দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৩ রিভিউ

The Flash Season 6 Episode 3 Review – দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৩ রিভিউ

দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৩ ব্রেকডাওন রিভিউ

গত ২৩ শে অক্টোবর এ অ্যারোভার্সের নিয়মিত সিরিজ The Flash এর সিজন ৬ এর এপিসোড ৩ প্রচার হয় । আপনি যদি The Flash এর অরিজিন না যেনে থাকেন তাহলে The Flash এর অরিজিন ইতিহাস পড়ে নিন।

The Flash Season 6 Episode 3 Review

এবার পড়ে নিন সিজন ৬ এর এপিসোড ৩ রিভিউ। # স্পইলার এলার্ট # ।

The Flash সিজন ৬ এপিসোড ৩ রিভিউ

∑‡ স্পইলার এলার্ট †⁺

The Flash Season 6 Episode 3 Breakdown

★ The Flash Season 6 Episode 1 Review – দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ১ রিভিউ

★ তৃতীয় এপিসোড এর ব্যাপ্তিকাল ছিল ৪২ মিনিট । এই এপিসোড এর নাম ছিল Dead Man Running । এপিসোড এর শুরুতেই পুর্ববর্তী এপিসোডগুলির কিছু দৃশ্য দেখানো হয় । বিশেষ করে ∆ মনিটর ∆ এর সাথে কথোপকথন। অন্যদিকে টাইম ভল্ট যেটা স্টার ল্যাবে অনেক আগে থেকেই অবস্থিত সেখানে একটি নিউজ পেপারের রিপোর্ট দেখানো হয় । যা গত ৫ বছর ধরেই দেখানো হচ্ছে । এই রিপোর্ট এর মাধ্যমে আসতে চলা ক্রসওভার ইভেন্ট ∆ ক্রাইসিস ওন ইনফিনিটি আর্থ ∆ এর ব্যাপারে আগাম সতর্কতা দেওয়া হয় ।

★ অন্যদিকে আসতে চলা ক্রাইসিসে ব্যারি মারা যাবে এই কথাটি টিম ফ্লাশের থেকে লুকিয়ে রাখবে বলে সিদ্ধান্ত নেয় আইরিস এবং ব্যারি। টিম ফ্ল্যাশ কে একত্রিত করে ট্রেইনিং দেওয়া হবে। যাতে করে ফ্ল্যাশ ক্রাইসিসে ভ্যানিশ হয়ে গেলে তার যেন সেন্ট্রাল সিটি কে ভালোভাবে খেয়াল রাখতে পারে ।

★এপিসোড এর শুরুতেই ডক্টর র‍্যামসি এর তৈরি করা মেটা হিউম্যান রোমেরো এর ক্রু দের মাঝে ঝামেলা হয়। কিন্তু সেখানে তাদের উপর কেউ হামলা করে বসে । শেষে দেখা যায় সেই হামলাকারী রোমেরো নিজেই । যে এখন সম্পুর্ন রুপে মেটা হিউম্যান হয়েছে এবং ডার্ক ম্যাট্যারের খোজ করছে । সেখানে সকল ক্রুদের মেরে তাদের কাছে থাকা সকল ডার্ক ম্যাট্যার নিজের মধ্যে অ্যাবসোর্ভ করে নেয় ।

ফ্ল্যাশ সিরিজ রিভিউ
(image Credit: The CW/DC/WB)

★অন্যদিকে আইরিস এবং ব্যারি কে সাথে নিয়ে টিম ফ্ল্যাশ এর সাথে আসতে চলে ক্রাইসিস সম্পর্কে জানায় । সেখানে নিজের মারা যাওয়ার কথা গোপন রেখে ব্যারি বলে যে, ক্রাইসিস ২০২৪ সালে আসার কথা থাকলেও তা ২০১৯ এর ১১ ডিসেম্বর আসবে । সেখানে সবাই মারা যাবে । তখন সবাই বলে যে হাতে যে সময় টুকু আছে তা আনন্দে কাটাতে । তখন রাল্ফ এর ফোন আসে যো ওয়েস্ট এর কাছে থেকে এবং রাল্ফ চলে যায় । টিম ফ্ল্যাশ চলে গেলে ব্যারি বলে টিম কে তৈরি করতে হবে আমাকে ছাড়া চলতে । এর জন্য সবাইকে ট্রেইনিং দিতে হবে । কিলার ফ্রস্ট কে দেখিয়ে বলে যে ওর মাধ্যমে ট্রেইনিং শুরু করতে হবে ।

