইলে রাল্ফ বলে সে এই কেসটি ছেড়ে দিবে। আইরিস বলে কেন তখন রাল্ফ বলে জানিনা ভালো লাগছে না । আমার বেস্ট ফ্রেন্ড মারা যাবে আর আমি কিছুই করতে পারবো না? তখন আইরিস চলে যায় ।

★ এরপরে দেখা যায় ডক্টর র‍্যামসি চুরি করে আনা রক্ত দিয়ে তার শরিরের রক্ত পরিক্ষা করছে । কিন্তু সেই পরিক্ষাটি ব্যার্থ হয় । সেই রক্ত কাজ করে না । সে অজ্ঞান হয়ে ফ্লোরে পরে যায় ।

★ এর পরে দেখা যায় স্টার ল্যাবের একটি গাড়িতে করে ব্যারি অ্যালেন, সিসকো এবং হ্যারিসন ওয়েলস কথা বলছে । যেখানে হ্যারিসন বলে যে এই ল্যাবে এমন এক সিরাম রয়েছে যা যেকারো শরিরের খারাপ অংশকে ভালো করতে পারে । যদি সেই পদার্থ শরিরের ভালো অংশে প্রবেশ করানো যায় । সিসকো কিছু একটা ভাবে । ব্যারি তখন সেই ল্যাবে প্রবেশ করে সিসিটিভি ক্যামেরা বন্ধ করতে যায়। সিসকো বলে এইটা ব্যাবহার করে কি অ্যান্টিম্যাট্যার বস্তুকে আটকানো যাবে? হ্যারিসন ওয়েলস বলে এটা নির্ভর করছে ।

★ এর পরে ব্যারি ফিরে আসলে, ওরা তিনজনে ল্যাবে ঢুকে । সেখানে হ্যারিসন আর ব্যারির মধ্যে কথাকাটাকাটি হয় । কিন্তু সেই মুহুর্তে পিছন থেকে ল্যাবের গার্ডরা আসে । তখন দেখে ব্যারি আর সিসকো সেখানে হ্যারিসন পালিয়ে গেছে । এর পরে গার্ডরা যখন এগিয়ে আসে তখন উপর থেকে কিছু একটা পড়ে । সেটা বিস্ফোরিত হলে গার্ড এবং হ্যারিসন মারামারি করে । তারপরে যে রুমে সিরাম রয়েছে সেইরুমে অগ্রসর হয় ব্যারি এবং হ্যারিসন । শেষে আসার সময় সিসকো একটি স্পিকার সেখানে রেখে আসে । ওরা রুমে ঢুকলে সেই সিরাম রাখার ফ্রিজার বস্তুটি খুঁজে পায় । কিন্তু সেটি লক অবস্থায় ছিল । তাই সিসকো সেটি হ্যাক করে খুলতে থাকে । তখন সিসকো তার রেখে আসা স্পিকারের মাধ্যমে শব্দ তৈরি করে । এতে করে ব্যারি এবং হ্যারিসন ওয়েলস বাইরে যায় । তখন সেই লকার খুলে সিরামটি লুকিয়ে ফেলে এবং লকারটি পুনরায় লক করে । পরে ওরা দুজনে বাইরে থেকে ভিতরে আসার পরে সিসকো লকার খুললে সেই লকারটি খালি দেখতে পায় । ওরা বুঝতে পারেনা ওই লকারটি খালি কেন । পরে গার্ডরা সেখানে চলে আসলে ওরা সেখান থেকে পালিয়ে আসে ।

★ এর পরে দেখা যায় যে ব্যারি সিসকো এর রুমে যায়। যেখানে সিসকো হ্যারিসন এর ক্রিপ্টো ডিভাইস তৈরি করছিল । সেখানে ব্যারি সেই আইরামটি খুঁজে পায় । পরে ব্যারি এবং সিসকো এর মধ্যে ইমোশনাল আলাপ হয় । পরে সিসকো সেই সিরামটি ব্যারিকে দিয়ে দেয় ডক্টর র‍্যামসি কে দেওয়ার জন্য । সিসকো এটি রেখেছিল ব্যারিকে দেওয়ার জন্য যেন সে ক্রাইসিস এ লড়াই করতে পারে । পরে সেই সিরামটি নিয়ে ব্যারি ডক্টর র‍্যামসি এর ল্যাবে যায় । সেখানে গিয়ে সেই সিরামটি দেয় পরিক্ষার জন্য । ব্যারি চলে গেলে, র‍্যামসি সেই সিরামটি পরিক্ষা করে। কিন্তু সেটি কাজ করে না । যার ফলে র‍্যামসি রেগে যায় । একসময়ে সে বুঝতে পারে সে জীবিত থাকতে পারবে যদি সে অন্য মানুষের শরির খেয়ে ফেলে । যার ফলে সে একটি হাসপাতালে আক্রমণ করে বসে ।

★ অন্যদিকে সিসকো হ্যারিসন ওয়েলস কে তার বানানো ক্রিপ্টো ডিভাইস দিয়ে দিলে হ্যারিসন সেখান থেকে চলে যায়। পরে সিসকো আর কিলার ফ্রস্টের সাথে কথা হয় । সেখানে ফ্রস্ট বলে, কেউ নিজে থেকে মারা যেতে চাইলে, শতচেষ্টা করেও তুমি তাকে বাঁচাতে পারবে না। এর পরে স্টার ল্যাবে ইমার্জেন্সি অ্যাল্যার্ম বাজে । পরে ব্যারি আর কিলার ফ্রস্ট সেই হাসপাতালে যায় যেখানে র‍্যামসি আক্রমণ করে। সেখানে তাদের মাঝে প্রচুর লড়াই হয় । এক পর্যায়ে র‍্যামসি সেখান থেকে পালিয়ে যায় । পরে স্টার ল্যাবে টিম ফ্ল্যাশ আলোচনায়য় বসে । এবং সেখানে শুরু হয় ফ্যামিলি মেলোড্রামা। যেটা পুরপ সিরিজটাকেই ধ্বংস করে দিচ্ছে । যদিও ফ্যামিলিড্রামা অনেক ক্ষেত্রেই দরকারি এই সিরিজে । কিন্তু তার পরেও এখানে জরুরির চেয়ে বেশিই দেখানো হয় ।

★ ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৪ এর পোস্ট ক্রেডিট সিনে দেখা যায় যে, হ্যারিসন ন্যাশ ওয়েলস, সিসকো এর বানানো ক্রিপ্টো ডিভাইস নিয়ে একটি আন্ডার গ্রাউন্ড সাবওয়েতে রয়েছে। সেখানে সে বলে তাহলে পরিক্ষাটি শুরু করা যাক বলে ক্রিপ্টো ডিভাইসটি চালু করে । চালু করার পরে দেখা যায় যে মনিটর তার পিছন থেকে সামনে হেটে চলে যাচ্ছে, সেখামে থাকা একটি দেওয়ালের মধ্যে। হ্যারিসন একটি হাতুড়ি হাতে নিয়ে বলে তাহলে খেলা শুরু করা যাক । এভাবেই শেষ হয় সিজন ৬ এর এপিসোড ৪ । পরবর্তি এপিসোড প্রচারিত হবে আগামী ৬ই নভেম্বর এ ।

Leave a Comment

Total Views: 265

Scroll to Top