নেটফ্লিক্সের এক্সট্রাকশন মুভি রিভিউ

Extraction Movie Chris Hemsworth Bangladesh Shooting scene reviewhax - নেটফ্লিক্সের এক্সট্রাকশন মুভি রিভিউ

এসে গেল থর খ্যাত অভিনেতা ক্রিস হেমসওয়ার্থ অভিনীত এক্সট্রাকশন সিনেমার ট্রেইলার । এর আগে একাধিকবার এই সিনেমার নাম পরিবর্তন করা হয়েছে । প্রথমে এর নাম দেওয়া হয়েছিল ‘ঢাকা’ কিন্তু এর পরে আরো একবার চেঞ্জ করে ‘Out of the Fire’ নামে ।

তবে February 19, 2020 এ আগের সকল নাম বাদ দিয়ে “Extraction” নাম কে ফাইনাল করা হয় ।
 

যদিও ক্রিস হেমসওয়ার্থ এই প্রথম নেটফ্লিক্স স্ট্রিমিং সার্ভিসের জন্য কোন প্রজেক্টে কাজ করছে আভেঞ্জার্স: এজ অফ আল্ট্রন সিনেমার থর খ্যাত এই অভিনেতা।

এই সিনেমাটিতে তাকে একজন ব্লাক মার্কেট মার্সেইনারি হিসেবে দেখা যাবে । যে টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন কাজ করে থাকে । 

বিস্তারিত নিচের এক্সট্রাকশন movieট্রেইলার ব্রেকডাওন রিভিউ অংশে পড়ে নিন ।

এক্সট্রাকশন মুভি রিভিউ

নো স্পইলার 😀

৩১ আগস্ট ২০১৮ তে প্রথম ঘোষণা দেওয়া হয় যে জো রুসো এর গল্পে “ঢাকা নামের সিনেমার” কাজ শুরু হবে । আর এটি ডিরেকশন করবে Sam Hargrave । তাদের পাশাপাশি থর অভিনেতা Chris Hemsworth এই সিনেমায় অভিনয় করবে । ২০১৮ এর নভেম্বর মাসে বাকি কাস্টিং নির্বাচিত করা হয় ।

 

Extraction-Movie-Chris-Hemsworth-Bangladesh-Shooting-scene-reviewhax
( Copyright Courtesy: Netflix)
Tyler Rake (Chris Hemsworth) যে কিনা ব্লাক মার্কেটের একজন মার্সেনারি । যে টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন কাজ করে থাকে । সে বাংলাদেশে আসে ভারতের এক গ্যাংস্টার এর ছেলেকে উদ্ধার করার জন্য । যাকে বাংলাদেশের গ্যাংস্টার কিডন্যাপড করে । এই উদ্ধার মিশনে এসে , টাইলারের নিজ পরিবারের কথা মনে করিয়ে দেয় সেই বাচ্চা ছেলেটি ।
এখন টাইলার পারবে কি সেই ছেলেটি কে নিরাপদে উদ্ধার করে নিয়ে সেই ছেলে এবং সে নিজে এক সুস্থ সুন্দর জীবন গড়তে । নাকি তারা দুজনেই এই অপরাধ জগতের সাথে আরো জড়িয়ে যাবে ? তা জানতে আপনাকে দেখতে হবে, ক্রিস হেমসওয়ার্থ অভিনীত এক্সট্রাকশন সিনেমাটি । আর এর জন্য অপেক্ষা করতে হবে আগামী ২৪শে এপ্রিল পর্যন্ত ।
extraction movie review bangla

গত ৭ই এপ্রিল নেটফ্লিক্সের অফিশিয়াল চ্যানেলে মুক্তি পায় এক্সট্রাকশন সিনেমার ট্রেইলার । এর আগে গত সপ্তাহে নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেয়েছে ওযারক সিজন ৩ ।

তবে ট্রেইলার মুক্তির পরেই বাংলাদেশের মুভিখোর বা সিনেমা প্রেমিদের মধ্যে মিশ্রপ্রতিক্রিয়া দেখা যায় ।

এর মুলে রয়েছে বাংলাদেশের দৃশ্য ভারতে শ্যুটিং করায় । ভারতের মুম্বাই ও Ahmedabad তে শ্যুটিং করে সেটাকে বাংলাদেশ হিসেবে উপস্থিত করায় । ভারতের পাশাপাশি থাইল্যান্ডেও এর শ্যুটিং করা হয় । এক্সট্রাকশন ।

