টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৫ রিভিউ

Disclosure: This content is reader-supported, which means that if you click on some of our links. then we may earn a commission.
DC Titans Season 2 Episode 5 Review - ডিসি টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৫ রিভিউ

DC Titans Season 2 Episode 5 Review in bangla

গত ৪ অক্টোবর প্রচারিত হল ডিসি স্ট্রিমিং সার্ভিসের বহুল জনপ্রিয় সিরিজ টাইটান্স এর দ্বিতীয় সিজনের ৫ম এপিসোড। আপনি যদি টাইটান্স এর অরিজিন না যেনে থাকেন তাহলে ∆∆∆∆ টাইটান্স এর অরিজিন এই পোস্ট ∆∆∆∆ পড়ে নিন।

টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৬ রিভিউ

∆ ডিসি টাইটান্স সিজন ২ ট্রেইলার ব্রেকডাওন রিভিউ পড়ুন এই লিংক থেকে
DC Titans টাইটান্স হল ব্যাটম্যান এর সাইড কিক ডিক গ্রেসন ওরফে " রবিন " এর লিডারশীপ এ তৈরি হওয়া একটি সুপারহিরো দল ।
কিন্তু কিছু কারনে পুরনো টাইটান্স টিম ভেংগে গেলে রবিন নতুন টিম তৈরি করে।
নতুন সদস্যদের নিয়েই সান ফ্রান্সিসকো তে শুরু হয় নতুন টাইটান্স এর যাত্রা।

টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৫ রিভিউ

∑‡ স্পইলার এলার্ট †⁺

DC Titans Episode 8 Breakdown

★ টাইটান্স এর সিজন ২ এর এপিসোড নাম্বার ৫ এর নাম ছিল Deathstroke । এর ব্যাপ্তিকাল ছিল ৪৩ মিনিট । প্রচারিত হয়েছিল অক্টোবর ৪ এ, ডিসি কমিক্সের নিজস্ব অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিসে যার নাম " DC Universe " ।
★ এপিসোড শুরু হয় আগের এপিসোড এর রিক্যাপ দৃশ্য দেখিয়ে । এর পরে ডিসির ওপেনিং সিন প্লে হয় । তার পরে শুরু হয় এই এপিসোড এর মুল পর্ব ।
★ এপিসোড এর শুরুতেই দেখা যায় যে নতুন রবিন ওরফে জেসন টড কে ডেথস্ট্রোক ধোরে নিয়ে যাচ্ছে । একটি অজানা জায়গায় তাকে হাত বেধে আটকে রেখেছে। রবিন অনেক চেষ্টা করার পরেওও সেই বাঁধন খুলতে পারে না । সেখানে ডক্টর লাইট আসে। তখন রবিন তাকে জ্বালাতন করতে থাকে। এতে ডক্টর লাইট রেগে যায় আর রবিনের কাছে আসার সাথে সাথেই রবিন তার উপর হামলা করে । এর পরে রবিন তাকে অজ্ঞান করে ফেলে দেয় এবং নিজের হাতের বাঁধন খুলে ফেলে। সে দৌড়ে সেখান থেকে পালাতে গেলে দরজার সামনে লম্বা এক ছুড়ি এগিয়ে আসে । রবিন দেখে তার দিকে ছুড়ি তাক করিয়ে রেখেছে ডেথস্ট্রোক। তখন ডেথস্ট্রোক বলে এতো তাড়াতাড়ি চলে যাচ্ছ? এর পরে টাইটান্স এর থীম সং প্লে হয় ।
★ কোরি এন্ডারসোন কে দেখা যায় গাড়িতে করে কোথাও আসছে । তখন সে র‍্যাচেল কে ফোন করতে বলে। টাইটান্স টাওয়ারে র‍্যাচেল এর রুমে নিয়ে যাওয়া হয় যেখানে সে ঘুমাচ্ছিল । কিন্তু ডার্ক ক্লাউডের মত কিছু একটা তার চারপাশে ঘুরতে থাকে। তখন কোরির ফোন আসে। অন্যদিকে গারর তার রুমে আসে, সে ওই ডার্ক ক্লাউডে হাত দিলে তার হাতে আঘাত পায়। তখনি গারর এর চিৎকার করে উঠে । র‍্যাচেল এর ঘুম ভেংগে যায় এবং ডার্ক ক্লাউড ও গায়েব হয়ে যায় । সে গারর এর কাছে ক্ষমা চায় এবং সে বলে তার এই বিষয়ে যে ডিককে না বলে । তখন গারর বলে জেসন এর কিছু একটা কিছু হয়ে গেছে । ও গায়েব হয়ে গেছে । তখনি ডিক ওদের পিছন থেকে বলে জেসনের কি হয়েছে?
★ গারর বলে যে, জেসন ডক্টর লাইট কে খুঁজতে শহরের একটি টানেল এ যায়। সেখানে তাকে তাড়াতাড়ি খুঁজতে গারর আর জেসন আলাদা হয়ে খুঁজতে থাকে। এক পর্যায়ে জেসনের চিৎকার শুনে, গারর তাকে খুঁজতে গেলে এক জায়গায় শুধু রক্ত দেখতে পায় । ডিক বলে তোমরা সেখানে গিয়ে ছিলে কেন? কোন অস্ত্র ছাড়া কোন ব্যাকআপ না নিয়ে? গারর তখন উত্তর দেয় যে, জেসন প্রমাণ করতে চেয়েছিল যে সে অদক্ষ নয় ।
★ গারর বলে যে জেসনের শরিরে যে জিপিএস Tracker রয়েছে, তার মাধ্যমে হয়ত জেসন কে খুজে পাওয়া যেতে পারে। ডিক উত্তরে বলে যে, পাওয়া যাবে হয়ত ।
★ অন্য দিকে গারর বলে জেসন অনেক শক্ত এবং শক্তিশালী। ও শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবে । র‍্যাচেল বলে হ্যা তা যাবে, কারন ডক্টর লাইট ওর বকবক শুনে পাগল হয়ে যাবে । যদি না ডক্টর লাইট জেসনের বক বক শুনে জেসন মুক্তি করে না দেয় । গারর বলে আমাদের ও ওকে খুঁজে আনতে যাওয়া উচিত।
