A Quiet Place Movie Review

Disclosure: This content is reader-supported, which means that if you click on some of our links. then we may earn a commission.

অবশেষে গতকালকে দেখে ফেললাম আমার এই বছরের বহুল প্রতিক্ষীত মুভি, A Quiet Place: Part 2। এই মুভির প্রথম কিস্তিটি আমার দেখা সবথেকে ইন্টারেস্টিং ও ক্রিয়েটিভ Sci-Fi Horror মুভি যে কারনে দ্বিতীয় কিস্তির অপেক্ষায় এতদিন বসে ছিলাম। 

তবে মনে একটা আশংকা ছিল যে সাধারণত প্রথম মুভিটি এক্সিলেন্ট হলে দ্বিতীয়টি কখনোই তেমন ভালো হয়না বা অনেক ক্ষেত্রেই নিরাশ করে। কিন্তু A Quiet Place Part II তার প্রিডেসেসরের মান রেখেছে। আমার কাছে অন্তত মনে হয়েছে যে এই মুভিটি একটি যোগ্য সিকুয়েল যা আগের মুভির মতোই টান টান উত্তেজনায় ভরপুর। 

A Quiet Place Part II-তে আমরা এমন অনেক প্রশ্নের উত্তর পাই যেগুলো আগের কিস্তিতে অজানা রয়ে গিয়েছিল। কিন্তু এই মুভির পর এখনো অনেক কিছুই দর্শকদের অজানা। হয়তো সেগুলো নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনা রয়েছে পরিচালক John Krasinski-এর। 

তবে অজানা অংশ গুলো কাহিনী বা মুভি উপভোগ করতে বাঁধা দেয় না। John Krasinski-র লেখা ও পরিচালনা দেখে সহজেই বোঝা যায় যে তিনি এই ধরনের মুভির প্রতি খুবই প্যাশনেট। যেভাবে কাহিনীটি সাজানো হয়েছে ও সেই সাথে প্রতিটি প্লটে যে পরিমাণ গুরুত্ব দিয়ে উপস্থাপন করা হয়েছে তা প্রশংসনীয় ও প্লট হোলস খুঁজে পাওয়া যে কারনে কঠিন হয়ে পড়ে। 

মুভিটি শুরু হয় ট্রেলারে যেমন দেখানো হয়েছে যে যেদিন ডেথ অ্যাঞ্জেল গুলো প্রথম অ্যাটাক করে সেই দৃশ্য দিয়েই। তবে এই দৃশ্যটি খুবই ছোট এবং এক ঝলক ব্যাক স্টোরি দেখানোর জন্যই রাখা হয়েছে। 

ছোট দৃশ্য হলেও দর্শকদের সাথে একটা সেন্স অফ কানেকশন ও ইমোশন তৈরি করেছে ও সেই সাথে একটা টেনশনের পরিবেশ বিল্ড আপ করতে সাহায্য করেছে। তার পাশাপাশি পরিচয় করিয়েছে Abott পরিবারের ফ্যামিলি ফ্রেন্ড Emmett-এর সাথে।

A Quiet Place Part II (2021) 
#No_Spoiler_Review 
IMDB: 7.8
Personal: 9.5
Genre: Sci-Fi, Horror, Thriller, Drama 


তবে মুভির মূল কাহিনী শুরু হয় একেবারে প্রথম মুভিটি যেই দৃশ্যে কাট টু ব্ল্যাক হয়েছিল সেখানেই। এবং তারপর শুরু আবারো সেই চেনা সাইলেন্ট ও লোমহর্ষক সারভাইবাল স্টোরি। 

আমার কাছে A Quiet Place মুভিটির যেই বিষয়টি সবচেয়ে ভিন্ন মনে হয় তা হলো মুভিটি একটি Sci-Fi Horror হলেও কাহিনীর মেইন ফোকাস চরিত্র গুলো। ডেথ অ্যাঞ্জেল গুলো শুধুমাত্রই থ্রেট হিসেবে মুভিতে রয়েছে এবং কখনোই তারা চরিত্র গুলো থেকে লাইম লাইট নিয়ে নেয় না। 

এই মুভিতেও এই বিষয়টি মেইনটেইন করা হয়েছে। যদিও এইবার একই সাথে দুটি আলাদা জার্নি দেখানো হয়েছে তবুও একটা ফ্যামিলি সেন্স আপনি সহজেই অনুভব করতে পারবেন। দুটো ভিন্ন দৃশ্যকে একসাথে করে একই লেভেলের টেনশন সৃষ্টি করে এমন ভাবে দেখানো হয়েছে যে কখনোই তা এলোমেলো মনে হয়নি। 

