ডিসি টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৬ রিভিউ

DC Titans Season 2 Episode 6 Review – ডিসি টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৬ রিভিউ

DC Titans Season 2 Episode 6 Review in bangla

গত ১১ অক্টোবর প্রচারিত হল ডিসি স্ট্রিমিং সার্ভিসের বহুল জনপ্রিয় সিরিজ টাইটান্স এর দ্বিতীয় সিজনের ৬ নম্বর এপিসোড। আপনি যদি টাইটান্স এর অরিজিন না যেনে থাকেন তাহলে ∆∆∆∆ টাইটান্স এর অরিজিন এই পোস্ট ∆∆∆∆ পড়ে নিন।

টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৬ রিভিউ

∆ ডিসি টাইটান্স সিজন ২ ট্রেইলার ব্রেকডাওন রিভিউ পড়ুন এই লিংক থেকে

DC Titans টাইটান্স হল ব্যাটম্যান এর সাইড কিক ডিক গ্রেসন ওরফে ” রবিন ” এর লিডারশীপ এ তৈরি হওয়া একটি সুপারহিরো দল ।

কিন্তু কিছু কারনে পুরনো টাইটান্স টিম ভেংগে গেলে রবিন নতুন টিম তৈরি করে।

নতুন সদস্যদের নিয়েই সান ফ্রান্সিসকো তে শুরু হয় নতুন টাইটান্স এর যাত্রা।

∆ ডিসি কমিক্সের উপর নির্মিত আরো একটি সিরিজ দ্যা ফ্ল্যাশ সিজন ৬ এপিসোড ৩ রিভিউ পড়ে নিন। ∇

টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৬ রিভিউ

∑‡ স্পইলার এলার্ট †⁺

DC Titans Episode 6 Breakdown

★ টাইটান্স এর সিজন ২ এর এপিসোড নাম্বার ৬ এর নাম ছিল Conner । এর ব্যাপ্তিকাল ছিল প্রায় ৪৩ মিনিট । প্রচারিত হয়েছিল ১১ ই অক্টোবর এ, ডিসি কমিক্সের নিজস্ব অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিসে যার নাম ” DC Universe ” ।

★ এপিসোড শুরু হয় আগের এপিসোড এর রিক্যাপ দৃশ্য দেখিয়ে । বিশেষ করে এপিসোড ৫ এর দৃশ্য । এপিসোড ৫ দেখে না থাকলে এইখান থেকে আপনি টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৫ ব্রেকডাওন রিভিউ পড়ে নিন । এর পরে ডিসির ওপেনিং সিন প্লে হয় । তার পরে শুরু হয় এই এপিসোড এর মুল পর্ব ।

★ এপিসোড শুরু হয় লেক্স লুথরের একটি ল্যাবে নিয়ে যাওয়া হয়। যেখানে ইভ নামে এক ডক্টর সুপারম্যান এর ক্লোন নিয়ে রিসার্চ করে, যে কিনা সুপার বয় নামে পরিচিত । সেখানে সকাল বেলায় ডেকে আনা হয় কারন সেখানে একটি দুর্ঘটনা ঘটে। সুপার বয় গার্ডদের মেরে ক্রিপ্টো নামের মেটা ডগ কে সাথে নিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যায় । তাকে খুজার জন্য একটি টিম তৈরি করে লেক্স লুথরের পার্সোনাল সিকিউরিটি এর সদস্যদের মাধ্যমে । সে দলেরর লিডার থাকে মার্সি নামক এক মহিলা। যে কিনা লুথরের পার্সোনাল সেক্রেটারি । মার্সি সুপারবয় ওরফে কনার কে খুজার জন্য ডক্টর ইভ কে সাথে নিয়ে দল তৈরি করে কনকে খুজতে বের হয় ।

★ কনর রাস্তায় ঘুরতে থাকে, সাথে থাকে তার কুকুর ক্রিপ্টো । এক পর্যায়ে কনর সুপারম্যান এর লগো সহ একটি টিশার্ট পছন্দ করে । দোকানদার তার কাছে টাকা চাইলে বলে তার কাছে টাকা নেই । কনর টাকা খুজতে রাস্তা বের হয় । সেখানে একজন ছিনতাই কারির কাছ থেকে এক মহিলা কে বাচায় এবং তার কাছ থেকে টাকা নেয় । এই টাকা দিয়ে সে ওই টিশার্টটি কিনে পড়ে নেয় । অন্যদিকে ডক্টর ইভ মার্সিকে বলতে থাকে যে কনর বা সাবজেক্ট ১৩ একটি ২ বছর বয়সের বাচ্চা ছেলের মত যে বাইরের দুনিয়ার কিছুই জানেনা । যাকে খুজে নিয়ে আসতেই হবে । তাকে খুজে আনতে মার্সির নিজস্ব টিম এবং ডক্টর ইভ রাস্তায় বের হয় তাকে খুজতে ।

