টাইটান্স নাইটউইং ফাইনাল এপিসোড রিভিউ

Disclosure: This content is reader-supported, which means that if you click on some of our links. then we may earn a commission.

Titans Season 2 Final Episode “Nightwing” Bangla Review

গত ৩০শে নভেম্বর প্রচারিত হল ডিসি স্ট্রিমিং সার্ভিসের বহুল আলোচিত কিংবা সমালোচিত জনপ্রিয় ওয়েব সিরিজ টাইটান্স এর দ্বিতীয় সিজনের ১৩ তম এবং ফাইনাল এপিসোড । যার নাম Nightwing । অন্যদিকে টাইটান্স এর স্পিনঅফ সিরিজ ডুম প্যাট্রোল এর দ্বিতীয় সিজনের প্রচারের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে । যেটি কিনা ২০২০ সালের মাঝামাঝি প্রচারিত হতে পারে ।
DC-Universe-Titans-season-2-episode-13-nightwing-bangla-review-poster
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros )

এই এপিসোডটিকে এই সিরিজের কলংক বলা চলে । কেন? তাহলে নিচে আমাদের টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ১৩ রিভিউ পড়ে নিন ।
তাহলেই বুঝতে পারবেন কিভাবে একটি ভালো সিরিজকে বাশ দেওয়া যায় । Titans Season 2 Episode 13 বা Final এপিসোড এর নাম রাখা হয়েছে নাইটউইয়িং। কিছু সোর্সের মতে এই Nightwing কে আনার কথা ছিল সিজন ১ এর ফাইনালে ।
কিন্তু সেটা না করে সিজন ২ এর ফাইনালে নিয়ে আসে । যার ফলে সিজন ২ এর গল্পে খুব বাজে ভাবেই ইম্পাক্ট করেছে সেটা দেখলেই বুঝতে পারবেন ।

