Multiverse Of Madness Movie Review

Disclosure: This content is reader-supported, which means that if you click on some of our links. then we may earn a commission.

💥 MULTIVERSE OF MADNESS theory & some question 💥 


⚠️ SPOILER ALERT⚠️ 
.
.
.
.
.
.
.
.
.
.

মুভি নিয়ে রিভিউ আমি আগেই দিয়ে দিতেছি যারা পড়েন নাই পড়ে আসতে পারেন, সেখানে ক্লিয়ার করে দিয়েছে মুভির ভালো দিক আর খারাপ দিক। আজকের পোস্টটাতে শুধু আলোচনা করবো কিছু প্রশ্নের উত্তর, এবং আমার নিজস্ব কিছু থিউরি নিয়ে। 

প্রথমে আসি কিছু প্রশ্ন নিয়ে 👇🏻 

যদিও ইনবক্সের সবাইকেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে দিয়েছি, কিন্তু তবুও কয়েকটা প্রশ্ন এখানে আলোচনা করে দিচ্ছি।  

১ঃ- Superior IronMan তো ছিলোনা তাহলে ultron bots কোত্থেকে এলো?
উঃ Only Smartest Man alive উল্লেকই করে দিয়েছে mr fantastic কে, আর তাছাড়া তাকে technology use করতেও দেখা গিয়েছে, সুতরাং ultron bots গুলা মুলত Mr Fantastic ই বানিয়েছিলো এবং সেই এগুলোকে control করছিলো।

২ঃ- Scarlet Witch suicide করেছে কি? 

উঃ আসলে মনে হয়েছে সবারই যে সে suicide করেছে, আসলে ব্যাপারটা তা না, mcu এদিক থেকে আমাদের ট্রিক করছে আর যাকে সরাসরি মরতে দেখানো না হয় সে ভবিষ্যতে ফিরে আসেই। এছাড়াও Scarlet Witch এর solo project development এ আছে এখন, তো তার মারা যাওয়ার প্রশ্নই উঠেনা, ইভেন সামনে আসা Agatha harkness series এও দেখানো হতে পারে এরপর কি হয়েছিলো। 
Multiverse Of Madness Movie Review

৩ঃ- Scarlet Witch তো সকল universe এর darkhold destroy করে দিয়েছে তাহলে শেষের দিকে আমাদের doctor strange এর third eye টা কিভাবে এলো!? 
উঃ- দেখেন আমি আগেও বলেছি এখনো বলছি Darkhold টা যদি কেউ একবার পড়ে তাহলে সে possessed হবেই। 

মনে করে দেখেন, আমাদের doctor Strange ও sinister strange এর darkhold টা পরে নিয়েছিলো, আর third eye টা sinister strange এরও ছিলো যা সে Darkhold পড়েই পেয়েছে বুঝাই যাচ্ছে, যেহেতু sinister strange মারা গিয়েছিলো তাই সেই third eye টা তার নতুন host মানে আমাদের doctor strange যে কিনা darkhold use করে Dream walking Soul control spell টি ব্যবহার করেছে তাই সেও এই darkhold এর possession এ পরে গিয়েছে যার কারনে sinister strange এর মতো third eye সেও পেয়ে গিয়েছে।

৪ঃ- Scarlet Witch আসলেই কি এতোটা পাওয়ারফুল হওয়ার যোগ্য ছিলো? 
উঃ- ভাই কমিকের scarlet witch সম্পর্কে যদি ধারনা থাকতো তাহলে আপনি নিজেই বলতেন scarlet witch রে আরো পাওয়ারফুল দেখানো যেতো। Scarlet witch আসলেই অনেক পাওয়ারফুল, আরে ভাই যার কাছে, CHTHON এর দেওয়া chaos magic,  

একজন mutant এর পাওয়ার এবং high evolutionary এর এক্সপেরিমেন্টার পাওয়ার বিদ্যমান তার পাওয়ার লেভেল কেমন হবে নিজেই চিন্তা করুন, আর মুভিতে সে পাওয়ার পেয়েছে Infinity stones থেকে। Scarlet Witch একজন nexus Being,  এটি এমন একটি ক্যারেক্টর যে কিনা "no more mutant" বলেই ৯০% mutant রে মুছে দিয়েছিলো। হ্যা কথায় বলে না "বাপের উপরেও বাপ থাকে" ঠিক scarlet witch এরো একটা বাপ আছে 😆 এবং সেটা হলো Phoenix Force.  Phoenix Force এর পাওয়ার হলো scarlet witch এর বিপরীত যার কাছে বিশেষ advantage আছে যেমন সে যে কারো powerful character এর পাওয়ারকে absorb করতে পারে। 
এবার আসি আমার কিছু থিউরি নিয়ে 👇🏻 

প্রথমত বলি Earth 838 মানে illuminati এর universe এর ব্যাপারে। 

এই universe টা যে অনেকটা advanced হয়ে গেছে তা বুঝাই যাচ্ছে। এখানে well established Inhumans আছে যা black bolt কে দেখেই বুঝা গেলো, mutants আছে যা prof x রে দেখে বুঝা গেলো, Fantastic Four team ও আছে ইভেন mr fantastic এর ছেলে মানে Franklin Richard ও আছে। Kamar-Taj তো আছেই। এছাড়াও নিশ্চয়ই avengers team এরও অস্তিত্ব আছে কারন captain carter কে first avenger উল্লেক করা হইছে। সো এই universe এর শুধু মাত্র illuminati members রাই মারা গিয়েছে কিন্তু Mutants, Inhumans, Avengers, Rest Fantastic Four team এরা এখনো আছে আর wanda তো আছেই। 

