হবস অ্যান্ড শ মুভি রিভিউ

Disclosure: This content is reader-supported, which means that if you click on some of our links. then we may earn a commission.

হবস অ্যান্ড শ মুভি রিভিউ - Hobbs & Shaw Box Office Report

ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস ফ্রাঞ্চাইজের প্রথম স্পিন অফ মুভি হল হব্বস এন্ড শো সিনেমা। যেখানে আমাদের সকলের পছন্দের ডেডপুল খ্যাত অভিনেতা রায়ান রেনল্ডস এর সাথে আছে স্বয়ং ব্লাক এডাম। i mean ডোয়েইন জনসন।

Hobbs And Shaw Movie Review in Bangla

২০১৯ এর জানুয়ারি মাসের শেষের দিন মানে ৩১ শে জানুয়ারি হব্বস এন্ড শ এর প্রথম পোস্টার প্রকাশিত হয় । এর পরেই ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস সিরিজের ফ্যানদের মাঝে তুমুল আকর্ষণ তৈরি হয় । বিশেষ করে ডোয়েইন জনসন ওরফে হব্বস এবং ডেকার্ড শো ওরফে জেসন স্থাথাম এর মধ্যে লড়াই এবং ঝগড়াটে ভাব এর জন্য । বিশেষ করে ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস ৮ এ তাদের ঝগড়া ফ্যাসাদ ছিল দেখার মত । এরই ধারাবাহিকতায় তাদের দুজনকে এক টিমে এবং এক সাথে বড় পর্দায় দেখা যাবে, আগামী ২ এ আগস্ট ।

হব্বস অ্যান্ড শো ট্রেইলার ব্রেকডাওন রিভিউ

ফাস্ট এন্ড ফিউরিয়াস সিরিজের নবম সিনেমাটির প্রথম পোস্টার প্রকাশিত হয় ৩১শে জানুয়ারি ২০১৯ এ । তার পরের দিন মানে ১ই ফেব্রুয়ারি ২০১৯ এ প্রথম টিজার ট্রেইলার রিলিজ করা হয় । টিজারের ব্যাপ্তিকাল ছিল ২ মিনিট ৫৭ সেকেন্ড ।

ট্রেইলারের প্রথমেই রাতের একটি শহর কে দেখা যায় ব্যাকগ্রাউন্ডে৷ ইদ্রিস এলবা যে কিনা ব্রিক্সটোন নামে পরিচিত এর কথা শুনা যায় । সে নিজের শরিরে জেনেটিক্স প্রক্রিয়ায় আমুল পরিবর্তন এনেছে । যার ফলে তার শরির এখন বুলেটপ্রুফ সুপারহিউম্যান ।

এর পরে দেখা যায় ডেকার্ড শো এর বোন কে কিছু একটা গাড়িতে করে নিয়ে যেতে । কিন্তু তখনি ইদ্রিস এলবা ওরফে ব্রিক্সটোন সেখানে উপস্থিত হয়। সেখানে থাকা সকল গার্ডদের মেরে একটি ধ্বংসাতোক অস্ত্র নিয়ে চলে যায় । তখন ডেকার্ড শো এর বোন হেডফোনে বলে মিশন কম্প্রোমাইজড উই নিড হেল্প ।

তখন ডোয়েইন জনসন কে দেখা যায় সকাল বেলা ঘুমিয়ে থাকতে । তার পরে জেসন স্টাথহাম কেও দেখা যায় তৈরি হতে । এর পরে একটি অফিসে নিয়ে যাওয়া হয় । যেখানে ব্রিক্সটোন এর সম্পর্কে তাদের কে জানানো হচ্ছিল । সেখানে বলে হয় আমাদের টার্গেটের নাম ব্রিক্সটোন এর সম্পর্কে কোন তথ্য নেই । সম্পুর্ন ভুতুড়ে ।

ওকে আটকাতে আমাদের বেস্ট এজেন্টদের দরকার হবে । সরকারি ব্যাক্তি লুক হব্বস যাকে কিনা একটি 'পাব' এ মারামারি করতে দেখা যায় । সরকারি সিস্টেম এর বাইরে সবচেয়ে ভালো একজন কে লাগবে আর সে হল ডেকার্ড শো যে কিনা mi6 এর দুর্বৃত্ত প্রাক্তন এজেন্ট ।