★ টিম কে সাহায্য করা উচিত। র‍্যাচেল বলে আমরা সাহায্য করছি। গারর উত্তর দেয় কফি বানিয়ে? র‍্যাচেল বলে না ওরা ফিরিয়ে আনতে পারবে । গারর বলে টিম আমাদের বিশ্বাস করে না। ওরা দরজা আটকে কথা বলে, এমনকি ওরা নিজেদের মধ্যেও ঠিকভাবে কথা বলে না । র‍্যাচেল বলে যাইহোক আমাদের টিমের উপর বিশ্বাস করতে হবে, যে ওরা পুরনো পদ্ধতিতে জেসন কে ফিরিয়ে আনবে ।
★পরবর্তীতে পুরনো টাইটান্স টিমকে দেখা যায় কনফারেন্স রুমে । যেখানে তারা বলছিল জেসন আর গারর কেন একা একা ডক্টর লাইটের পিছনে যাবে ? ডিক উত্তরে বলে যানিনা । ডোনা ট্রয় বলে যে ওইখানে অন্তত ২০ থেকে ৩০ টি টানেল আছে এইগুলির মধ্যে যেকোনো টাতে থাকতে পারে । এর জন্য হয়ত সারা রাত লেগে যাবে । পরে ওরা ওই টানেল গুলি চেক করার জন্য যায় । র‍্যাচেল আর গারর কনফারেন্স রুমে কম্পিউটারের পরিচালনার দায়িত্বে থাকে ।
★ টানেলের মধ্যে দেখা যায় ওদের । ডিক বলে সাবধানে খুঁজো, ডক্টর লাইট এখনো এখানে থাকতে পারে । ডোনা বলে যে ৩ নম্বর টানেলে কেউ নেই । অন্যদিকে হওক আর ডওন এর মধ্যে কথা কাটা কাটি হয় । যেখান ডওন বলে অন্তত ওরা ডক্টর লাইট কে খুঁজে পেয়েছে । যদি আমরা গতকাল কে ওদের কে একটা সুযোগ দিতাম, তাহলে অবশ্যই আজকে আমাদের কে ডক্টর লাইট সম্পর্কে বলত।
★ তখন ডিক বলে উঠে যে সে কিছু একটা খুঁজে পেয়েছে । তখন ওই জায়গার কর্ডিনেট পাঠায়। পরে ওরা আসলে বলে যে, ওকে এইখানে আক্রমণ করা হয়েছিল । পরে টেনে হিচড়ে এই পর্যন্ত নিয়ে এসেছে। এর পরে দাগ গায়েব হয়ে গেছে । ডোননা বলে ও যেকোনো জায়গায় হতে পারে, যদি ও বেচে থাকে তবে । ডিক বলে ও বেচে আছে, ডক্টর লাইট ওকে টোপ হিসেবে ব্যাবহার করছে আমাদের কে বের করে আনার জন্য । এই বিষয় নিয়ে টিমের সবার মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় । বিশেষ করে "টোপ" শব্দটি ব্যবহার করার জন্য । ডওন বলে জেসন যাই করুক কিংবা ওর যাই হোক না কেন এর জন্য কিন্তু আমরাই দায়ী। আমরা সবাই । এখানে সময় নষ্ট না করে জেসন কে খুঁজতে হবে, ও এখনো কোন জায়গায় রয়েছে । হওক তখন বলে আমরা সারারাত ওকে খুজেও পাবো না, যদি না আমরা ওর শরিরে থাকা ট্রাক্রার এর সিগনাল না পাই ।
★ অন্যদিকে ডক্টর লাইট বলে আমাদের নতুন পরিকল্পনা দরকার । এই শালার শরিরে ট্রাকিং ডিভাইস রয়েছে । সেখানে ডেথস্ট্রোক উপস্থিত থেকেও সে কিছু বলে না । অন্যদিকে ডিক টানেলে ডেথস্ট্রোকের সেট করে রাখা ক্যামেরা খুঁজে পায় । এবং ক্যামেরাগুলি ভেংগে ফেলে দেয় । তখন ডক্টর লাইট বলে শালা ক্যামেরা ভেংগে ফেলল, এভাবে তো পুরো পরিকল্পনাটাই নষ্ট হয়ে যাবে । তখন রেগে গিয়ে বলে ডক্টর লাইট ডেথস্ট্রোক কে বলে তুমি এখানে মুর্তির মত বসে রয়েছো কেন? কিছু করছ না যে । ডেথস্ট্রোক উত্তর দেয় এই প্লান ভালো ভাবেই যাচ্ছে । তখন ডক্টর লাইট বলে তাই নাকি, গত চার মাস যাবত যে পরিকল্পনা করলাম তার কিছুই তো হল না । যখন তুমি আমাকে জেলখানা ভেংগে নিয়ে আসলে, তখন বলেছিল এই মুখোশ পড়া হিরোদের মেরে ফেলবে। আর আজ যখন সুযোগ এসেছে তখন কিছুই করবে না । ডক্টর লাইট বলে যখন থেকে তুমি শুনেছো তোমার মেয়ে ওদের কাছে আছে, তখন থেকেই তুমি মনোযোগ হারিয়েছো ।