তাই এই universe টিকে ভবিষ্যতে Secret War মুভিতে দেখানো যেতেই পারে।  তবে আমি অপেক্ষা করতেছি আমাদের mcu universe মানে earth 616 ও এই earth 838 এর মতো advanced established হোক মানে mutants আসুক, fantastic four তো আসতেছেই, inhumans দেরও আনা হোক। 😌 can't wait to reach that point 😌 

এবার আসি Scarlet Witch এর স্টোরি কোন দিকে আগাবে 👇🏻 

যেহেতু earth 838 এর wanda এখনো বেচে আছে আর Franklin Richard ও আছে। Franklin Richard বড় হওয়ার পর সে তার বাবার খুনের ব্যাপারে যেনে যাবে এবং রিভেঞ্জ নেওয়ার জন্য সে সেখানের wanda কে মারতে যাবে কিন্তু পরে সেখানের Christine Palmer তাকে সব খুলে বলবে আর এরপর Franklin Richard Multiversal Travel করে আমাদের Wanda কে মারতে আসবে এরপর আমাদের Wanda আর Whitevision মিলে Franklin Richard এর Against এ ফাইট করবে।

  Scarlet Witch এর solo project এটাই হওয়া দরকার, আর এমনটা যদি না হয় তাহলে হয়তো Scarlet Witch এর কমিক অরিজিন prequel type করে দেখানো হতে পারে যেখানে তার মা Natalie Maximoff এর ব্যাপারেও দেখানো হতে পারে আর এতে আমরা আরো একটিবার Quicksilver কে দেখার সুযোগ পাবো। দেখা যাক কি হয়। 

এবার আসি Doctor Strange এর স্টোরি কোন দিকে আগাবে 👇🏻 

post credit scene এ দেখানো হয়েছে একটি mysterious Girl এসে doctor strange কে dark dimension এ নিয়ে গেছে। আর এই mysterious girl আর কেউ নয় বরং Clea Strange.  Clea Strange মুলত umar এর মেয়ে আর umar হচ্ছে dormammu এর বোন এই হিসেবে dormammu Clea এর মামা হয় সম্পর্কে, এছাড়াও কমিকে clea strange doctor strange এর wife ও বটে। Clea strange যখন বুঝতে পারে তার মামা মানে dormammu খারাপ তখন সে Dormammu কে ধোকা দিয়ে দেয় এবং doctor strange এর প্রেমে পড়ে যায় এরপর তারা বিয়েও করে নেয়। আমি clea কে  নিয়ে আলাদা পোস্ট করে দিবো। 

যাই হোক Clea Doctor strange কে বলেছিলো "You caused an incursion and we are going to fix it"  জিনিসটা শুনতে এতোটা সহজ মনে হলেও এতোটাও সহজ না, এখানে incursion কে উল্লেক করা হয়েছে। কি এই incursion! আসলে এই incursion টা মুলত Avenger Secret War comic ইভেন্ট এর একটা অংশ। এই ইভেন্টে একটা earth আরেকটা earth এর সাথে collide করতে থাকে আর এই collide এর ফলে ২টা earth এর মধ্যে একটা বেচে যায় আরেকটা destroy হয়ে যায়। 

Earth 616 কে বাচানোর জন্য illuminati members রা Infinity gauntlet ব্যবহার করেছিলো, আর gauntlet ব্যবহার করে earth 616 কে অন্য earth এর collision থেকে বাচিয়ে তো নেয় কিন্তু সকল Infinity Stones destroy হয়ে যায় শুধুমাত্র time stone ছাড়া, time stone টা কোথায় যেনো গায়েব হয়ে যায়। আর এই collision এর বিষয়টাকেই মুলত incursion বলা হয়ে থাকে।

 যেহেতু doctor strange কে এই incursion টিকে fix করতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে তারমানে এখন একদম বিষয়টা ক্লিয়ার যে Avengers Secret War movie টা develop হচ্ছে। কারন secret war ইভেন্টটা পুরোটাই multiversal concept আর mcu তে multiversal project ইতিমধ্যেই ৩টা দেখে ফেলেছি আমরা Loki, no way home & multiverse of madness.  সো বলাই যায় এটামাত্র শুরু। 

যাই হোক Doctor Strange incursion fix করতে গিয়ে কিভাবে করবে সেটা Doctor Strange 3 দেখলেই বুঝতে পারবো। তবে আমার একটা ধারনা doctor strange incursion এর বিষয়টা দেখার পর সে আন্দাজ করতে পারবে এই বিপদ আমাদের earth 616 এও আসতে পারে আর তাই সে earth এ ফেরত আসবে আর যেহেতু এখন আর avengers team নেই সেহেতু doctor strange ই হয়তো আমাদের earth 616 এর illuminati team বানাবে আর এই টিমের ম্যাম্বার হবে Namor যে কিনা wakanda forever এ debut করবে,  mr fantastic যে কিনা দ্রুত আসতে চলেছে, 

 Black Phanter হয়তো নতুন কোন black Phanter কে introduce করিয়ে দেওয়া হবে wakanda forever এ, black bolt কেও introduce করানো হয়ে যেতে পারে ততদিনে কারন earth 838 এ যেহেতু black bolt আছে আমাদের earth 616 এও থাকার কথা, শুধুমাত্র iron man এর জায়গাটা কে পুরন করবে তাই দেখার বিষয়,

 হয়তো আমাদের captain Marvel বা Thor! Hulk তো She hulk series এ earth ছেড়ে চলে যাবে রুমর শুনতেছি সো মিলে যাচ্ছে সবকিছু, বলে রাখা ভালো কমিকে hulk কে earth থেকে বের এই illuminati ই করে দিয়েছিলো এরপর আমরা planet hulk এবং world war hulk এর মতো কিছু ইভেন্ট পেয়েছিলাম। World War Hulk project ও হয়তো আমরা পেয়ে যেতে পারি যদি illuminati team build up করানো হয় mcu তে। দেখা যাক কি হয়।