টাইটান্স সিজন ২ ফাইনাল এপিসোড রিভিউ

🚫 ∑‡ স্পইলার এলার্ট †⁺ 🚫

Titans Season 2 Final Episode Review

টাইটান্স সিজন ২ এর এপিসোড ১৩ এর নাম ছিল Nightwing ।
এর ব্যাপ্তিকাল ছিল ৪৯ মিনিট । প্রচারিত হয়েছিল ৭ ডিসেম্বর এ, ডিসি কমিক্সের নিজস্ব অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিসে যার নাম " DC Universe " ।
এপিসোড শুরু হয় ক্যাডমাস ল্যাবে । যেখানে কনরকে বিক্রির উদ্দেশ্যে একটি অকশনের ব্যাবস্থা করা হয় । তখন ওয়াল্টার নামক ( যাকে প্রথম দেখা গিয়েছিল ) ওই ক্যাডমাস ল্যাবের কর্মীকে গুলি করে হত্যা করে কনর । ক্যাডমাস ল্যাবের হেড গার্ড মার্সি এর নির্দেশে । এর পরে সে বলে “Good Boy, Welcome to Phase 2” ।
এর পরে দেখা যায় গারর কে । সে একটি মেলায় ঘুরে আইসক্রিম খাচ্ছিল ঠিক সেই মুহুর্তে তাকে নিয়ন্ত্রণ করার ওই মিউজিক বেজে উঠে । যেটা আমরা গত ১০ নাম্বার এপিসোডে দেখেছি । এর ফলে তার হাতের আইসক্রিম পড়ে যায় এবং সে বাঘের গর্জন করে তার মুখ সবুজ হয়ে যায় । এর পরে টাইটান্সের লগো ভেসে উঠে ।
র‍্যাচেল, ডোনা, কোরি আর ডওন কে দেখা যায় টাইটান্স টাওয়ারে । ওরা ডিকের সেলে লিখে যাওয়া মেসেজ, “Jericho is Alive” মেসেজ সম্পর্কে আলোচনা শুরু করে । সেখানে ওরা ডিকের বিষয়ে পরে সিদ্ধান্ত নিবে বলে যানায় এবং গারর কে উদ্ধার করার জন্য ক্যাডমাস ল্যাবে আক্রমণ করবে বলে সিদ্ধান্ত নেয় । তখন র‍্যাচেল বলে, আমরা মাত্র চার জনে ক্যাডমাস ল্যাবে আক্রমণ করে গারর এবং কনরকে উদ্ধার করব ? না জানি গার কেমন আছে, আর কনরেরি বা কি অবস্থা এখন ।
তখন ডোনা বলে সমস্যা নেই তোমার আর কোরির সুপারহিরো ক্ষমতা আছে । আমরা দুজনে হয়ত গেট পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারব । তখন কোরি বলে তোমরা হয়ত আমার খারাপ খবর শুনোনি, তাহলে বলছি আমার ক্ষমতা গায়েব হয়ে গেছে। আমি নিজের সুপারহিরো ক্ষমতা ব্যাবহার করতে পারছি না আর ক্ষমতা ফিরেও আসছে না । ডোনা বলে ওয়াও 😟 । তখন সে র‍্যাচেল কে বলে তোমার কি খবর? র‍্যাচেল বলে পুরোপুরিভাবে তৈরি আমি । যদি নিজের উপর নিয়ন্ত্রণ না হারিয়ে ফেললেই হলো । তখনি তাদের কম্পিউটারের স্কিনে ইমার্জেন্সি নোটিফিকেশন আসে । যেখানে বলা হয় পাশের পার্কের মেলায় এক জন্তু আক্রমণ করেছে । তখন ওরা বলে এটা নিশ্চয় গারর । ওরা তৈরি হয় সেখানে যাওয়ার জন্য ।
গাড়িতে করে ওরা চারজন যখন যাচ্ছিল তখন ডোনা বলে, আমরা যার সম্মুখীন হই না কেন সেটা ভালোভাবে শেষ হবে না। এইবার আমরা আমাদের বন্ধুদের সাথে লড়াইয়ে যাচ্ছি । র‍্যাচেল বলে গারের সাথে ল্যাবের লোকেরা যাই করুক না কেন! আমি ওকে আঘাত করব না । ডোনা বলে যদি ওরা নিরপরাধ ব্যাক্তিদের আঘাত করে থাকে তাহলে আমাদের তৈরি থাকতেই হবে । ঠিক তখনি ওদের গাড়ির সামনে গ্রেনেড দিয়ে আঘাত করে ডেথস্ট্রোক। এতে করে ওদের গাড়ি আঘাতপ্রাপ্ত হয় এবং সামনের কাচ ভেংগে যায়। আর তখনি ওদের সামনে ডেথস্ট্রোক এসে দাঁড়ায় ।