এক্সট্রাকশন মুভি মুক্তির তারিখ

পুরো বিশ্বে একযোগে আগামী ২৪ শে এপ্রিল মুক্তি পাবে এই Extraction সিনেমাটি । যা সকল নেটফ্লিক্স ইউজারেরা দেখতে পারবে ।

এছাড়া ও গত সপ্তাহে নেটফ্লিক্সের প্রতিদ্বন্দ্বী স্ট্রিমিং সার্ভিস ডিজনি প্লাস এ মুক্তি পেয়েছে একাধিক সিনেমা । বিশেষ করে বর্তমানে করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯ এর কারনে একাধিক সিনেমা অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিসে আগের রিলিজ ডেট বাদ দিয়ে খুব দ্রুতই ডিজিটাল রিলিজ দিয়ে দিচ্ছে । যার মধ্যে পিক্সার স্টুডিও এর অ্যানিমেশন মুভি Onward সিনেমাটি রয়েছে যেটি গত ২ এপ্রিল থেকে স্ট্রিম করা যাচ্ছে ।

Extraction-Movie-Action-fight-scene-reviewhax
( Copyright Courtesy: Netflix)

এক নজরে এক্সট্রাকশন মুভি

Movie Name: Extraction (2020)

Release Date: 24 April 2020

Language: English (একাধিক ভাষায় ডাবিং করা হয়েছে )

Duration: 117 minutes

CAST: Chris Hemsworth, David Harbour, Derek Luke, Manoj Bajpayee, Pankaj Tripathi এবং randip hooda.

Movie Budget: N/A

Director: Sam Hargrave

Producer: সিনেমাটি প্রযোজনা করেছে অ্যাভেঞ্জার্স: ইনফিনিটি ওয়্যার ও অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম খ্যাত ডিরেক্ট Anthony Russo ও Joe Russo দুই ভাই । সেই সাথে Chris Hemsworth, Mike Larocca এবং Eric Gitter ছিল সার্বিক সহযোগীতায় ।

Personal Rating: ট্রেইলার রেটিং: 4/5

Rotten Tomato: Extraction (2020) on Rotten Tomatoes

IMDB: Extraction on IMDb

WIKIPEDIA: Extraction in Wikipedia

এক্সট্রাকশন মুভি ট্রেইলার ব্রেকডাওন রিভিউ

নেটফ্লিক্সের এক্সট্রাকশন মুভি এর ট্রেইলার রিভিউ

Extraction Movie Trailer Review

Action সাথে আরো Action দেখে মনে হলো পুরো ট্রেইলার জুড়ে শুধু মারামারি আর মারামারি। সাথে অসাধারণ লেভেলের ডিরেকশন, আরো পাবেন আমাদের চেনা-জানা লোকেশন, জ্বি বাংলাদেশের লোকেশন সেই জন্য পরিচিত । তবে অ্যাকশন- থ্রীলার মুভি হিসেবে ট্রেইলারটি অনেক ভালো লেগেছে ।

Netflix Extraction Movie Trailer Breakdown Review

স্পেশালী ধূলাবালি!!! হোক না সেটা ধূলাবালি কিন্তু তবুও বাংলাদেশ তো তাই না? ☺ । ট্রেইলারে যেটুকু বুঝা গেছে তা হলো বাংলাদেশ কে কিছুটা নেগেটিভ ভাবে দেখানো হবে । তবে আমেরিকান মুভি বলে কথা, তাদের থেকে এর বেশি ভালো কিছু আশা করা যায় না। তবে দেখা যাক কি হয় বাংলাদেশের স্টোরীতে । তাও আবার সাথে পাবেন ক্রিসকে । এক্সট্রাকশন movie সব মিলিয়ে ভালোই ছিলো, আশা রাখা যায় ভালো কিছুই হবে।

Extraction-Movie-Chris-Hemsworth-fight-scene-reviewhax
( Copyright Courtesy: Netflix)

Extraction Movie Trailer Summary

প্রথম টিজার প্রকাশিত হয় Apr 7, 2020 এ ।

প্রথম টিজারের লাইক সংখ্যা প্রায় ১ লাখ ১৫ হাজারের বেশি।

প্রথম টিজারের ডিসলাইক সংখ্যা প্রায় ২ হাজার ।

প্রথম টিজারের ভিওস ছিল প্রায় ৫ মিলিয়ন বার। (শুধুমাত্র ইউটিউব লাইক, ডিসলাইক এবং ভিওস গননা করা হয়েছে)