বিঃদ্রঃ- শুধুমাত্র কিছু প্রশ্নের উত্তর আর আমার নিজস্ব কিছু থিউরি এর ব্যাপারে শেয়ার করেছি মাত্র, ভুল হতেই পারে। 


ভুল হলে সংশোধন করে দিবেন।



মুভিতে সুপারিয়র Iron Man ক্যারেক্টারে Tom cruise থাকার কথা ছিলো,পরে ইলুমিনাতিদের এই করুন অবস্থা দেখে শুধু টমকে না পুরো ক্যারেক্টারই সরিয়ে পেলছে😑😑

⛔Spoiler alert⛔

যারা মুভি দেখছেন তারা জানেন যে Avenger age of ultron মুভির টনিস্টার্কের যে রোবোগুলা ছিলো ঐগুলার ভ্যারিয়েন্টগুলাই কিন্তু ডক্টরকে ইলুমিনতির কাছে নিয়ে যাচ্ছিলো কিন্তু তাদেরকে বানাইছে কে ? অবশ্যই Superior Iron man!😘😘

মুভিতে ইলুমিনাতির ছয়টা চেয়ার দেখানো হয়, কিন্তু প্রফেসর Charlse xaveir তো হুইলেই বসা থাকে আর সে ছাড়া ইলুমিনাতি পাঁচজন =
1/Mr.Fantastic 2/Captain carter 3/black bolt
4/Captain marvel 5/Baron mordo

আরেকটা ইলুমিনাতি কই?🤔🤔

ঐটা আইরনম্যান ছাড়া অন্য কেউ থাকার কথাও না কারন টমক্রুসের আইরনম্যান তিনটা স্টোনের অধিকারী হওয়ার কথা So তাকে বাদ দিয়ে অন্য কারো ইলুমিনাতির সদস্য হওয়ার চান্সই ছিলোনা 😒

যাইহোক এইটা আমার ব্যাক্তিগত মতামত,আপনার মতামত কি তা জানাবেন ❤❤ সুন্দর ভাষায়🙂 এহ্ আসছে জ্ঞান দিতে, নিজেরে মুভিখুর ভাবে: এই সমস্ত কথা না বলে যুক্তি দিয়ে কথাটা বললে খুশি হবো😴

আর হ্যাঁ সবার জানার কথা নিছের পটোতে দেওয়া মেয়েটা America chavez সে মুভিতে দুই লেসবিয়ানের মেয়ে থাকে,এখন তার জন্ম কিভাবে তা আমি আর তার মা দুইজন ছাড়া কেউ জানেনা😬 না ডিরেক্টর Sam raimi ও জানেনা😑😑

সুতরাং মেয়েটার উপর ক্রাশ খাওয়া নিষেধ😡 Marvel এর একটা ফিমেল একট্রেসকে তোমরা বাদ দাও নাই,সবার উপর ক্রাশ খাওয়া লাগে 👿 এইটার বয়স মাত্র 16 বছর! খুবই কিউট এবং Benedict Cumberbatch এর সাথে পাল্লা দিয়ে অসাধারণ অভিনয় দক্ষতা দেখিয়েছে যা আলাদা করে বলতেই হয় 😘😘

Dr. Strange in the MoM


সদ্য mcu থেকে রিলিজ হওয়া মুভিটি ইতোমধ্যেই বক্স অফিসে ঝড় তুলেছে, সেটা আমরা সবাই জানি। হয়তো নেক্সট রিপোর্টে শুনবো ১ বিলিয়ন ক্রস করে ফেলেছে।
তো যাই হোক মুভিটি নিয়ে ফ্যানদের অনেক এক্সপেকটেশন ছিলো আমিও তার অন্তরভুক্ত। তবে NWH এর মত ফ্যান থিওরিকে সত্য প্রমণ না করে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বলা যায় স্যাম রেইমি অসাধারণ কিছু দিয়েছে। কেউ বলতে পারবেনা বোরিং লেগেছে কিংবা স্কিন প্লে সলো হয়েছে।

স্যাম রেইমিতো যা দেখানোর দেখিয়েছেন তবে ফ্যান হিসেবে আমার এক্সপেকটেশন কি ছিলো সেটাই আজকে প্রেজেন্ট করছি।

আমি ভেবেছিলাম মুভিটির স্টার্টিংয়ে, সিলভি দ্বারা ক্যাংকে হত্যার ফলে ডজন ডজন রিয়েলিটি ক্রিয়েট হয়েছে সেই সীন দেখাবে এবং পরক্ষণেই NWH তে টমের বক-বকানীতে ডক্টর. সাহেবের স্পেল কাস্টিংয়ে কিছু ভুল হয়েছিলো যার ফলে মাল্টিভার্সে ব্রেক ডাউন ঝড় চলছে যার সমস্ত দায় এখন ড. সাহেবের। তাই ড. গিয়েছে ওয়ান্ডার কাছে সাহায্য চাইতে। এবং সেখান থেকে আশার পথেই আমাদের ইলুমিনাতি টীম তাকে গ্রেফতার করে নেয়। তার অপরাধ সে ভুল-বাল কাস্টিং করে মাল্টিভার্সে গ্যাঞ্জাম লাগিয়ে দিয়েছে।