DC-Universe-Titans-season-2-episode-13-nightwing-review-poster-image-reviewhax.blogspot.com
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros )
ওরা নিচু হওয়ার আগেই, ওদের দিকে গুলি করতে থাকে ডেথস্ট্রোক । তখন কোরি গাড়ি থেকে নামে এবং নেমে কিছু করার আগেই ও ডেথস্ট্রোক এর গুলিতে সে গুলিবিদ্ধ হয় । কোরি গাড়ির ভেতরে ঢুকে পড়ে, তার হাত ধোরে র‍্যাচেল তার হিলিং পাওয়ার দিয়ে হাতের আঘাতপ্রাপ্ত জায়গায় হিলিং করে ঠিক করে দেয় । এর পরেই ওরা কিছু করার আগে ওদের গাড়ির উপরে কেউ একজন লাফ দেয় । ওরা বুঝতে পারে না কে । ঠিক তখন ক্যামেরা গাড়ির উপরে ফোকাস করে আর প্রথমবারের মত দেখা যায় ডিক গ্রেসন কে Nightwing কস্টিউমে ।
Titans-season-2-episode-13-nightwing-review-poster-image-reviewhax.blogspot.com
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros )
ডেথস্ট্রোক ডিক কে দেখে বলে তোমার উচিত ছিল বাড়িতে থাকা । এখন আমি সবাইকে মেরে ফেলব । তখনি এক নিমেষে ডিক ডেথস্ট্রোক সামনে যায় আর তার সাথে লড়াই শুরু করে । ডিক তখন জোরে জোরে বলতে থাকে জেরিকো যদি তুমি শুনতে পাও তাহলে তুমি জানো তোমাকে কি করতে হবে । জেরিকো ডিকের এই কথা শুনে অবাক হয় এবং সে ডেথস্ট্রোকের শরির থেকে বেরোনোর চেষ্টা করে । এক পর্যায়ে সেখানে ডেথস্ট্রোক এর মেয়ে রোজ আসে । সেখানে এসে রোজ টাইটান্স ফ্যামিলিতে যোগ দেয় এবং সে তার নিজ বাবার বিরুদ্ধ্যে লড়াইয়ে নামে ।
DC-Universe-Titans-season-2-rose-image-reviewhax.blogspot.com
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros ) 
ডেথস্ট্রোক তার মেয়েকে দেখে বলে, ও তাহলে নিজের মত পাল্টেছো, ভালো করেছো এখানে এসে । ডিক কে বলে রোজ আমার হয়ে কাজ করছিল, সেইজন্য ওকে টাইটান্স টাওয়ারে ছিল । রোজকে বলে ডিক কে মেরে ফেলার জন্য, কিন্তু রোজ সেটা না করে বলে যে টাইটান্স তার পরিবার । এতে ডেথস্ট্রোক অবাক হয় আর বলে ঠিক আছে তাহলে তুমিও মরো ওর সাথে । এই বলে ডেথস্ট্রোক তার মেয়ে রোজ আর ডিককে আক্রমণ করে । ডিক লড়াইয়ের মাঝে আবারো বলে, বন্ধু এটাই সময় নিজেকে মুক্ত করার । জেরিকো চেষ্টা চালিয়ে যায় ডেথস্ট্রোকের মাথা থেকে বেরোতে কিন্তু ব্যার্থ হয় ।
৭২ ডেমন বা জ্বীনের বিস্তারিত বর্ণনার ৩য় পর্ব। - Vassago - "ভাসাগো” পড়ে নিন ।
এর পরে ওরা তিনজনে লড়াই শুরু করে । অনেকটা সময় জুড়ে লড়াই চলে ডেথস্ট্রোক তার মেয়ে রোজ আর ডিকের মাঝে । এক পর্যায়ে রোজ তার বাবার বুকে ছুড়ি ঢুকিয়ে দেয় । যা ডিক চায়নি কারন ডেথস্ট্রোক এর মধ্যে রোজ এর ভাই এবং ডেথস্ট্রোক এর ছেলে জেরিকো ছিল। রোজ তার বাবার মাস্ক খুলে ফেলে এবং সে তার চোখ এগিয়ে দিয়ে বলে জেরিকো তুমি জানো তুমাকে কি করতে হবে । এর পরে জেরিকো তার বাবার শরির থেকে তার বোনের শরিরে ঢুকে পড়ে । ডিক তখন জেরিকো এর উদ্দেশ্যে বলে যে এটা কি তুমি সত্যিই? জেরিকো রোজ এর শরির থেকে তার দিকে ইশারায় বলে কেমন আছো ? এই ইশারা ডিক আর জেরিকো যখন প্রথম দেখা করে তখন এমনটা করেছিল জেরিকো । অন্যদিকে ডেথস্ট্রোক মারা যায় 😒 ( সত্যিই এতোগুলি এপিসোড জুড়ে ডেথস্ট্রোক ক্যারেক্টার বিল্ডয়াপ করে শেষে এসে এভাবে মেরে ফেলল😤।)