★ রাল্ফ থানা পৌঁছালে দেখতে পায় তার মা কে গ্রেফতার করা হয়েছে একটি দোকানে চুরির দায়ে । সেখানে রাল্ফের মায়ের সাথে মনোমালিন্য হয়। পরে তার মা নির্দোষ কিনা জানার জন্য সিসিল এর সাথে মিলে তার মায়ের বলা দোকানে যায় সিসি টিভির ক্যামেরা ফুটেজ চেক করার জন্য । কিন্তু দোকানদার ঘুষ চায় । যার ফলে রাল্ফ তার সুপার পাওয়ার ব্যাবহার করে সেই সিসিটিভির ক্যামেরা ফুটেজ এর ফাইল সংগ্রহ করে । সেখানে তার মায়ের পুরনো বয়ফ্রেন্ড এর দেখা পায়, রাল্ফ যাকে মৃত হিসেবে জানে । পরে রাল্ফ বুঝতে পারে তার মা তাকে মিথ্যা বলেছে। রাল্ফ রাগ করে সেখান থেকে চলে যায় ।

★ এর পরে কিলার ফ্রস্ট এবং ব্যারি একটি দুর্ঘটনার ইনভেস্টিগেশন করতে গেলে মেটা হিউম্যান রোমেরো এর বিষয়ে জানতে পারে। ব্যারি বুঝতে পারেনা এইগুলি কে করল তখন কিলার ফ্রস্ট বলে যে সে জানে কে এই গুলি করেছে । তখন ফ্ল্যাশ আর কেইটলিন ডক্টর র‍্যামসি এর ল্যাবে যায় । সেখানে কিলার ফ্রস্ট তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে । পরে রোমেরো এর বিষয়ে জানতে পারে । তখনি ব্যারির কাছে ফোন আসে যে মার্কিউরি ল্যাবে কেউ একজন আক্রমণ করেছে । সেখানে গেলে তারা রোমেরো কে খুজে পায়। তখন তাদের মধ্যে লড়াই হয় । লড়াইয়ের এক পর্যায়ে কিলার ফ্রস্ট তাকে জানলা থেকে ছুড়ে ফেলে দেয়। ব্যারি তখন বলে সবকিছু রেগে গিয়ে করা ঠিক না । কিছু বিষয় ভেবে চিন্তে করতে হয় । পরে ব্যারি পুনরায় র‍্যামসি রুসো এর কাছে এই মেটা হিউম্যান কে ধরার জন্য সাহায্য চায় । র‍্যামসি তাকে সাহায্য করবে বলে জানায় এবং তারা স্টার ল্যাবে চলে যায় । কিলার ফ্রস্ট বলে যে সে র‍্যামসি কে বিশ্বাস করে না। ব্যারি তাকে পরিক্ষা করার জন্য ডার্ক ম্যাট্যার ভর্তি এক বক্স তার সামনে রেখে, আরো একটি বক্স আনতে গেলে র‍্যামসি সেখান থেকে কিছু ডার্ক ম্যাট্যার নিয়ে নিজের ব্যাগে রাখতে যায়। তখনি ব্যারি এসে বলে যে, প্রথম থেকেই তার উপর সন্দেহ ছিল । র‍্যামসি বলে তার এই ডার্ক ম্যাট্যার নেওয়া দরকার এর মাধ্যমে সে ক্যান্সারজনিত রোগ সারাতে পারবে । কিন্তু ব্যারির সাথে এই নিয়ে তর্কাতর্কি হয় ।

★ The Flash Season 6 Episode 2 Review – দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ২ রিভিউ