প্রথম টিজারের সময়কাল ছিল ৩ মিনিট ২ সেকেন্ড ।

এক্সট্রাকশন মুভি রিভিউ

অন্যদিকে কোরিয়ান ব্লকবাস্টার সিনেমা ট্রেইন টু বুসানের সিক্যুয়েল ট্রেন টু বুসান: পেনিনসুলা মুভির ট্রেলার প্রকাশিত হয়েছে । যা ইতোমধ্যে Netflix এর আরেক জনপ্রিয় সিরিজ ওযারক সিজন ৩ এর সোশ্যাল এংগেজমেন্ট কমিয়ে দিয়েছে । যদিও গত বছরে মুক্তি পাওয়া অ্যাকাডেমি আ্যাওয়ার্ড উইনার সিনেমা ‘Parasite’ প্যারাসাইটের জনপ্রিয়তা তুংগে তুলে রেখেছে ।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এক্সট্রাকশন মুভি এর সিক্যুয়েল নিয়ে কাজ শুরু হচ্ছে । খুব তাড়াতাড়ি Extraction মুভি এর সিক্যুয়েল চলে আসবে নেটফ্লিক্সে ।

যেভাবে এলো নেটফ্লিক্সের ‘এক্সট্রাকশন’ movie

মার্ভেলের ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’খ্যাত রুশো ব্রাদার্স এই ছবি প্রযোজনা করেছেন। এর ডিরেক্টর হচ্ছে তাঁদের দীর্ঘদিনের সহযোগী অ্যাকশন পরিচালক স্যাম হারগ্রেভ। এতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ‘থর’ খ্যাত অভিনেতা ক্রিস হেমসওর্থ।

 

সিনেমার মূল প্লট হচ্ছে বাংলাদেশের ঢাকা শহর নিয়ে । এতে দেখানো হবে, ভারতের মুম্বাইয়ের এক মাফিয়া ডনের ছেলেকে অপহরণ করে বাংলাদেশের এক মাফিয়া ডন। আর তার ছেলেকে উদ্ধার করতে নিয়োগ করা হয় দুর্ধর্ষ আততায়ী ক্রিস হেমসওর্থকে।

এক্সট্রাকশন মুভি রিভিউ

শুরুতে এই ছবির ওয়ার্কিং টাইটেল (প্রাথমিক নাম) রাখা হয় ‘ঢাকা’। কিন্তু পরে সেই নাম পাল্টে হয় ‘আউট অব দ্য ফায়ার’, যদিও সব শেষে রাখা হয় ‘এক্সট্রাকশন’। এই ছবির ট্রেলার বেরিয়েছে গত ৭ এপ্রিল। ছবিটি নেটফ্লিক্সে মুক্তি পেতে যাচ্ছে আগামী ২৪ এপ্রিল।