অই দিকে স্ট্রেঞ্জ কাকু কোনো ভাবেই বুঝাতে পারছে না এটা সে ইচ্ছা করে করেনি তাই তাকে একটা সুযোগ দিতে অনুরোধ করে। কিন্তু তারা সেটা মেনে নেয় না। এতে করে স্ট্রেঞ্জের মাথা গরম হয়ে যায় এবং ইলুমিনাতি টীমের উপর হামলা করে বসে। এই দিকে ওয়ান্ডা খবর পায় স্ট্রেঞ্জকে ধরে নিয়ে গেছে তাই সেও স্ট্রেঞ্জকে বাঁচাতে চায় কারণ সে তার দীর্ঘ দিনের বন্ধু।

(তার উপর ওয়ান্ডার কাছে ইচ্ছা করেই সাহায্য চাইতে এসেছিলো)। তাই এখন ওয়ান্ডা এবং স্ট্রেঞ্জ আক্রমণ করে ইলুমিনাতি টিমের উপর। ওয়ান্ডা ডার্ক হোল্ড আয়ত্ত করে নেয়ায় উইচে পরিনত হয়েছে তাই তাকে থামানো যাচ্ছেনা। সে একে একে সবাইকে খেয়ে দিচ্ছে আর যেই প্রফেসর এক্স কে খেয়ে দিতে যাচ্ছিলো অই মূহুর্তে এন্ট্রি নেয় "লোগান" (মাইন্ডব্লোইং এন্ট্রি যাস্ট ভাবুন)। সেই সাথে ওয়ান্ডার পাশ থেকে এন্ট্রি নিলো ডেডপুল মামু (ভাবা যায়?)

এরপর সুপার এক ফাইট হয় এবং সেখান থেকে কোনো মতে প্রফেসরকে নিয়ে পালিয়ে যায় লোগান।

পরক্ষণে সীন চেঞ্জ হয়ে স্ট্রেঞ্জকে দেখানো হচ্ছে এবং সেখানে স্পেল কাস্টিং এর ফলে কোথায় কি হয়েছে সেটা ওয়ান্ডা ডার্কহোল্ডের মাধ্যমে দেখতে পাচ্ছে আর সাডেনলী সিলভিকে দেখতে পায় এবং বুঝে যায় এই মেয়েই কোনো কুকাম করেছে। তখন সে স্ট্রেঞ্জ কে সিলভি সম্পর্কে বলে এবং স্ট্রেঞ্জ সিলভির কার্যকলাপ গুলো ঘাটতে থাকে। এই দিকে সুপেরিয়র আয়রন ম্যানের কাছে খবর যায় স্ট্রেঞ্জ ও ওয়ান্ডা তাদের উপর আক্রমণ করছে।

আর সেটা শুনে আমাদের ইগোধারী আয়রন ম্যান উইচ এগাথাকে এবং তার অন্য মেম্বারদের নিয়ে আক্রমণ করে বসে স্ট্রেঞ্জ ও ওয়ান্ডার উপর আর ওই মূহুর্তে আমাদের ক্যাপ্টেন আমেরিকা ও শুনতে পায় এই খবর তাই সে ডিফেন্ডার স্ট্রেঞ্জ এবং থরের এক ভেরিয়েন্টকে নিয়ে উড়তে উড়তে চলে আসে আয়রন ম্যান ও তার টীমকে থামাতে। সেখানে এক সুপার লেভেলের ফাইট হয়। (মাইইইই গুডনেস)

তারপর ইলুমিনাতি হেডকোয়ারে মিটিং হয় এবং মিটিং শেষে দেখা যায়, আয়রন ম্যান তার টীম ভারি করতে সিনিস্টার স্ট্রেঞ্জের সাহায্য নিতে যায়। প্রথমে সে সাহায্য করতে চায়না কিন্তু পরে সে রাজি হয়ে যায়।

এতে আয়রন ম্যান খুশি হয়ে যায় এবং ঘোষণা দেয়, কাল দুপুরে খেলা হবে।
তখন আমাদের পৃথীবির স্ট্রেঞ্জ, ওং এর সাহায্যে জম্বি স্ট্রেঞ্জের কাছে যায় এবং সেখানে গিয়ে দেখে শাংচি ও হাল্ক বসে বসে গল্প করেছে (বাহ মেঘ না চাইতে বৃষ্টি)।

 এরপর ফাইনাল ফাইট শুরু হয় সেখানে এগাথা উইচ আর স্কারলেট উইচেরও দারুণ ফাইট হয়। এক স্ট্রেঞ্জের সাথে আরেক স্ট্রেঞ্জ + ইলুমিনাতি টিমের সাথে অন্যান্যদের। (বাহ এনাদার সিভিল ওয়ার দেখতে পেলাম)। এরপর পোস্ট ক্রেডিট সীনে দেখানো হয় ক্যাংক কে, যিনি লকির সাথে কিছু একটা নিয়ে কথা বলছে।

আহ এত এত কিছু মনের ভেতর নিয়ে মুভি দেখতে বসে এর ১% ও পেলাম নাহ।

########

মুভিটা পারপেক্ট একটা মুভি হইতো যদি না Marvel ১২-১৫ টা টিভি স্পট না বের করতো। আপনাদের কাছে মুভি খারাপ লাগার প্রধান কারণ ই এইটা। মুভিতে কি হবে না হবে ৭৫% তো মানুষ এই টিভিস্পট দেখেই guess করে নিয়েছিলো।

মুভি ডিরেক্টরিং Dope ছিলো। Fact:- মুভির রান টাইম বেশি রাখাটাও একটা রিস্ক।তাই ই হয়তো স্যাম রাইমি একটু কমিয়ে দিয়েছেন। যাই হোক ব্ল-রে এর সময়ে হয়তো নতুন টুইস্ট আর কোনো গুরুত্বপূর্ণ অংশ দেখবো যেমন হইছিলো Avengers Endgame এ। টনির মৃত্যুর পরে তাকে সবাই শ্রদ্ধা জানানোর সিনটা"