আরো একটি বিষয় বিশেষ করে উল্লেখযোগ্য তা হলো এই মুভির সাউন্ড ইফেক্টস। সিরিয়াসলি এতো অসাধারণ সাউন্ড ট্রিক্স ব্যবহার করা হয়েছে যা একটি দৃশ্যকে আরো উত্তেজনায় ভরে দেয়। তাছাড়া আগের মুভির মতো করেই ডেফ মেয়েটার জীবন বুঝাতে কিছু দৃশ্যে সাউন্ড কমপ্লিটলি অফ করে দেয়া হয়েছে যা আবারো খুবই চমৎকার। 

এই মুভির সাউন্ড ও স্টোরি এতটা ইমপ্যাক্টফুল যে বেশিরভাগ দৃশ্যেই আমি নিজেকে আবিষ্কার করছিলাম মুখ চেপে ধরে রাখতে যেন আওয়াজ না হয়। তবে কয়েকটি দৃশ্যে নিজেকে আটকিয়ে না রাখতে পেরে জোরে চিৎকার করে উঠেছি। খুবই খুবই নার্ভ রেকিং পুরো মুভিটা।

 আগের মুভির মতো এবারো হঠাৎ করেই কাট টু ব্ল্যাক ইউজ করে মুভিটি শেষ হয়েছে যা অনেকের কাছে ভালো না লাগতে পারে বা একটু ইনকমপ্লিট অনুভূতি হতে পারে। তবে আমার মনে হয়েছে যে Krasinski ইচ্ছা করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কারন এই মুভিটি শেষ অধ্যায় না। 

অভিনয় নিয়ে আলাদা করে কিছুই বলার নেই। প্রতিটি কাস্ট মেম্বার পারফেক্ট। Emily Blunt আগের মুভিতে যেমন স্ক্রিনটাইম পেয়েছেন এবার তেমন পাননি। এই একটি বিষয়ই আমার ভালো লাগেনি। আমার তাকে খুবই ভালো লাগে এবং তার অভিনয় এই চরিত্রে এ-প্লাস তাই আরো কিছু দৃশ্য তার সাথে দেখালে ভালো হতো। 

তার দুই সন্তানের চরিত্রে থাকা Millicent Simmonds ও Noah Jupe কম বয়সী অভিনেতা হিসেবে অসাধারণ। বিশেষ করে Millicent হলেন এই মুভির সাইনিং স্টার। তার কারনেই আমরা এই মুভিতে সবচেয়ে চমৎকার দৃশ্য গুলো পাই। তাদের সাথে যোগ হয়েছেন Emmett চরিত্রে Cillian Murphy।

 তার স্ক্রিন টাইম অনেক বেশি এবং তিনিও সব সময়ের মতোই পারফেক্ট অভিনয় করেছেন। তার সাথে Millicent-এর কেমিস্ট্রি খুবই চমৎকার লেগেছে আমার কাছে। 

সব মিলিয়ে পুরো পরিবারের সাথে এই মুভিটি দেখার রিকমেন্ডেশন রইল। আমার কাছে খুবই দারুন লেগেছে ও আমার এক্সপেক্টেশনের উপর লিভ আপ করেছে মুভিটি। মুভিটি আগের মুভির প্লাস পয়েন্ট বা ইউনিকনেস গুলো আবারো ইউজ করেছে।

 তবে এমন ভাবে যে তা কখনোই রিপিটেটিভ মনে হয় না উল্টা দ্বিতীয় মুভিটি আরো কোয়ালিটিফুল করে তুলেছে। যারা প্রথম মুভিটি উপভোগ করেছেন তারা এই মুভিটি মিস দিবেন না। আশা করছি আপনাদের ভালো লাগবে। চাইলে দুটো পার্ট একসাথে বিঞ্জ ওয়াচ করতে পারবেন সহজেই।
Disclosure: This post May contains affiliate links that support our Blog. When you purchase something after clicking an affiliate link, we may receive a commission. Also Note That We Are Not Responsible For Any Third-party Websites Link Contents
MD: Ashikur Rahman

আমি একজন মুভি ও সিরিজ লাভার। সুপারহিরো জেনরে আমি মার্ভেল ও ডিসি সকলের তৈরী সিনেমাই পছন্দ করি দেখতে। আমার ব্লগ সাইটঃ www.Tvhex.Com চাইলে আমাকে ফেসবুক ও টুইটারে ফলো করতে পারেন। facebook twitter

Post a Comment

আপনাদের কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।



if you have something to say, “Please Comment your Opinion ” Thank You.

Previous Post Next Post