Extraction Movie Review

এক্সট্রাকশন মুভি রিভিউ

Extraction Movie Trailer Review

Extraction Movie Action fight scene reviewhax

Extraction Movie Chris Hemsworth fight scene reviewhax

Extraction Movie Trailer Breakdown Review

এক্সট্র্যাকশন

Netflix Extraction Movie – Image Credit: Netflix

  Netflix Ozark Season 3 bangla Review

EXTRACTION – (2020)
থর দাদা তথা ক্রিস হেমসওয়ার্থ বাবুর এক্সট্রাকশনের আগে যে মুভিটি দেখেছিলাম সেটা হলো ‘অ্যাভেঞ্জার : ইন্ডগেম। সেটাতে অ্যাভেঞ্জারের বাকী সদস্যদের পূনরায় ফিরিয়ে আনতে কি তুঘলকি কান্ডটাই না করতে হয়েছিলো। তবে ইন্ডগেমের থর বাবুকে দেখে খানিকটা বিরক্তিকর অবস্থাতে পড়েছিলাম।
আগের সেই জৌলুশ, শক্তি, সিক্সপ্যাক সবই গায়েব ছিলো। যাইহোক’, আলোচ্য বিষয়ে ফিরি। এক্সট্রাকশন মুভিতে আমি সেরা লুক দেখেছি ক্রিস হেমসওয়ার্থের।
মুভিটি যেমন যত্রতত্র অ্যাকশন”, তেমন ক্রিসের অস্থির অভিনয়। তবুও মুভিটি আমার কাছে আনইজি লেগেছে। কেনো লেগেছে তা নিচে বলছি।
প্লটঃ
হালকা স্পয়লার
– ভারতের নামকরা ডন অভি মহাজনের ছেলেকে কিডন্যাপ করে ঢাকাতে নির্বাসিত করা হয়। এখন কে বাঁচাবে? কারণ ঢাকা এমন একটি ভয়ানক জায়গা (সিনেমার প্রেক্ষিতে) যেখান থেকে ইন্ডিয়ান ডনরাও সাহসের সাথে পেরে উঠে না মহাজনের ছেলেকে বাঁচানোর জন্য। ভাড়া করা হলো দুর্ধর্ষ সাহসী সাবেক আমেরিকান কমান্ডার টাইলারকে।
ব্যস! শুরু হয়ে গেলো যুদ্ধ। এক টাইলারকে রুখতে নেমে আসলো বাংলাদেশ পুলিশ, এলিট বাহিনী, র‍্যাব, আর্মি সহ পুরান ঢাকার অলিগলির মস্তানেরা।
শেষ অবধি কি হয়েছিলো টাইলার আর সেই ডনের ছেলেটির?
Genre: Actions
Language: English (Hindi dub)
Director: Sam Hargrave
IMDb Rating: 6.7/10
Duration: 117 Minutes
প্রথমে আমি একটা কথা বলে নেই’, এক্সট্রাকশন দেখে আমার মস্তিক্সের চিন্তায় কিছু সময়ের জন্য ছেদ পড়েছিলো। এর কারণ মুভিটি দেখার আগে প্রচুর কৌতূহলী ছিলাম। কেননা সচারাচর হলিপাড়ার লোক আমাদের নিয়ে চিন্তাভাবনা করে না। তাদের এই টাইপের মুভি গুলোতে সাধারণত তারা বাহাদুরি দেখায় চীন, রাশিয়া, উত্তর কোরিয়া মাঝেসাঝে মধ্যপ্রাচ্য টেনে নিয়ে। সেই গুলোতে আমরা দেখি একজন আমেরিকান সৈন্য মেরেমেরে তুলোধুনো করতেছে শত্রুদের।
এক্সট্রাকশন মুভিটিতেও তার ব্যতিক্রম কিছু নয়। রাতারাতি টাইলার বাবুবাংলাদেশের সরকারি নওজোয়ানদের মেরে ফেলতেছে। কোনো হেলিকপ্টার, সাজোয়া যানে কাজ হচ্ছে না। পাশাপাশি, অপরাধ চক্রের সাথে বাংলার বাহিনীরা মিলেমিশে কাজ করতেছে। 
সবচেয়ে দৃষ্টিকটু বিষয়টা মুভিটির ঢাকার ছোট ছোট বাচ্চাদের হাতে একে ৪৭ বন্দুক। তারা টাইলারকে মারার জন্য ব্যতিব্যস্ত। আমি আমার জীবদ্দশায় যত গুলো ইতিহাস পড়েছি বাংলাদেশের’, তাতে কোনোদিনও শুনেনি আমাদের দেশের বাচ্চারা রাত্রিবেলা একে ৪৭ নিয়ে ঘুরাঘুরি করে। এরকমটা আফ্রিকার কিছু দেশে আছে। 
২০০৬ সালের লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিওর ‘ব্লাড ডায়মন্ড’ মুভিতে এমনটা দেখেছিলাম। তাদেরটা ছিলো আফ্রিকা নিয়ে। এটা অবশ্য মানা যায়। কারন আফ্রিকায় এই ঘটনার নজির নেহাতই কম নয়। আর এক্সট্রাকশনের ঢাকা শহরটাও বড্ড অচেনা ছিলো। যেনো যুদ্ধবিধ্বস্ত দামেস্ক। ভাই একটু গুলশান, উত্তরা, বনানীর এক ঝলক দেখাতি। তাহলে একটা টোকিও বা সিওল শহরের ভাব আসতো।
আর পুরান ঢাকার ডন চরিত্রে অভিনয়ের জন্য ভারতের অভিনেতা হায়ার করা ভুল ছিলো। এটলিস্ট, সুন্দর বাংলা ডায়লগ বলার জন্য হলেও। ও যে বাংলা বলেছে তার চেয়ে ক্রিস বাবুর “পোমাণ দাও” উক্তিটি আমার ভালো লেগেছে।
তবে মুভিটির একটা ব্যাপারের প্রশংসা করতেই হয়। সসম্পুর্ন জবরদস্তি অ্যাকশনে ভরপুর ছিলো। পাশাপাশি খানিকটা থ্রিলিংও। ক্রিস তার সেরাটাই দিয়েছে। কারও অদেখা থাকলে দেখে নিতে পারেন। নিরাশ হবেন না।

Leave a Comment

Total Views: 573

Scroll to Top