যদি তোমরা ব্রিক্সটোনের সাথে লড়াই করতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমাদের কে একসাথে লড়াই করতে হবে । এ কথা বলার পরেই সেই অফিসারের দিকে লুক হব্বস একটি চেয়ার ছুড়ে মারে । লুক হব্বস এবং ডেকার্ড শো দুজনেই বলে কোন ভাবেই না। দিস গাই ইজ এ রিয়েল এ****ল ।

এর পরের দৃশ্যে দেখা যায়, একটি বিল্ডিং ভেংগে গাড়ি চালিয়ে আসছে । হব্বস এবং ডেকার্ড কে দেখা যায় কিছু গুন্ডাদের মারতে । ডেকার্ড শো বলে এই চাকরিতে গোপনীয়তা খুবই জরুরি । একবার নিজের দিকে তাকাও । তখন হব্বস বলে আমি পৃথিবী কে বাচানোর চেষ্টা করছি ।

আর যদি কাগজ কলমে না ধোরি তাহলে এবার দিয়ে ৪ বার হবে পৃথিবী কে বাচানো । কারন এই কাজে আমি খুবই পারদর্শী । তখন ডেকার্ড শো এর বোন বলে তোমাদের কোন ধারনাই নেই, আমরা কার সাথে লড়াই এর চেষ্টা করছি ।

অন্যদৃশ্যে নিয়ে যাওয়া হয় । যেখানে ব্রিক্সটোন বলে হব্বস এবং শো তোমরা যুদ্ধ চাচ্ছিলে? তোমাদের জন্য যুদ্ধ নিয়ে হাজির হলাম । ব্যাকগ্রাউন্ড এ প্রচুর মারামারির দৃশ্য দেখা যায়। এর পরে ব্রিক্সটোন কে দেখা যায়, পুনরায় ডেকার্ড শো এবং লুক হব্বস এর উপর আক্রমণ করে । পরে ডেকার্ড শো এর বোনের উপর হামলা করে বসে ও তাকে কিডন্যাপ করে নিয়ে যায় ।

সেই বিল্ডিং থেকে কিডন্যাপকারিরা লাফ দিয়ে রশির সাহায্যে নিচে নেমে যায়। এই কারনে তারা দুজনেই লাফ দেয় । কিন্তু ডেকার্ড শো লাফ না দিয়ে লিফটের মাধ্যমে নিচে নামে । অন্যদিকে লুক হব্বস গুন্ডাদের মেরে তাদের রশি বেয়ে নিচে নামে । এর পরে সিনেমাটির টাইটেল দেখানো হয় ।

পরে দেখা যায় লুক হব্বস এবং ডেকার্ড শো, ব্রিক্সটোনের কাছে বন্দি । সেখানে তাদের কে ছেঁকল দিয়ে বেধে রাখা হয়েছে । ব্রিক্সটোন বলে এইটা ডিভাইসে ৩ বার বৈদ্যুতিক শক খেলে মানুষ মারা যায় । তখন হব্বস বলে এই শুরু হল খারাপ মানুষের কথাবার্তা । তখন ব্রিক্সটোন তাদের কে শক দেয় । ডেকার্ড শো বলে তুমার বড় মুখ বন্ধ রাখতে পারো না বুঝি?