DC-Universe-Titans-season-2-episode-13-nightwing-rose-kills-deathstroke-image-reviewhax.blogspot.com
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros ) 
এর পরে ডোনা ট্রয় এসে জিজ্ঞাসা করে ওকি মারা গেছে ? ডিক বলে হ্যা । তখন সে রোজের উদ্দেশ্যে বলে চলো বাড়িতে ফিরে যাই। তখন ডোনা বলে রাত এখনো শেষ হয় নি । তখন সেই মেলায় নিয়ে যাওয়া হয়, যেখানে গারর ছিল । মেলায় নিয়ে যাওয়া হলে দেখা যায়, এক পুলিশ অফিসারকে আক্রমণ করছে গারর। পুলিশ অফিসার সাহায্য চাইলে, সেখানে ক্যাডমাস ল্যাবের সদস্যরা আসে । তারা সাহায্যের নামে, গারর এবং কনরকে নিলামে তুলে । তাদের শক্তিক্ষমতা দেখিয়ে নিলামে তাদের দুজনের মুল্য বাড়াচ্ছিল ডক্টর মার্সি । তখনি সেখানে টাইটান্সেরা আসে । মার্সি ওদের দেখে বলে ভালোই হয়েছে । এদের কে মারতে পারলে মুল্য বেড়ে যাবে । ডোনা, কোরি এবং ডওন কনরের কাছে যায় এবং র‍্যাচেল গারের নিকট যায় ।
ডোনা, কোরি এবং ডওন কনরের কাছে গিয়ে কথা বলতে যায় । এর জন্য কনর ওদের দিকে তাকিয়ে থাকায় ওরা(টাইটান্স) বলে ওর(কনর) কোন ধারনাই নেই আমরা কে ! । ডোনা কে পাঠায় কনরের সাথে কথা বলতে । ডোনা বলে আমি কেন যাবো ? তখন ডওন বলে কারন ও ক্রিপ্টোনিয়ান (সুপারম্যান এর জন্মভূমি) এবং তুমি থামেস্কেরিয়ান (ওয়ান্ডার ওম্যান এর জন্মভূমি) । ডোনা কনরের কাছে গিয়ে ওকে বুঝাতে গেলে, কনর কিছুই বুঝে না । তখন মার্সি বলে যে কনর দয়া করে টাইটান্সদের মেরে ফেলো । তখনি কনর ডোনা কে আক্রমণ করে বসে । এর ফলে ডোনা এবং কনরের মাঝে প্রচুর লড়াই হয় । এক পর্যায়ে ডোনা একটি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে আঘাত পেয়ে অজ্ঞান হয়ে যায় । যার কারনে কোরি লড়াই করতে যায় । কিন্তু ওর নিজের শক্তি না থাকায় ও কনরের কাছে আটকা পরে যায় । ঠিক তখনি পিছন থেকে হ্যাংক এসে কনরকে একটি হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে ফেলে দেয় ।
এর পরে হ্যাংক আর কোরিকে একসাথে গলা টিপে ধোরে । মার্সি গাড়িতে বসে থেকে জিজ্ঞাসা করে কত টাকায় গিয়েছে ? তার সহযোগী বলে $200 Million Dollars এ চলে গেছে। তখন মার্সি বলে, মি. লুথরের নিকট ২০% কমিশন চাওয়া উচিত ছিল । তখনি তাদের নিলামে বিডিং সিস্টেমের সিগন্যাল চলে যায় । তারা ঠিক করতে ব্যার্থ হয়, তখনি সেখানে ব্রুস ওয়েন এর কথা শুনা যায় । ব্রুস বলে আজকের মত বিডিং এখানেই শেষ । মার্সির সহযোগীর ফোনে কল আসে, সে বলে মিঃ লুথর ফোন দিয়েছে 😱। এর মানে টাইটান্সের এই সিরিজে খুব তাড়াতাড়ি লেক্স লুথর কেও দেখা যাবে । এর পরে কনর উঠে দারায় এবং হ্যাংক, ডওন, কোরি এবং ডোনার দিকে এগিয়ে যায় । তখনি সে তার হাতে একটি নিল বস্তু ধোরে এবং সেটা বিস্ফোরিত হয় । যেটা কিনা শকওয়েভ ছিল । এর পরেই দেখা যায় ডিক গ্রেসন কে ।