★ এই যখন অবস্থা আমি ভাবছি তোমার আর ওদের মধ্যে পার্থক্য কি? সবকটিই তো কস্টিউম পড়ে বসে রয়েছো । ডেথস্ট্রোক বলে যদি তুমি উত্তর চাও, তাহলে আমি উত্তর দিতে তৈরি আছি। তখন ডক্টর লাইট রেগে বলে যদি তোমার দ্বারা এই কাজটা না হয় তাহলে আমি নিজে নিজেই করে নিব, বলে চলে যায় সেখান থেকে । সে যাওয়ার পরে জেসনের শরিরে থাকা ট্রাকিং ডিভাইসটি খুজে এবং পেয়ে যায় । অন্যদিকে ডক্টর লাইট একটি গাড়িতে চড়ে বসে টাইটান্সদের খুঁজতে সেখানে সে হেভভি মেটাল সং বাজানো শুরু করে । একটু পরেই সেখানে ডেথস্ট্রোক চলে আসে এবং তার মাথায় গুলি করে তাকে হত্যা করে ফেলে । পরবর্তিতে ডক্টর লাইটের লাশ নিয়ে এক অজ্ঞাত জায়গায়য় ঝুলিয়ে রাখে । তার লাশের সাথে জেসনে বা রবিনের ট্রাকার এবং একটি মোবাইল রেখে যায় । যাতে করে টাইটান্স এর সদস্যরা এসে সেই মোবাইল এবং ট্রাকার খুজে পায় ।
★ অন্যদিকে টাইটান্স টাওয়ারের রান্নাঘরে গারর এবং রোজ এর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় । গারর বলে তুমি এখানে শান্তিতে বসে খাচ্ছ কিভাবে ? এই মুহুর্তে হয়ত জেসন কে অমানসিক ভাবে মারা হচ্ছে কিম্বা ওকে মেরেই ফেলা হয়েছে। অন্তত তুমি ওকে খুঁজতে সাহায্য করতে তো পারো । উত্তরে রোজ বলে কিভাবে শুনি? তোমার গার্লফ্রেন্ডের সাথে কম্পিউটার এর সামনে বসে আড্ডা দিয়ে? গারর বলে ও আমার গার্লফ্রেন্ড না । রোজ বলে ও তাহলে তোমরা একে অপরকে অপছন্দ করো? গারর বলে কি না!!! আমি এই বিষয়ে আর আলোচনা করতে চাই না বলে গারর সেখান থেকে চলে যাচ্ছিল । তখন রোজ ওকে দাঁড়াতে বলে, আমি দুঃখিত রবিন ২.০ কিংবা অন্য কিছু নিরূদ্দেশ হয়ে যাওয়ার জন্য । কিন্তু ও নিজেই নিজের সাথে এমন করেছে । তাই ভুলেও তোমার ভুল এর মাশুল আমার উপর দিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করো না । এখন আমাকে একা থাকতে দাও আর আমার খাবার খেতে দাও । গারর রেগে সেই রুম থেকে বের হয়ে যায় । গারর রেগে গিয়ে কনফারেন্স রুমে যায়, যেখানে র‍্যাচেল বসা ছিল ।
★ র‍্যাচেল জিজ্ঞাসা করে কি হয়েছে? গারর বলে রোজ রান্নাঘরে বসে খাচ্ছে । র‍্যাচেল বলে খেতে দাও ও তো জেসন কে চিনেও না । আর এই ঘটনায় তো আর ওর দোষ ও ছিল না । গারর বলে তুমি কি বলতে চাচ্ছ যে এটা আমার দোষ? র‍্যাচেল বলে আমি সেটা বলছি না । গারর প্রতি উত্তরে বলে তাহলে এমন চেহারা কেন করলে? গারর বলে তাহলে বলো আমাকে কি? র‍্যাচেল বলে আমি বুঝেছি তোমরা কিসের জন্য নিজের এই পরিকল্পনা বলোনি । তোমরা এই কথাটি না লুকিয়ে আমাকে বলতে পারতে, আমি অন্তত সাহায্য করতে পারতাম । গারর বলে কিভাবে? তুমিতো নিজেকেও আগলে রাখতে পারো না।