ইলুমিনাতি কে এত্ত সহজভাবে মেরে দেওয়ার লজিক হলো:- ডার্কহোল্ড়।ওয়ান্ড়া এমনেই অনেক পারওয়ারফুল তার উপরে সে ভিন্ন উইনিভার্সের ওয়ান্ড়াকে ব্যবহার করেছে তাও ডার্কহোল্ড় ব্যবহার করে। দেখো ভাই মিরর ডাইমেনসন সম্পর্কে ওয়ান্ড়ার ধারণা ই ছিলো না তবে স্ট্রেন্জ তাকে ওখানে বন্দি করলে ডার্কহোল্ড় ই তাকে সাহায্য করে বের করতে। ডার্কহোল্ড় অবশ্যই ব্যবহারকারীকে তার ডিফেন্সে থাকা বেক্তির Weakness দিয়ে দেয়।

এজন্যই ইলুমিনাতিকে এত্ত ইজিলি বেট করেছে ওয়ান্ড়া। রিড়ের কথা অনুযায়ী ওই ইউনিভার্সে সুজান এবং রিড় এবং রিড় এর ছেলে আছে মানে ফ্রাকলিং রিচার্ড়। ওই ইউভার্সের খেলা এখনো শেষ হয় নাই হয়তো ।

প্রোপেসর X কে মারতে পারার কারণ হলো ওইখানে ২ টা ওয়ান্ড়া ছিলো। একটা সে ইউনিভার্সের ওয়ান্ড়া যার শরীর Takeover করে দিয়েছিলো। প্রোপেসর.X মূলত তাকে হুশে আনার চেষ্টা করেছিলো যাতে সে তার নিজ শরীরে আসতে পারে । তবে পিছনে থাকা Earth 616 এর ডার্কহোল্ড় ব্যবহার করা ওয়ান্ড়ার Soul এসে তাকে মেরে দেয়।

ডার্কহোল্ড়ের মাধ্যমে ব্লাকবোল্টের মুখ বন্ধ করে দেয়। কিন্তু ব্লকবোল্ট মুখে কথা বলা শুরু করে ফলে ওর কথা ওর মুখের মধ্যে রয়ে যায় আর ও মারা যায়।

ওখানের ক্যাপ্টেন কার্টারকে মারা ওয়ান্ড়ার জন্যে মোটেও কঠিন কিছু ছিরো না।
তবে ক্যাপ্টেন মারভেল এবং রিড়ের এত্ত লেইম মৃত্যু পুরাই বেকার লেগেছে।

last Battle এ Dr strange আর ওয়ান্ড়া ২জনই ডার্কহোল্ড় ব্যবহার করেছিলো তবুও Strange তার সাথে টাক্কা না দেওয়ার কারণ হলো:- " ডার্কহোল্ড় যেই ব্যবহার করুক না কেন? ওইটার মেইন হোস্ট হচ্ছে ওয়ান্ড়া। জিন গ্রে এর জন্মানো যেমন Phoneix এর জন্য, জিন ই যেমন পনিক্সের সেরা হোস্ট তেমনি ওয়ান্ড়ার জন্ম ও ডার্কহোল্ড় উইজ করার জন্য হইছিলো। কমিকে এটাই আছে আর মুভিতেই ওটার রেফারেন্স দেওয়া হইসে।

মারভেলের প্রধান ভুল ই ছিলো মুভিটা নিয়ে এত্ত টিভিস্পট বের করা। like:-
জম্ভি স্ট্রেন্জকে দেখানো।দেখো ভাই, একটা মুভি দেখার আগে মানুষ স্পয়লার থেকে দূরে দূরে থাকতে চায়। আর তোমরা টিবি স্পট ব্যবহার করে ১৪-১৫ টা সিন দেখিয়ে দিয়েছো মানুষদের আগেই তো মুভি দেখতে গিয়ে মানুষ Experience টা করবে কি? স্পাইড়ারম্যানে ওরা বাকি ২ টা স্পাইড়ারম্যানকে Hide করা রাখাটা সত্যই এখন মেক সেন্স করতেছে

ডিফেন্ড়ার স্ট্রেন্জ মারা যাওয়ার পরেই আমরা বুজে গেছিলাম যে এরপরে এটা দিয়ে কি হবে? যদি এইটা না দেখানো হতো তবে নিঃসন্দেহে Dr strange এর Dreamwalk এ ডিফেন্ড়ার স্ট্রেন্জকে ব্যবহার করার মুহূর্ত টা WOW মোমেন্ট হইতো। ইলুমিনাতিকেও দিখিয়ে দিলো। দিলো তো দিলো আবার এত্ত দূর্বল করে দিলো! স্ট্রেন্জকে আরেকটু পারওয়ারফুল করে দেখানো দরকার ছিলো। অবশ্য যার সোলো মুভি তাকে সবসময় ই দূর্বল রাখা দরকার নয়তো সেই মুভি Captain Marvel হয়ে যাবে।

সিনেস্টার স্ট্রেন্জের ইউনিভার্সে ম্যাজিক মনেহয় মিউজিক স্টাইলে কাজ করে। সব ম্যাজিক মিউজিক স্টাইলেই হইতেছিলো। আর ওই ওই ইউনিভার্সের স্ট্রেন্জ উপর থেকে পড়ে মারা যাওয়ার কারণ হলো তার কাছে Cloak of Levitation নেই। হয়তো সে ওটা পায় ই নাই নয়তো সে ওটা পেলেও যখন সে ইভিল হয়ে যায় তখন Cloak of Levitation তাকে ছেড়ে দেয়। নয়তো ডার্কহোল্ড় ব্যবহার কারার কারণে Cloak of Levitation ছেড়ে দেয় তাকে। কারণ ইভিল স্ট্রেন্জের কাছে ইভিল Cloak of Levitation থাকে সবসময়।