এই বলে প্রথম ট্রেইলার শেষ হয় ।

hobbs and shaw 2019 trailer review

দ্বিতীয় ট্রেইলার রিলিজ হয় একই বছরের ১৮ই এপ্রিল এ। দ্বিতীয় ট্রেইলারের শুরুতেই একটি পারমাণবিক চুল্লির কন্ট্রোল রুমে বাইরে হব্বস এবং শো কে দেখা যায় । যেখানে দুইটি দরজা থাকে । ওরা কে কোন দরজা দিয়ে, যাবে সেটা নিয়ে ঝগড়া করে । পরবর্তিতে দুজনেই দরজা খুলে ভিতরে অনেকগুলি গুন্ডা দেখতে পায় । দুজনেই ওই গুন্ডাদের সাথে লড়াই করে ।

এর পরে ইউনিভার্সাল স্টুডিও এর লগো দেখা যায় । ব্রিক্সটোন সকল টিভি নেটওয়ার্ক হ্যাক করে। সে বলেঃ হব্বস এবং শো তোমাদের সাথে আমার শেষ না হওয়া লড়াই রয়েছে । ডেকার্ডের বোন আমার এখান থেকে একটি ভাইরাস চুরি করেছে । যেটা কিনা পুরো পৃথিবীর অর্ধেক মানুষ কে মেরে ফেলতে পারে । আমি এটা ফেরত চাই ।

হব্বস অ্যান্ড শো ২০১৯ মুভি রিভিউ
Hobbs and Shaw 2019 Movie Review in Bangla
হব্বস অ্যান্ড শো ২০১৯ মুভি রিভিউ
(Image credit: NBCUniversal/YouTube/Universal Studio)


 

ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস প্রেজেন্টস: হবস অ্যান্ড শ

এর পরে দেখা যায়, হব্বস জিজ্ঞাসা করে তুমি কি আমাকে বলবে এখানে ঠিক কি হচ্ছে? কি নিয়ে আমরা লড়াই করছি? শো বলে এটা পারিবারিক সমস্যা বুঝলে! । হব্বস বলে যখন সাধারণ মানুষের জীবনভর নিয়ে কোন বিষয় আসে অবশ্যই সেটা নিয়ে আমি মাথা ঘামাবো ।

এর পরে ডেকার্ড এর বোন বলে, যদি আমরা ব্রিক্সটোন কে আটকাতে চাই৷ তাহলে আমাদের কে এক সাথে লড়াই করতে হবে । এর পরে দেখা যায় হব্বস এবং শো একটি প্লেনে করে কোথাও যাচ্ছে । ব্যাকগ্রাউন্ড এ প্রচুর অ্যাকশন দৃশ্য দেখানো হয় ।

এর পরে দেখা যায় এক রাশিয়ান মেয়েকে৷ যে বলে তাহলে তোমরা এক, জেনেটিক্স মনুষ্য কে ধাওয়া করছো? মেয়েটিকে দেখে মনে হচ্ছে ডেকার্ড শো এর গার্লফ্রেন্ড । এর পরে ব্রিক্সটোন বলে আমার দিকে দেখ আমি ব্লাক সুপারম্যান । হব্বস বলে হ্যা দেখে তো তাই মনে হচ্ছে । তুমি সত্যিই ব্লাক সুপারম্যান ।

শেষ ১ মিনিট পুরো অ্যাকশন দৃশ্যে ভরপুর । এটুকু আর বিশ্লেষণ করলাম না । আপনারা ট্রেইলার দেখেই বুঝে নিয়েন । সুপার বোল স্পেশাল ট্রেলার রিলিজ হয় ৩ ফেব্রুয়ারি সুপার বোল এর অনুষ্ঠানে।

Hobbs And Shaw Box Office Collection Report

হব্বস অ্যান্ড শো বক্স অফিস কালেকশন

Release Date: 2 August 2019 US (Worldwide)

Casting: Dwayne Johnson, Jason Statham, Idris Elba, Vanessa Kirby ,Helen Mirren

Ratings: 3/5

Hobbs And Shaw Wikipedia Page

গত ২ এ আগস্ট পুরো বিশ্বের পাশাপাশি বাংলাদেশেও মুক্তি পেয়েছে The Fast and the Furious সিরিজের স্পিন অফ সিনেমা Hobbs & Shaw মুভিটা । বর্তমানে সিনেমাটি হলে চলছে এছাড়াও অনেকেই সিনেমাটি দেখেনি (আমিও দেখিনি)। তাই স্পইলার দিতে চাই না। শুধুমাত্র বক্স অফিস কালেকশন আর ছোট্টখাট্টো রিভিউ দিব?।