★ রাস্তায় হাটার সময় সে একটি বাস দেখতে পায়। তখন তার বাড়ির কথা মনে হয়। সে বাসে চড়ে বাড়ি উদ্দেশ্যে চলে যায় । সেখানে সে একটি বাড়িতে যায় যেটা কিনা লেক্স লুথরের বাড়ি ছিল । সেই বাড়িতে লেক্স লুথরের পুরনো বাড়ি ছিল । সেই বাড়িতে তার বাবা

★ বাস করত। লেক্সের বাবা কনর কে তার বাড়িতে নিয়ে যায় । কনর বাড়ির বর্ণনা দিতে থাকলে সে বলে যে এটা হয়ত কেন্টদের বাসা । তখন লেথরের বাবা বলে হ্যা ক্লার্ক কেন্ট যে আলেক্সান্ডারের বন্ধু ছিল । কনর আর লেক্স লুথরের বাবার মধ্যে অনেকক্ষণ কথা হয় । ঠিক তখনি তাদের উপর ডক্টর ইভ এবং মার্সির সৈন্য আসে তার লুথরের বাবাকে আঘাত করে । ফলে কনর রেগে যায় এবং তাদের সকল কে মেরে ফেলে দেয় । অন্যদিকে ডক্টর ইভ কনরের আচরণ এ ভয় পেয়ে যায় । সে পালাতে গেলে কনর তাকে ধোরে ফেলে । কনর তার কাছে নিজের পরিচয় এবং নিজের সম্পর্কে জানতে চায়। ডক্টর ইভ বলে যে:- সে একজন ল্যাবে তৈরি মনুষ্য যে কিনা লেক্স লুথর এবং সুপার ম্যান এর ডিএনএ দিয়ে তৈরি ।

★ ডক্টর ইভ বলে যদি এখন সে ফেরত যায় তাহলে তাকে তারা মেরে ফেলবে । তাই ডক্টর ইভ কনর কে নিয়ে পালিয়ে যায় অন্য এক শহরে । গাড়িতে যাওয়ার সময় ডক্টর ইভ কনরকে তার বিষয়ে বলে । সে কিভাবে তৈরি তার কি কি ক্ষমতা রয়েছে ইত্যাদি। অন্যদিকে তাকে সে কিভাবে বানিয়েচছে কিভাবে ক্ষেয়াল রেখেছে সেটাও সে বলছিল । কিন্তু তখন কনর তাকে জিজ্ঞাসা করে যে সে তাকে মা বলতে পারবে কিনা? ডক্টর ইভ এর উত্তর দেয় না । রাস্তায় একটি দোকানে গাড়ি থামিয়ে খাবার কিনছিল ডক্টর ইভ । ঠিক তখনি কনরের পাশে এক ব্যাক্তি এক মহিলা কে আঘাত করছিল কনর সেই ব্যাক্তিকে থামাতে গেলে ডক্টর ইভ তাকে বাধা দেয় এবং বলে, কখনো হিরো হতে যেয়ো না নইলে বিপদে পড়বে । নিজের শক্তির কথা কাউকে বল না । এই বলে তারা অন্য আরেকটি জায়গায় চলে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হয় ।

★ কিন্তু কনর যেতে চায় না । সে মানুষদের কে সাহায্য করতে চায় নিজের শক্তি দিয়ে । কিন্তু ডক্টর ইভ বলে সে যদি তার ক্ষমতা ব্যাবহার করে তাহলে সে নিজের বিপদ নিজের ডেকে আনবে । কনর চায় তার বিষয়ে জানতে সে বলে লেক্স লুথরের কাছে যাবে তার নিজ সম্পর্কে জানতে । কিন্তু ডক্টর ইভ তাকে বাধা দিয়ে বলে আচ্ছা ঠিক আছে, তুমি যদি নিজ সম্পর্কে জানতে চাও তাহলে আসো আমি তোমাকে নিয়ে যাবো । তার সেই জায়গায় যাওয়ার জন্য তৈরি হয় ।