★ র‍্যাচেল বলে কি বলছ তুমি? গারর বলে আমি গতকালকে ট্রেইনিং রুমে দেখেছি তুমি তোমার শরির থেকে বের হওয়া ডার্ক ক্লাউড নিজের ভেতরে নিতে পারনি। যা প্রায় আমামার হাত কেটে ফেলেছিল। অন্তত আমি এখন যানি তোমার শরিরে ওই দাগ গুলি কিভাবে আসল । ও তাহলে তুমি এখন আমার উপর নজরদারী করছ তাহলে? র‍্যাচেল জিজ্ঞাসা করে। গারর বলে না আকি তোমার উপর গোয়েন্দাগিরি করছি না । আমিতো তাই বললাম যা আমি দেখেছি । তাই দয়া করে গোপনীয়তা নিয়ে কথা বল না । র‍্যাচেল বলে প্রথমত আমার শক্তি ঠিক আছে এবং আমি যদি ওখানে থাকতাম তাহলে ওই লোকটি কে মাটিতে মিশিয়ে ফেলতাম । তুমি তো ওখানে ছিলে তুমি কি করেছে? কিছুই না তুমি তো ভয় পেয়ে জেসন কে একা ফেলে চলে এসেছো। যদি তোমরা দুজনে বোকার মত এই কাজ না করতে তাহলে আর আজকে এমন কিছু হত না । গারর রেগে গিয়ে বলে বাদ দাও এইসব এবং তখন কম্পিউটারে সিকিউরিটি অ্যালার্ট আসে। সেখানে দেখে সদর দরজায় কোরি আন্ডারসন এসেছে । র‍্যাচেল রাগ করে সেখান থেকে চলে যায় । সেই সময়েই কম্পিউটার এ আরো একটি অ্যালার্ট আসে জেসন টড এর ট্রাকার লোকেট হয়েছে।
★ অন্যদিকে ডিক বলে আমি কিছু খুঁজে পেয়েছি । সেখানে গেলে ওরা ডেথস্ট্রোক এর রেখে যাওয়া ডক্টর লাইটের লাশ এবং জেসনে শরিরে রাখা ট্রাক্যার খুঁজে পায় । ডওন বলে এটাতো জেসনের শরিরে লাগানো ট্রাক্যার মনে হচ্ছে এটা কেউ কেটে বের করেছে । হওক বলে যদি ডক্টর লাইট মারা গিয়ে থাকে তাহলে জেসন কোথায় । ডোননা বলে মনে হচ্ছে ডক্টর লাইট কারো সাথে মিলে কাজ করছিল । তখন ডক্টর লাইট এর লাশে সাথে থাকা একটি মোবাইলে কল আসে ডেথস্ট্রোক এর কাছ থেকে । যেখানে ডেথস্ট্রোক বলে মনে হচ্ছে আমার পক্ষ থেকে পাঠানো উপহারটি পেয়ে গেছ। ডিক সবাইকে বলে ডেথস্ট্রোক কলে ।
★ জেসনের কথা জিজ্ঞাসা করলে ডেথস্ট্রোক বলে ও তোমার সাইডকিক? জেসন গালী দিয়ে বলে সাইডকিক কাকে বলছ তুমি? তখন জেসন কে মারত্র থাকে ডেথস্ট্রোক । এতে ওরা রেগে যায় বলে। এখানে একবার আয় তোকে দেখে নিব । ডিক তখন বলে তুমি কি চাও বল ? ডেথস্ট্রোক বলে আমি যা চাই তা হল তুমি জেসনের বদলে আমার মেয়ে রোজ কে আমার হাতে তুলে দিবে । হওক জিজ্ঞাসা করে আমরা জানব কিভাবে তুমি জেসন কে জীবিত রাখবে? ডেথস্ট্রোক একটি ঠিকানা দেয় সেখানে রোজ আর জেসন কে নিয়ে আসার । এবং বলে এই মোবাইলটি রাখ কনফ্রাম এর জন্য ।
★ অন্যদিকে টাইটান্স টাওয়ারে কোরি আর র‍্যাচেল এর মধ্যে আলাপ আলোচনা হয় । বিশেষ করে র‍্যাচেল এর বাবা ট্রাইগন এর পৃথিবীতে আসা। র‍্যাচেল এর কপালে যে লাল বস্তুটি দিয়েছে সেটা নিয়ে ঝামেলা হওয়া এবং তার বাবাকে মেরে ফেলে দেওয়া । তার বাবা এর মারা যাওয়ার পর তার শরিরে অনেক পরিবর্তন আসে বিশেষ করে তার সুপারহিরো শক্তির মধ্যে । র‍্যাচেল বলে আমার মনে হয়েছিল আমার বাবা মারা যাওয়ার পরে হয়ত সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু না তার কিছুই হয়নি ।
★ কোন স্কুল নেই, সারাদিন ট্রেইনিং আর এই আঘাত । কোরি জিজ্ঞাসা করে এটা কি? র‍্যাচেল বলে আমি যখন ঘুমিয়ে পড়ি তখন এটা আসে । গারর বলছিল এটা দেখতে ডার্ক ক্লাউডের মত দেখতে । চারপাশে ধারালো বস্তু দিয়ে তৈরি । অন্যদিন আমি জেসন কে গলা টিপে ধোরেছিলাম । কোরি জিজ্ঞাসা করে এটা কখন শুরু হয়েছিল। র‍্যাচেল বলে ট্রাইগন কে মেরে ফেলার পর থেকে এই গুলি শুরু হয়েছে । প্রথমে মনে হয়েছিল এটি ট্রাইগন এর কারনে হয়ত। কিন্তু না এটা আমার মধ্যে থেকেই হয় । কোরি বলে চিন্তা করো না এটা ঠিক হয়ে যাবে । একটু বিশ্রাম নাও আর তোমার শক্তির মধ্যে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করো।