ডোনা বলে কনর সুপারবয় হারানোর কোন পরিকল্পনা আছে কিনা? তখন ডিক বলে হ্যা আছে। তবে এর জন্য র‍্যাচেল কে দরকার । অন্যদিকে র‍্যাচেল গারের সাথে কথা বলার চেষ্টা করে । বিশেষ করে টাইটান্স সিজন ১ এ তাদের সাথে দেখা হওয়া এবং তারা কিভাবে বন্ধুত্ব্ব সম্পর্ক হলো সেই বিষয়ে বলে । র‍্যাচেল তখন বলে, ঠিক আছে গারর আমি আমি তোমাকে ছুঁয়ে দেখব । র‍্যাচেল ধীরে ধীরে গারর কে ছুঁয়ে, র‍্যাচেল তার ক্ষমতা ব্যবহার করে গারর কে ফিরিয়ে আনে ।
কনর একটি গাড়ি ভেংগে ফেলে দেয় । সে সামনে এগিয়ে যায় ঠিক তখনি তার পিছন থেকে ডোনা তার লাসসো দিয়ে তাকে আটকে ফেলে অন্যদিকে সামনে থেকে র‍্যাচেল তার শক্তি দিয়ে কনর কে আটকায় । ডিক তখন র‍্যাচেল এর সাথে হাত দিয়ে কনরের ব্রেনের সাথে যুক্ত হয় । সেখানে সে কনরের ভালো রুপ এর সাথে কথা বলে । তাকে বুঝায় এবং তাকে ফিরে আসতে বলে । ডিক তার আশেপাশেরর দেওয়াল ভেংগে তাকে সুর্যের আলো কাছে এনে দেয় । ডিক তাকে নিয়ে বাইরে থেকে একটি ক্ষেতে নিয়ে যায় । সেখানে সে তার বিষয়ে বলে এবং তাকে নিজের পরিবারের সদস্য হিসেবে অভিহিত করে । এর পরে কনর আকাশে উড়ে যায় । এতে করে তাদের ব্রেনের মাঝের কানেকশন বন্ধ হয় এবং ফিরে আসে । ডিক কনরকে ডাক দেয়, উত্তরে কনর বলে আমাকে ছেড়ে দাও যেন আমি এটি শেষ করতে পারি । ডিকের ইশারায় র‍্যাচেল তাকে ছেড়ে দেয় ।
তখন কনর রেগে গিয়ে মার্সিকে মারতে যায় । মার্সির গার্ডেরা তাকে গুলি করলেও তার কিছু হয়না দেখে তার গার্ডেরা পালিয়ে যায় । কনর মার্সিকে ধোরে ফেলে । মার্সি পালানোর চেষ্টা করলে কোরি এসে তাকে আঘাত করে এবং বলে এটা লেক্স লুথরের জন্য । এর পরে ওরা সকলেই একত্রিত হয় । আশেপাশের সাধারণ লোকজন টাইটান্সদের কে ধন্যবাদ জানায় । ডওন একটি মেয়ের কাছে যায় তার পুতুল দিতে । এর পরেই তাদের দিকে সেই বৈদ্যুতিক খুটি ভেংগে পড়তে থাকে । তখনি ডোনা গিয়ে সেই বৈদ্যুতিক খুটি ধোরে ফেলে কিন্তু সে বৈদ্যুতিক শক খেয়ে মারা যায় ।
DC-Universe-Titans-season-2-episode-13-nightwing-review-donna-lift-building-poster-image-reviewhax.blogspot.com
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros )
[ এইটা কোন কথা হলো ? আপনি যদি Wonder Woman 84 মুভি ট্রেইলার দেখে থাকেন তাহলে এতোক্ষণে বুঝে গেছেন । যে এই মারা যাওয়া দৃশ্যটুকু কতটা গাঁজাখুরি । টাইটান্সের এই সিরিজে আমার সবচেয়ে ডোনা ট্রয় কে বেশি ভালো লাগত । ডিরেক্টর তাকে মেরে ফেলায় এই সিরিজের প্রতি আগ্রহ কমে গেল একেবারেই । 😭]
Titans-season-2-episode-13-nightwing-review-donna-die-image-reviewhax.blogspot.com
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros )
টাইটান্সের বাকি সদস্যরা তাকে টাইটান্স টাওয়ারে ফেরত নিয়ে আসে । পরের দিন থামেস্কেরিয়ার লোকেরা এসে ডোনা কে নিয়ে যায় । র‍্যাচেল তাদের সাথে যায় এই আশায় যদি সে নিজে ডোনাকে জীবিত করতে পারে তার ক্ষমতা ব্যাবহার করে । পুরো টাইটান্স এর সদস্যরা ওদের দুজনকে বিদায় জানায় । যদিও সেখানে জেসন টড ছিল না । সে দূরে থেকে ওদের কে দেখে বাইকে চলে যায় ।
DC-Universe-Titans-team-poster-image-reviewhax.blogspot.com
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros ) 
এর পরে রাতে টাইটান্স টাওয়ারে ব্রুসের সাথে বসে ওরা সবাই মিলে খাচ্ছিল । তখন কোরি ব্রুস কে বলে, আপনাকে ধন্যবাদ আমাদের কে আবার একত্রিত করায় । তখন ব্রুস বলে বুঝলাম না বিষয়টা । কোরি বলে ওইযে সেইদিন আমাদের কে নেভাডা এলকো তে ডেকে নিয়ে কথা বললেন । তখন ব্রুস বলে আমি দুঃখিত মনে হচ্ছে আমার সাথে অন্য কাউকে মিশিয়ে ফেলেছেন । আমি কখনো এলকো তে যাই নি ।
তখন ডোওন বলে তাহলে কি র‍্যাচেল কোনভাবে আমাদের মাথায় ব্রুস ওয়েন পাঠিয়েছিল নাকি। কোরি বলে আমি আমার ক্ষমতা হারিয়ে ফেললাম, এই লোকটা আমাদের সাথে দেখা করেনি । কি হচ্ছে এখানে । এরপরে ডিক বলে আমি জানি পরিবারের মধ্যে ঝগড়াঝাঁটি লেগেই থাকে । কিন্তু এটাইতো পরিবারের একটি অংশ তাই না ? আগে যা হয়েছে সব ভুলে গিয়ে চলো নতুন করে আবার আমাদের জীবন শুরু করি ।
এর পরে তাদের কম্পিউটারে একটি অ্যালার্ট আসে । ডওন উঠে গিয়ে বলে সবাই বসে রয়েছো কেন ? চলো যাই । এর পরে ওরা সেখানে চলে যায় । এর মাধ্যমে নতুন করে টাইটান্স টিম এর সুচণা হয় ।
DC-Universe-Titans-poster-image-reviewhax.blogspot.com
( Image Credit: DC Universe/DC/Warner Bros )
টাইটান্স এর পোস্ট ক্রেডিট সিনে দেখা যায় এক মহিলা তার সন্তানদের কে নিয়ে গাড়িতে উঠছিল । ঠিক তখনি তার শরিরের নিয়ত্রণ ব্লাক ফায়ার নিয়ে নেয় । ব্লাক ফায়ার হচ্ছে কোরি এর বোন । এর মানে হচ্ছে টাইটান্স সিজন ৩ তে আমরা ব্লাক ফায়ারকে দেখতে পাবো টাইটান্স এর ভিলেন হিসেবে ।
গত মাসে Titans Season 3 এর জন্য রিনিও করা হয়েছে । এর ফলে বলাই যায় যে আমরা সিজন ৩ আগামী বছর মানে ২০২০ সালের শেষ নাগাদ পেয়ে যাবো ।
The Predator Origin in bangla দ্যা প্রেডিটর বাংলা অরিজিন পড়ুন ।
Disclosure: This post May contains affiliate links that support our Blog. When you purchase something after clicking an affiliate link, we may receive a commission. Also Note That We Are Not Responsible For Any Third-party Websites Link Contents
MD: Ashikur Rahman

আমি একজন মুভি ও সিরিজ লাভার। সুপারহিরো জেনরে আমি মার্ভেল ও ডিসি সকলের তৈরী সিনেমাই পছন্দ করি দেখতে। আমার ব্লগ সাইটঃ www.Tvhex.Com চাইলে আমাকে ফেসবুক ও টুইটারে ফলো করতে পারেন। facebook twitter

Post a Comment

আপনাদের কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।



if you have something to say, “Please Comment your Opinion ” Thank You.

Previous Post Next Post