★ তারা লেক্স লুথরের ল্যাব ক্যাডমাস এ আসে সেখানে কনরকে নিয়ে ভিতরে যায়। যেখানে কনর কে তৈরি করা হয়েছিল । ডক্টর ইভ তাকে ক্যাডমাস ইন্ড্রাস্ট্রিস সম্পর্কে বলে । এটি আগে একটি ল্যাব ছিল, একটি দুর্ঘটনায় ল্যাবটি ধ্বংস হয়ে যায় । সেই অগ্নিকাণ্ডে ১৬ জন মারা যায় । সেখানে থাকা পদার্থগুলি খুবই দাহ্য ছিল যেকারনে রেডিয়েশন এর ভয়ে এই ল্যাব কে পরিত্যক্ত করা হয় । ডক্টর ইভ কনার কে একটি দরজা ভাংতে বলে । তারা ভিতরে ঢুকে একটি রুমে যায় সেখানে কনির তার মত আরো কিছু ব্যাক্তি কে দেখতে পায় । তখন কনর ভয় পেয়ে ডক্টর ইভ কে আক্রমণ করে বসে । যদিও পরে ছেড়ে দেয় । কনর বলে সে খারাপ কিনা। ডক্টর ইভ বলে তুমি লেক্স লুথর নও কিংবা সুপারম্যান ও নও, তুমি তাদের দুজনি । সেই জন্য তোমাকে সাবধানী হতে হবে । রেগে গেলে কখনো তাদের মত রেগে যাবে আবার কখনো তোমার মত। সেই জন্য তোমাকে এই ক্ষমতা নিয়ন্ত্রন করা শিখতে হবে । ডক্টর ইভ তাকে বলে হিরো হয়ো না, তবে একজন ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে উঠো । সেই মুহুর্তে মার্সি তার দল নিয়ে সেই ল্যাবে আসে ।

★ ডক্টর ইভ বলে কনর এখন এখান থেকে পালাও । কনর যেতে চায় না কিন্তু ডক্টর ইভ তাকে জোর করে পাঠিয়ে দেয় যেন সে বেচে থাকতে পারে। কারন কনর এখানে থাকলে তাকে মেরে ফেলবে ওরা । কনর আর ক্রিপ্টো ওখান থেকে চলে যায়। মার্সি এসে কনরের কথা বললে ডক্টর ইভ বলে যে সে প্রায় মরতে মরতে বেচে গেছে । কিন্তু মার্সি ওর কথা বিশ্বাস করে না । মার্সি বলে এবার ওকে আমার মত করে ধরব ।

★ ক্রিপ্টো আর কনর রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিল সেখানে হঠাৎ করে হেলিকপ্টারের আওয়াজ পায় এবং তার পরেই তার সামনে একটি গাড়ি উপর থেকে ভেংগে পড়ে । সে উপরে তাকালে দেখতে পায় ডিক গ্রেসন যে কিনা টাইটান্স টিমের লিডার সে জাসোন টড কে এক হাতে ধরে রেখেছে ।

জেসন হাত পিছলে পড়ে গেলে তাকে কনর লাফ দিয়ে ধোরে ফেলে ।

★ ওরা যখন নিচে নামে জেসন তখন জিজ্ঞাসা করে তুমি কে। কনর বলে আমি জানি না এখনো আমি কে । জেসন তাকে ধন্যবাদ জানায় তার জীবন বাচানোর জন্য । ঠিক তখনি কনর কে ক্রিপ্টোনাইট দিয়ে পিঠে গুলি করে মার্সি অন্যদিকে ক্রিপ্টো নামের কুকুর কে ধোরে নিয়ে যায় সে । ক্রিপ্টোনাইট দিয়ে পিঠে গুলি খাওয়ার পরে নিচে পরে গেলে জেসন তাকে ধরে। সেখানে টাইটান্সের বাকি সদস্য এসে গেলে জিজ্ঞাসা করে ছেলেটি কে? জেসন বলে আমি জানিনা ছেলেটি কে তবে ও এই মাত্র আমার জীবন বাচাল । এভাবেই শেষ হয় টাইটান্স এর সিজন ২ এর এপিসোড ৬ ।

★ এর পরের এপিসোড ডিসি টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৭ রিভিউ পড়ে নিন

Leave a Comment

Total Views: 347

Scroll to Top