★★★
যদি কোনোমতে সে সিনেস্টার স্ট্রেন্জ তার ভুল স্বীকার করে ওয়ান্ড়াকে বেট করতে যেত। আর ফাইনাল ব্যাটালে গিয়ে ওয়ান্ড়া আর ওখানে থাকা ডিমনসদের সাথে লড়াই করতে করতে মরতো তবে হয়তো একটু বেটার হইতো আমার যা মনেহয় এমনিতেই ওখানে থাকা ডিমনসদের সাথেও জস্টিস হয় নাই। ডার্কহোল্ড় পাহারা দেওয়া ডিম্যন্সরা পাহাড় থেকে পড়ে মরে গেছে। কেমন জানি লাগে না? 🤐

সব মিলিয়ে মুভিতে সবার পারপমেন্স dope ছিলো। একটু বেটার রাইটিং আর এত্ত টিভিস্পট না দিলে মুভিটা নিঃসন্দেহে এই বছরের সেরা সুপারহিরো মুভিগুলোর মধ্যর টাক্কা দিতো।
Disclosure: This post May contains affiliate links that support our Blog. When you purchase something after clicking an affiliate link, we may receive a commission. Also Note That We Are Not Responsible For Any Third-party Websites Link Contents
MD: Ashikur Rahman

আমি একজন মুভি ও সিরিজ লাভার। সুপারহিরো জেনরে আমি মার্ভেল ও ডিসি সকলের তৈরী সিনেমাই পছন্দ করি দেখতে। আমার ব্লগ সাইটঃ www.Tvhex.Com চাইলে আমাকে ফেসবুক ও টুইটারে ফলো করতে পারেন। facebook twitter

3 Comments

আপনাদের কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।



if you have something to say, “Please Comment your Opinion ” Thank You.

  1. ড. স্ট্রেঞ্জ: মাল্টিভার্স অফ ম্যাডনেস মুভিটা দর্শক দেখার পর কই যেন একটা অভিযোগ দেখলাম- 'মারভেলের এখন এত কন্টেন্ট যে সব না দেখা থাকলে মুভি এঞ্জয় করা মুশকিল।'
    অনেকাংশে সত্যি কথা। ডিজনিপ্লাস লঞ্চ হবার পর থেকে সিরিজগুলো নিয়মিত না দেখলে অনেকটাই ট্র্যাকের বাইরে নিজেকে আবিষ্কার করতে পারে সাধারণ দর্শক। তবে আমার মনে হয় না সেটা নিয়ে মারভেল খুব বেশি উদ্বিগ্ন। বক্সঅফিসে তুমুল সাফল্য তারই ইঙ্গিত দেয়। সাধারণ দর্শক হুজুগের ঠেলায় মারভেল কন্টেন্ট দেখতে যায় ঠিকই কিন্তু মারভেল ফ্যানদের মতো পূর্ণ মজাটা পায় না। কারণ তারা টার্গেট অডিয়েন্স না। টার্গেট অডিয়েন্স মারভেল গত ২০০৮ সাল থেকে তৈরি করে ফেলেছে এবং ধীরে ধীরে সেই অডিয়েন্সের পরিধি বেড়েই চলেছে।

    মাল্টিভার্স অফ ম্যাডনেস-ও আসলে সাধারণ দর্শকদের তৃপ্তি দিতে পারবে না। কারণ মুভির একদম শুরু থেকেই রোলার কোস্টারের গতিতে চলেছে কাহিনী। কোনো ফাউন্ডেশনের ওপর ধীরে ধীরে তৈরি হয়নি গল্প। এবং সেই কাহিনীর সূত্র এসেছে ওয়ান্ডাভিশন থেকে। শো-টা দেখা না থাকলে পাশের জনকে জিজ্ঞেস করা ছাড়া উপায় নেই। এটা আমি একদিক গিয়ে ইতিবাচকই মনে করি। কারণ আমরা যারা একনিষ্ঠ ফলোয়ার তারা একটা বিরাট মাপের স্টোরিলাইন পাচ্ছি যা ধীরে ধীরে তৈরি করা হয়েছে, একটা চরিত্রের সাথে অন্যদের গল্প মেলানো হচ্ছে। সামগ্রিক একটা ইউনিভার্স বলতে যা বোঝায় ঠিক তাই ডেলিভার করছে মারভেল। এখন নিয়মিত খোঁজ-খবর না রাখলে দলছুট হয়ে যেতে হবে। হয়ে গেলেও সমস্যা দেখি না। উপভোগ করার জন্য আরও অনেক মুভি আছে। এরকমটা হবার ফলে ভবিষ্যতে অনেকেই মারভেলের সিনেমা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেও একটা বিশাল ফ্যানবেজ ঠিকই টিকে থাকবে। এখানেই মারভেলের তারিফ করতে হয়।