$২০০ মিলিয়ন ডলারের এই সিনেমাটি বক্স অফিসে ইতোমধ্যে $৭৬০ মিলিয়ন ডলার এর উপরে আয় করেছে ।

ডমেস্টিক :- $১৭৪ মিলিয়ন ডলার

★ ওভারসীস :- $586.6 মিলিয়ন ডলার

★ টোটাল ওয়ার্ল্ড ওয়াইড গ্রোস:- $760.6 Million Dollars

★ মুভি বাজেট:- ২০০ মিলিয়ন ডলার ( ১৬৯২
কোটি টাকা)

★ বিজ্ঞাপন এবং মার্কেটিং বাজেট:- ১৬০ মিলিয়ন ডলার ( ১৩৫১ কোটি ১২ লাখ টাকা )

★ অন্তত ৬০০ মিলিয়ন ডলার আয় করতে হবে সিনেমাটি বক্স অফিস হিট হতে

★ আপাতত সিনেমাটি ডমেস্টিক বক্স অফিস কালেকশন কমতির দিকে

বক্স অফিস পারফরমেন্স:-

∆ মুভিটির ডমেস্টিকে ওপেনিং মোটামুটি অনেক ভালো ছিলো । ১ম দিনেই ২৩.৭ মিলিয়ন ডলার কামিয়ে নেয়। এর পরের দিন ১২% ড্রপ খেয়ে ২০ মিলিয়ন ডলার আয় করে মুভিটি। ৩য় দিনে ড্রপের পরিমাণ ২২% আর আয় করে ১৫ মিলিয়ন ডলার! । শেষ ৩ দিনের কালেকশন যথাক্রমে ৫,৮ এবং ৪ মিলিয়ন ডলার। ডমেস্টিকে কালেকশন এ একেবারেই বাজে অবস্থা! প্রায় ৪২০০ হলে মুভিটি রিলিজ পেয়েছিলো। ১ম সপ্তাহেই এতো বাজে অবস্থা। ফ্লপের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে মুভিটি।

∆ ওয়াল্ডওয়াইড মোটামুটি ভালোই আয়
করেছে। সবচেয়ে বেশি আয় করেছে চীন থেকে। ১০২ মিলিয়ন ডলার! এরপরেই আছে রোমানিয়া। ভারতেও ভালোই কালেকশন করেছে মুভিটি! ভারতে এ বছরের ৬ষ্ঠ মুভি হিসেবে হিট হতে যাচ্ছে এটি। যদিও চীনে বরাবরি হলিউড সিনেমা বেশি আয় করে থাকে। যেমন ডিসির গত বছরের সিনেমা একুয়াম্যান সবচেয়ে বেশি আয় করেছিল চীন থেকে।

একনজরে ওভারসীস কালেকশন:-

চীন:- ১০২ মিলিয়ন ডলার

ট্রেইলার রিভিউ:

প্রথম পোস্টার প্রকাশিত হয় ৩১শে জানুয়ারি ২০১৯।

প্রথম টিজার ট্রেইলার রিলিজ হয় ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯।


দ্বিতীয় ট্রেইলার রিলিজ হয় ১৮ই এপ্রিল ২০১৯।

স্পেশাল ট্রেইলার রিলিজ হয় ৩ ফেব্রুয়ারি সুপার বোল এর অনুষ্ঠানে।

Disclosure: This post May contains affiliate links that support our Blog. When you purchase something after clicking an affiliate link, we may receive a commission. Also Note That We Are Not Responsible For Any Third-party Websites Link Contents
MD: Ashikur Rahman

আমি একজন মুভি ও সিরিজ লাভার। সুপারহিরো জেনরে আমি মার্ভেল ও ডিসি সকলের তৈরী সিনেমাই পছন্দ করি দেখতে। আমার ব্লগ সাইটঃ www.Tvhex.Com চাইলে আমাকে ফেসবুক ও টুইটারে ফলো করতে পারেন। facebook twitter

Post a Comment

আপনাদের কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।



if you have something to say, “Please Comment your Opinion ” Thank You.

Previous Post Next Post