★ অন্যদিকে ডিক আর বাকি সবাই ফিরে আসে টাইটান্স টাওয়ারে । তখন কোরি, র‍্যাচেল গারর এবং রোজ আসে। কোরি জিজ্ঞাসা করে জেসন এর কি হয়েছে ও কোথায়? ডিক বলে ঠিক আছে চলো অন্যরুমে গিয়ে কথা বলি । রোজ বলে আমি নিশ্বিত খারাপ কিছু হয়েছে । সেই জন্য ওরা আমাদের সামনে বলতে চাইছে না । গারর বলে আমি জানি কিভাবে ওদের কথা শুনা যাবে । অন্য রুমে ডিক কোরি আর বাকি সবার মাঝে কথা কাটাকাটি হয় । হ্যাংক বলে আমাদের উচিত ছিল রোজ কে এখান থেকে বের করে দেওয়া যখনি আমরা জানতে পারলাম ও ডেথস্ট্রোক এর মেয়ে । কোরি বলে কি ওই মেয়েটি ডেথস্ট্রোক এর মেয়ে । ডওন বলে হ্যা সে তার মেয়েকে ফেরত চায় যা আমরা করতে পারব না । হ্যাংক বলে কেন নয় । যদি আমরা রোজ কে দিয়ে দেই তাহলেই তো সকল ঝামেলার শেষ হয়ে যায় । যদি রোজ কে ফেরত না দেই তাহলে হয়ত জেসন কে মেরেই ফেলবে । সে যে সিদ্ধান্ত নেই না কেন কোনটাই আমামাদের জন্য ভালো নয় । ডওন বলে এখানে রোজ এর কোন দোষ নেই, আমরা সবাই জানি। তাহলে আমরা কেন ওকে বিপদের মুখে ফেলতে চাচ্ছি বলতে পারবে তুমি ?। অন্যদিকে কম্পিউটার রুমে গারর রোজ আর র‍্যাচেল কম্পিউটার স্কিনে ওদের দেখছিল ।
★ রোজ বলে তাহলে সকল রুমেই ক্যামেরা রয়েছে । গারর বলে ব্রুস ওয়েন কে দোষ দাও উনি এই বাড়ি তৈরি করেছে । রোজ বলে তাহলে সাউন্ড কোথায়? গারর সাউন্ড চালু করে । হ্যাংক বলে আমার মনে হয় রোজ কে ডেথস্ট্রোক এর হাতে তুলে দিব যদি তোমরা না দিতে চাও । কিন্তু বাকি সবাই অস্বিকার জানায় এই বিষয়ে । গারর আর র‍্যাচেল কম্পিউটার রুমে রোজ কে বলে যে চিন্তা করো না ওরা তোমাকে ডেথস্ট্রোক এর হাতে তুলে দিবে না । কিন্তু রোজ কে দেখতে পায়না । রোজ পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে টাইটান্স টাওয়ার থেকে । র‍্যাচেল ওকে ধোরে ফেলে এবং বলে রোজ তুমি চিন্তা করো না ডিক নিশ্বিত করবে যে তুমি নিরাপদে থাকো। আমরা সবাই তোমার পাশে থাকব। কিন্তু রোজ র‍্যাচেল এর উপর হামলা করে এবং র‍্যাচেল রোজ কে আঘাত করার জন্য নিজের শক্তি ব্যাবহার করতে গিয়ে নিজের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে । রোজ কে আঘাত করে প্রায় মেরেই ফেলছিল র‍্যাচেল । কিন্তু ওরা সবাই ওকে ধোরে ফেলে ।
★ ওরা সিদ্ধান্ত নেয় যে ওরা রোজ কে হ্যান্ডওভার করবে না । র‍্যাচেল আর গারর দুজনে রোজ আর টাওয়ার কে প্রটেকশন করবে । ডিক ডেথস্ট্রোক কে কনফ্রাম করবে তাদের ডিলের বিষয়ে । পুরনো টাইটান্স টিম আর কোরি যায় ডেথস্ট্রোক কে মারার জন্য । ওরা সকলেই ডেথস্ট্রোক এর নির্বাচিত বিল্ডিং এর চারপাশে ঘুরে খুঁজিতে থাকে । একসময় ডিক বিল্ডিং এর ভিতরে যায়, তার কাছে থাকা মাইক্রোফোন ভেংগে ফেলে দেয়। তার পরে নিজে থেকে ডেথস্ট্রোক কে খুঁজে এবং সারেন্ডার করে । সে চায় তার বিনিময়ে সবাইকে যেন একা ছেড়ে দেয় । ডেথস্ট্রোক