    রেটিং কম হবার আরেকটা কারণ হলো চিরচেনা মারভেল ফর্মুলা অনুসরণ না করা- ব্যাকগ্রাউন্ড স্টোরি সমেত হিরোর উত্থান ঘটবে, মাঝারি গোছের ভিলেন আসবে, অ্যাকশন থাকবে, মাঝেসাঝে হালকা রসিকতা এবং দিনশেষে বড়সড় একটা ফাইনাল বিটডাউনের হ্যাপি আউটকাম। ব্যস। স্রেফ যাত্রাটা উপভোগ্য ভিএফএক্স, ক্যারেক্টার আর ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিকের বদৌলতে। মাঝখানের টেনশনটা কোন ডিরেক্টর কীভাবে তৈরি করছেন সেটাই আলাদা ব্যাপার। সবার আগে রুশো ব্রাদার্স টিপিক্যাল এমসিইউ মুভির মধ্যে নিয়ে এসেছিলেন বেশ খানিকটা পরিবর্তন। উইন্টার সোলজারকে সুপারহিরো জনরা থেকে নিয়ে এসেছিলেন পলিটিক্যাল থ্রিলারে। এরপর ইনফিনিটি সাগার পরিসমাপ্তির প্রথম খণ্ডে আমরা এই প্রথম হিরোদের হারতে দেখেছিলাম যা বেশ ভাল রকমের একটা ধাক্কা দিয়েছিল দর্শকদের।

    আর এখন স্যাম রাইমি প্রবেশ করেছেন এমসিইউ-তে নিজের ইউনিক সব সিগনেচার টোন নিয়ে।
    এই সিগনেচার টোন বলতে কী বোঝায়?
    ইভিল ডেড সিরিজ, দ্য গ্রাজ, ডোন্ট ব্রীদ, আর্মি অফ ডার্কনেস, ডার্কম্যানসহ বেশ কিছু নামকরা সিনেমা ও টিভি সিরিজের ডিরেক্টর-প্রডিউসার হিসেবে কাজ করছেন। অবশ্য স্যাম রাইমিকে সুপারহিরো লাভাররা চেনেই স্পাইডার-ম্যান ট্রিলজির জন্য। হরর ও সুপারহিরো জনরার একজন বিশেষজ্ঞ বললেও অত্যুক্তি করা হবে না তাকে। (বাই দ্য ওয়ে, বিটিভিতে দেখা সেই ছোটবেলার হারকিউলিস সিরিজের ১১১টা এপিসোডের এক্সিকিউটিভ প্রডিউসারও ছিলেন কিন্তু!)

    ReplyDelete


  2. পিজি-১৩ রেটিং এর বিধিনিষেধে থেকেও মাল্টিভার্স অফ ম্যাডনেসে স্পেলের অভিনব ব্যবহারের পাশাপাশি তৈরি করেছেন ব্রুটাল অ্যাকশন সীন, মারদাঙ্গা হ্যান্ড-টু-হ্যান্ড কমব্যাট। আর-রেটেড ব্লাড অ্যান্ড গোর না থাকলেও ভয়াল কিছু দৃশ্য ঠিকই তৈরি করেছেন দর্শককে চমকে দেবার জন্য, রক্তারক্তির দৃশ্যও মারভেলের যেকোনো সিনেমা থেকে বেশি। যেমনটা ছিলো ২০০২ সালের স্পাইডার-ম্যান বনাম গ্রিন গবলিনের ওয়ান-অন-ওয়ান ফাইটে। মুখের ওপর পাম্পকিন বোমা বিস্ফোরিত হয়েছে, গবলিনের হাতে আড়ং ধোলাই খেয়ে রক্তাক্ত হয়েছে পিটার পার্কার- এরকম ভায়োলেন্ট ফাইট পরে আর কোনো স্পাইডি মুভিতে দেখা হয়নি। এরপর আসি হরর অ্যাটমোস্ফিয়ার তৈরি নিয়ে। বেশ কিছু দৃশ্যে ভুলেই গিয়েছিলাম যে এটা এমসিইউ’র কোনো মুভি। মনে হচ্ছিলো ইভিল ডেডের কোনো দৃশ্য দেখছি। হরর মিউজিকের নিখুঁত ব্যবহার গুজবাম্পের সাথে সাথে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিচ্ছিল সমগ্র সত্ত্বায়। ড্যানি এলফম্যান আউটডিড হিমসেলফ!
    ড. স্ট্রেঞ্জের মতো সরসেরারকেও যখন জীবন-মরণের প্রশ্নে যুঝতে দেখি, পরাজয়ের সম্মুখীন হতে দেখি- তখন মনে পড়ে যে না, এরাও আমাদের মতোই ভালমন্দে মেশানো মানুষ। তারাও হারতে পারে, ভুল সিদ্ধান্ত নিতে পারে, ক্ষমতার অপব্যবহার করতে পারে, আবেগের রাশ টেনে ধরতে গিয়ে ছিঁড়ে ফেলতে পারে, স্বার্থপরের মতো নিজের চাওয়া-পাওয়াকে বড় করে দেখতে পারে। এই অনুভূতিটা অন্য কোনো মারভেল সিনেমা দিতে পারেনি বলেই মাল্টিভার্স অফ ম্যাডনেসকে আমি সম্পূর্ণ আলাদা পাল্লায় মাপতে আগ্রহী।
    **স্পয়লার অ্যালার্ট**
    -
    -
    এবার প্রথমে আসি স্ট্রেঞ্জের মুভিতে স্ট্রেঞ্জেরই ভূমিকা নিয়ে- অনেকেই বলেছেন যে ওয়ান্ডাকে বেশি ফোকাস দেয়া হয়েছে। কথা অনেকাংশেই সত্য। তবে যারা দেখেছেন তারা ভালমতো আমার কথা ধরতে পারবেন। সেটা কীরকম?
    সিভিল ওয়ারে যেমন ক্যাপ্টেনের আদর্শের সাথে টনি স্টার্কের আদর্শের দলগত সংঘর্ষ নিয়ে গল্প দেখতে গিয়ে ভুলে গিয়েছিলাম যে এটা ক্যাপ্টেন আমেরিকার সলো ট্রিলজির তৃতীয় কিস্তি। যেখানে নিজের মুভিতে ক্যাপ নিজেই অনেকের মধ্যে একজন হয়ে গেছে। কিন্তু তার ফলে মুভি উপভোগ করতে সমস্যা হয়নি। মাল্টিভার্স অফ ম্যাডনেসেও তাই- মুভিতে ওয়ান্ডাকে ফোকাস দেয়া হলেও মনোযোগী দর্শক ঠিকই বুঝতে পারবে যে এই গল্পটা শুধু ওয়ান্ডার-ই না, স্টিফেন স্ট্রেঞ্জের নিজেরও বটে। বিশেষ করে কামাতাজে যাবার পরের অংশে। নিজের গোঁয়ার স্বভাবের জন্য গোটা ইউনিভার্সকে মাশুল চুকাতে হতে পারে- এমনটা দেখার দরকার ছিলো স্ট্রেঞ্জের। ইগো আর কর্তব্য বোধকে পাশে রেখে সঠিক কাজ করার তাড়না এবারই প্রথম দেখছি বড় মাপে। ক্রিস্টিনের সাথে লুজ এন্ড বেঁধে ফেলাটাও ভালো লেগেছে।
    দ্বিতীয় কথা হচ্ছে- ‘মাল্টিভার্স’ ট্যাগ থাকা সত্ত্বেও মাল্টিভার্স এক্সপ্লোর করা হয়নি তেমন- এহেন কথাও চোখে পড়েছে। তবে এর কারণ বুঝলাম না। কারণ যেখানে গল্পই হচ্ছে মাল্টিভার্স ট্রাভেল করা নিয়ে, মাল্টিভার্স বাঁচানো নিয়ে সেখানে এই অভিযোগ আমার মতে ভিত্তিহীন। আর ‘ম্যাডনেস’ শব্দটা যে কতখানি স্বার্থক তা সিনেমা দেখলেই বুঝে যাবেন। সেদিকে আর না যাই।

