যে কারণে স্টিভ রজার্স সবসময় যোগ্য ছিল

Disclosure: This content is reader-supported, which means that if you click on some of our links. then we may earn a commission.

Why Steve Rogers was the bravest and Worthy Avenger?

ক্যাপ্টেন আমেরিকা ওরফে স্টিভ রজার্স যে কি না মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সের ফেজ ১,২ এবং ৩ এ এভেন্জার্সদের লিডার ছিল। যে সোকোভিয়া একোর্ড্স লেজিগনেশন এর বিরুদ্ধে ছিল। সেই স্টিভ রজার্স যে নিজেই একটা গ্রেনেডের উপরে শুয়ে পড়ে, তার পাশে থাকা সবাইকে বাচানোর জন্য।

    কেন স্টিভ রজার্স সব সময় মিওনির উঠানোর জন্য যোগ্য ছিল

    captain-america-thor-hammer-shield-combine-fighting-with-thanos-alongside-the-avengers
    Copyright : Disney / Marvel Studios

    আজকে আমরা তার সম্পর্কে জানব, যে কেন সে এভেঞ্জার্স এন্ডগেমে থরের মিওনির হাতে উঠানোর আগেই Worthy বা যোগ্য ছিল। যে এন্ডগেমে থরের মিওনির তুলে ছিল। স্টিভ রজার্স কেন সবচেয়ে সাহসী এভেন্জার্স ছিল। চলুন জেনে আসি।

     

    মার্ভেলের ক্যাপ্টেন আমেরিকার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

    স্টিভ রজার্স সব সময় নিজের দেশের জন্য ভাল.কিছু করতে চাইতো। তাই যখন বিশ্বযুদ্ধ শুরু হয় তখন নিজের বাল্যবন্ধু বাকি বার্ন্স এর সাথে নিজের আর্মিতে যোগদানের জন্য যায়। কিন্তু তার শারিরীক অবস্থা দেখে সবসময়ই তাকে বাতিলের খাতায় ফেলে দেওয়া হতো। তাই বলে সে থেমে থাকেনি। সে একাধিক বার চেষ্টা করে অবশেষে সফল হয়। কিন্তু তাকে সরাসরি যুদ্ধে না পাঠিয়ে তাকে নিয়ে ল্যাবে এক্সপেরিমেন্ট করার মাধ্যমেই, আজকে আমরা পেয়েছি স্টিভেন রজার্স ওরফে ক্যাপ্টেন আমেরিকা ❤️৷

    যে কারনে সব সময় স্টিভ রজার্স সাহসী বীর ও দক্ষ মনোবলের ছিল

    ক্যাপ্টেন আমেরিকাঃ দ্যা ফার্স্ট এভেঞ্জার্স সিনেমায় যখন সৈন্যবাহিনী ও তার বন্ধু বাকি বার্ন্স হাইড্রার কাছে আটকা পড়ে তখন, সে একাই নিজে গিয়ে হাইড্রার সৈন্যদের সাথে লড়াই করে তাদেরকে মুক্ত করে নিয়ে আসে।

     
    Captain-America-wields-thor-hammer-fighting-thanos-with-his-shield
    Copyright : Disney / Marvel Studios
     

    অন্যদিকে ক্যাপ্টেন আমেরিকাঃ উইন্টার সোলজার সিনেমায় শিল্ডে অনেকগুলি হাইড্রার স্পাই ও সৈন্য ঢুকে পড়ে । তারা নিক ফিউরির উপর হামলা করে । স্টিভ নিজে একা গিয়ে তাদের মোকাবিলা করতে থাকে । শুধু তাই নয়, লিফটে ২০জন হাইড্রার স্পাই স্টিভ কে মারার জন্য আক্রমণ করে । কিন্তু স্টিভ একফোঁটা ও না ঘাবড়িয়ে তাদের সকলের সাথে সম্মুখীন হয়ে লড়াই করে৷

     

    ক্যাপ্টেন আমেরিকাঃ সিভিল ওয়্যারে স্টিভ তার ছোটবেলার প্রিয় বন্ধু কে বাচানোর জন্য শুধু, সরকারি লোকেদের বিরুদ্ধেই নয় তাদের সাথে এভেঞ্জার্সদের বিরুদ্ধে চলে যায়। এক মুহূর্তে স্টিভ রজার্স, টনি স্টার্ক ও বাকি বার্ন্স এর মধ্যে লড়াই হয় । টনি স্টিভের শিল্ড তার বাবার সম্পত্তি বলার সাথে সাথে, সেই শিল্ড টনি স্টার্ক কে দিয়ে দেয়৷

     

    কিন্তু স্টিভের বীরত্বের ও কতটা সাহসী তা দেখতে পাওয়া যায় এভেঞ্জার্স ইনফিনিটি ওয়্যার এ৷ যেখানে সে খালি হাতে আমার থানস দাদুর সাথে হ্যান্ড টু হ্যান্ড লড়াইয়ে যায়৷ সেই সময় থানসের হাতে ইউনিভার্সের সবচেয়ে শক্তিশালী বস্তু ইনফিনিটি স্টোন ছিল হাতে৷ তা জানা সত্তেও স্টিভ তার বন্ধু ভিশন কে বাচাতে থানসের সামনে দাড়াতে দ্বিধাবত করে নি। তার এই বীরত্ব দেখে স্বয়ং Thanos ও অবাক হয়ে গেছিল৷

     

    শুধু তাই নয়!!! দুনিয়াকে বাচাতে আভেঞ্জার্স এন্ডগেমে স্টিভ তার ভেংগে যাওয়া অর্ধেক শিল্ড নিয়ে পুরো থানস বাহিনীর সাথে লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত ছিল৷ স্টিভ সবসময় নিজের প্রান দিয়ে হলেও তার বন্ধু কিংবা দুর্বল ব্যাক্তিদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসত৷

     

    এ সকল কিছুই প্রমাণ করে যে সে মানুষ হিসেবেও ভালো। সে worthy হয়েছে এই কারণে। স্টিভ ক্যাপ্টেন আমেরিকা হয়েও তার মধ্যে কখনো অহংকার ছিল না। এ সকল কিছুই স্টিভকে সবসময় সবচেয়ে সাহসী এভেন্জার বানায়।

     
    Steve-rogers-weild-thor-hammer-become-worthy-bangla-explained
    Copyright : Disney / Marvel Studios
     

    একারণেই স্টিভ সবসময় থরের মিওনিওর উঠানোর জন্য যোগ্য ছিল৷

     

    #tvhex

    #p2rvez

     

    #Tvhex

     

    Ar Parvez

     

    https://www.tvhex.com

     

    reviewhax

     

    Next Post

     
    Thanks for Reading this post.

    Disclosure: This post May contains affiliate links that support our Blog. When you purchase something after clicking an affiliate link, we may receive a commission. Also Note That We Are Not Responsible For Any Third-party Websites Link Contents
    MD: Ashikur Rahman

    আমি একজন মুভি ও সিরিজ লাভার। সুপারহিরো জেনরে আমি মার্ভেল ও ডিসি সকলের তৈরী সিনেমাই পছন্দ করি দেখতে। আমার ব্লগ সাইটঃ www.Tvhex.Com চাইলে আমাকে ফেসবুক ও টুইটারে ফলো করতে পারেন। facebook twitter

    Post a Comment

    আপনাদের কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।



    if you have something to say, “Please Comment your Opinion ” Thank You.

    Previous Post Next Post