ডিক কে বলে তুমি কখনো শিক্ষবে না বুঝি? সবসময় নিজেকে হিরো মনে করো। কিন্তু এইবার চিন্তা করো সব কিছু আমি সিদ্ধান্ত নিব। তুমি কোন অসাধারণ ক্ষমতাশীল শক্তিশালী মনুষ্য নও বাকি সকলের মত সাধারণ একজন মানুষ । নিজের ক্ষমতা দিয়ে তোমার চেয়ে দুর্বল লোকেদের নিজের পিছনে ঘুরাও । এই সকল মানুষের একটাই সমস্যা । কখন থামতে হবে জানেনা এর জন্য অন্য কাউকে এর ফল ভোগ করতে হয় । ডিক বলে এতো কথা না বলে চলো এইটা শেষ করে ফেলি ।
★ডেথস্ট্রোক বলে ঠিক আছে তাহলে, দাড়াও বাইরের দিকে দেখ । ডেথস্ট্রোক একটি রশিতে জেসন আর একটি বম্ব কে আটকে রেখেছে । যেটা যেকোন মুহুর্তে নিচে পড়ে যেতে পারে। ডেথস্ট্রোক বলে নিজের বন্ধুকে বিদায় বলো বলে ডিকের দিকে গুলি তাক করে । ঠিক তখনি কোরি ডেথস্ট্রোক এর দিকে অগ্নিগোলক নিক্ষেপ করে । ডেথস্ট্রোক কোরি আর ডিকের দিকে গুলি বর্ষণ শুরু করে । সেই মুহুর্তে একটি হেলিকপ্টার আসে সেই বিল্ডিং এর পাশে । যার ফলে টাইটান্স এর বাকি সদস্যরা ডিক কোরি আর জেসনের খোজ পায় । একদিকে জেসন তার হাতের বাঁধন খুলার চেষ্টা করে অন্যদিকে ডিক কোরি আর ডেথস্ট্রোক এর মাঝে তুমুল লড়াই হয় ।
কোরি একসময় নিজে ডেথস্ট্রোক এর সাথে লড়াই চালিয়ে যায় এবং ডিক কে বলে জেসন কে ছাড়িয়ে আনো । ডিক জেসন কে বলে ওখানে দাড়াও চিন্তা করো না আমরা এসে গেছি ।
★ অন্যদিকে কোরি লড়াই করার সময় প্রচুর আঘাত পেয়ে অজ্ঞান হয়ে যায় এবং ডেথস্ট্রোক তাকে ছুড়ি দিয়ে মারতে গেলে ডিক এসে বাচায় । এর পরে ডিক আর ডেথস্ট্রোক এর মাঝে ছুড়ি দিয়ে প্রচুর লড়াই হয় । এর পরে কোরি আবার লড়াই শুরু করলে একটি সবুজ রঙ এর সাউন্ড বম্ব দিয়ে আঘাত করে। যার ফলে এক মুহুর্তের জন্য ডিক আর কোরি ডিস্ট্রাক্ট হয়ে পড়ে সেই সুযোগে ডেথস্ট্রোক তার হাতে থাকা রিমোট দিয়ে জেসনের সাথে রাখা বম্ব দিয়ে গাড়ি আর জেসন কে উড়িয়ে দেয় বিল্ডিং এর উপর থেকে এবং ডেথস্ট্রোক সেখান থেকে পালিয়ে যায়। ডিক জেসনের হাত ধোরে গিয়ে কিন্তু বেশিক্ষণ ধোরে রাখতে পারেনা । যার ফলে জেসন ১৫ তলা বিল্ডিং এর উপর থেকে পড়ে যায় নিচে ।
★এভাবেই শেষ হয় টাইটান্স সিজন ২ এর এপিসোড ৫ । এখন জেসনের কি হল জানতে আপনাকে অবশ্যই ডিসি টাইটান্স সিজন ২ এপিসোড ৬ ব্রেকডাওন রিভিউ পড়তে হবে ।
Disclosure: This post May contains affiliate links that support our Blog. When you purchase something after clicking an affiliate link, we may receive a commission. Also Note That We Are Not Responsible For Any Third-party Websites Link Contents
MD: Ashikur Rahman

আমি একজন মুভি ও সিরিজ লাভার। সুপারহিরো জেনরে আমি মার্ভেল ও ডিসি সকলের তৈরী সিনেমাই পছন্দ করি দেখতে। আমার ব্লগ সাইটঃ www.Tvhex.Com চাইলে আমাকে ফেসবুক ও টুইটারে ফলো করতে পারেন। facebook twitter

Post a Comment

আপনাদের কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।



if you have something to say, “Please Comment your Opinion ” Thank You.

Previous Post Next Post