    বেনেডিক্ট কাম্বারব্যাচ কোন মাপের অভিনেতা সেটা নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই। কিন্তু তার সাথে পাল্লা দিয়ে অভিনয় করেছেন এলিজাবেথ ওলসেন। বেশকিছু দৃশ্যে স্রেফ থ হয়ে বসে ছিলাম। ওয়ান্ডাভিশনেও মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন চরিত্রে অভিনয় করলেও এবার সেটাকে নিয়ে গেছেন অন্য এক উচ্চতায়।

    এবার একটু নেতিবাচক দিক নিয়ে বলি- রিশুটের ফলে বেশ কিছু দৃশ্য (৪০ মিনিট ‘দৃশ্য’ বলা যায় না, প্রায় আধা মুভিই) কাটা পড়েছে, যার ফলে কাহিনীর মোড় সম্ভবত পরিবর্তিত হয়েছে। না হয়ে উপায় নেই, ওই ৪০ মিনিটে গল্প অন্য দিক দিয়েই প্রবাহিত হতো। ইলুমিনাটির বেশ কিছু দৃশ্য সম্ভবত কাটা পড়েছে। সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো- গল্পে তাদের কোনো দরকারই ছিলো না বলতে গেলে। না থাকলেও স্টোরির ফ্লো-তে সমস্যা হতো না, সামান্য টুইকিং করে নিলেই ঝামেলা শেষ। আর এতগুলো স্মার্ট-পাওয়ারফুল হিরোদের এত কম স্ক্রিনটাইম দিয়ে নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজির পথ সুগম করার (কু)বুদ্ধিটা স্টোরির মানকে প্রশ্নবিদ্ধ করে করেছে। হোয়াট ইফের সুপ্রিম স্ট্রেঞ্জের ক্ষমতার ঝলক দেখালেও তাতে কোনো প্রভাব ছিলো না কাহিনীর। মুভির ওভারঅল রানটাইম বেশ কম, কমিক রিলিফগুলো জঘন্য ছিলো। কিছু অ্যাকশন দৃশ্যের ওপর কেঁচি চালানো হয়েছে বোঝা যায়। দুটো পোস্ট ক্রেডিট সীনের ব্যাপ্তি একেবারেই কম।
    ফাইনাল ভারডিক্ট
    গতানুগতিক মারভেল মুভির আশা নিয়ে দেখতে গেলে হতাশ হবেন। ভিন্ন কিছু দেখার মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে গেলে পুরোদমে উপভোগ্য একটা সিনেম্যাটিক এক্সপেরিয়েন্স পাবেন।
    বাই দ্য ওয়ে, হলে দেখলে থ্রিডিতে দেখুন, টুডি-তে ভিএফএক্সের কারিশমাগুলো চোখের সামনে দেখতে পাবেন না।

    পার্সোনাল রেটিংঃ ৮.৫/১০

    ReplyDelete
  3. DOCTOR STRANGE IN THE MULTIVERSE OF MADNESS এর ২য় উইকেন্ড বক্স অফিস রিপোর্ট :-

    🔹 ডমেস্টিক গ্রোস - $291.86 Million
    🔸 ওয়ার্ল্ডওয়াইড গ্রোস - $688.1 Million

    🔰 HIT 🔰

    আগামী সপ্তাহে Batman কে অতিক্রম করে এই বছরের এখনো পর্যন্ত হায়েস্ট গ্রোসিং ফিল্ম হয়ে যাবে।

    ডমেস্টিক মার্কেটে ৩ কোটির বেশি ফুটফলস তুলে নিয়েছে এবং এই বছরের ৩য় ফিল্ম হিসেবে $600 Million+ গ্রোস অতিক্রম করলো।

    ReplyDelete
Previous Post Next Post