★ আইরিস ওয়েস্ট অ্যালেন এর অফিসে নিয়ে যাওয়া হয় । যেখানে তার নতুন ইন্ট্রান গার্সিয়া, হ্যারিসন ওয়েলস এর বিষয়ে খবর দেয় । তখন আইরিস সিসকো কে সাথে নিয়ে হ্যারিসন কে খুজতে বের হয় । এক পর্যায়ে তারা তাকে খুজে পায় । সেখানে তাকে তার বিষয়ে জানতে চাইলে আক্রমণ করতে বসলে আইরিস তাকে বিদ্যুৎ এর ঝটকা দিয়ে অজ্ঞান করে ফেলে । হ্যারিসন ওয়েলস এর জ্ঞ্যান ফিরলে সে বলে যে একটি পদার্থ খুঁজতে এখানে এসেছে । যদিও সিসকো আর আইরিস তার সাথে কথা বলে বুঝার চেষ্টা করে। কিন্তু হ্যারিসন ওয়েলস সেখানে বায়ু বোম্ব ফাটিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যায় । পরবর্তীতে হ্যারিসন ওয়েলস কে দেখা যায় যে সে একটি রাস্তায় ঘুরছে এবং সেখানে থাকা একটি ম্যানহোলের ভিতর কিছু একটা খুজে পায় ।

★ আইরিস আর তার ইন্টার্ন গার্সিয়ার এর মাঝে তর্কাতর্কি হয়। এর কারন হল আইরিস মিথ্যা কথা বলেছিল তার কাছে । পরবর্তিতে আইরিস বলে সময় আসলে সে সব বুঝিয়ে বলবে । অন্যদিকে স্টার ল্যাবে ডক্টর র‍্যামসি এর উপর রোমেরো হামলা চালায় । কিন্তু অবিশাস্যভাবে রোমেরো র‍্যামসির কথা শুনে, সে যেমন করে রোমেরো সেই রকম করে । তখনি ব্যারি সেখানে আসে এবং রোমেরো তার উপর আক্রমণ করে । ব্যারি তখন কিলার ফ্রস্টের বুদ্ধিতে রোমেরো কে ডার্ক ম্যাট্যার এর ওভার ডোজ দিয়ে মেরে ফেলে ।

★ ব্যারি কিলার ফ্রস্টের উপস্থিতিতে ডক্টর র‍্যামসি কে বলে যে, সে চাইলে তাকে সাহায্য করবে । অন্যদিকে রাল্ফ এবং তার মায়ের মাঝে ইমোশনাল কথোপকথন হয় । যেখানে রাল্ফ তার মাকে নিজের লেখা একটি বই উপহার দেয় । বইটি দিয়ে রাল্ফ বলে, মা তুমি বাকি জীবনটুকু আনন্দে কাটিয়ো এই বই তোমাকে সাহায্য করবে । তার মা বলে সারা জীবন আমি চেয়েছি তুমি যেন হাশিখুশি থাকো। আমার মনে হয় এই বই তোমাকেই বেশি সাহায্য করবে । সেই জন্য তুমিই এই বইটি রাখো ।

★ পরবর্তীতে ডক্টর র‍্যামসি কে দেখা যায় যে রোমেরো এর লাশের রক্ত ছোট একটি বক্সে ভর্তি করে নিয়ে এসেছে। যখন সে এটি ভেংগে ফেলে তখন সেটি তার শরিরের সাথে মিশে যায় । সে রোমেরো এর মত আরো ব্যাক্তি কে চায়, নিজের শরিরে রাখতে ।

★ স্টার ল্যাবে কেইটলিন কে দেখা যায় তার বার্থডে পার্টি উদযাপন করতে । ব্যারি বলে বাকি যেকই দিন বেচে থাকব সেই কয়দিন এভাবে আনন্দে কাটিয়ে দিব । পরবর্তিতে ব্যারি আর আইরিস ঠিক করে যে তার মৃত্যু এর খবর সবাইকে জানানো দরকার বা উচিত। তখন সে স্টার ল্যাবের সবাইকে ডেকে এই বিষয়ে জানায় । সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে ব্যারি কে সাপোর্ট দিবে বলে যানায় । এবং আসতে চলা ক্রাইসিসে তাকে অবশ্যই সাহায্য করবে ।

#দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৪ রিভিউ – there will be blood review

★ এভাবেই শেষ হয় ফ্লাশের সিজন ৬ এর এপিসোড ৩ ।

Leave a Comment

Total Views: 486

Scroll to Top