ব্যাটওম্যান বাংলা অরিজিন ইতিহাস রিভিউ - batwoman origin

Disclosure: This content is reader-supported, which means that if you click on some of our links. then we may earn a commission.
DC Batwoman Origin ব্যাটওম্যান এর অরিজিন, ব্যাটওম্যান এর শক্তি বুদ্ধিমত্তা এবং টিম মেম্বার এর বিস্তারিত

ব্যাটওম্যান এর অরিজিন, ব্যাটওম্যান এর শক্তি বুদ্ধিমত্তা এবং টিম মেম্বার এর বিস্তারিত

ব্যাটওম্যান এর শৈশব পরিচয় এবং আগমনী ইতিহাস

ব্যাটওম্যান টিভি সিরিজের বিস্তারিত এবং ট্রেইলার রিভিউ পড়ুন এই লিংক থেকে
ব্যাটওম্যান নামে পরিচিত ক্যাথেরিন ‘কেট’ কেইন চরিত্রের স্রষ্টা লেখক এডমন্ড হ্যামিল্টন এবং চিত্রকর শেল্ডন মল্ডোফ। ব্যাটওম্যান চরিত্রটিকে প্রথম দেখা যায় dc comics বা ডিসি কমিক্সের ২০০৬ সালের আগস্ট মাসে প্রকাশিত ‘৫২’ কমিক্সের ষষ্ঠ সংখ্যায়।
কেট এবং তার যমজ বোন এলিজাবেথ কর্নেল জ্যাকব কেইন এবং তার স্ত্রী গ্যাব্রিয়েল এর পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। কেইন দম্পতির উভয়ই ছিলন সেনাবাহিনী সদস্য, এছাড়াও তারা <∆> গোয়েন্দা <∆> বাহিনীর সাথেও যুক্ত ছিলেন। তাদের পদোউন্নতি করা হলে তারা অনেকগুলি শহর ও ঘাঁটি তে চাকরি করেন। জ্যাক যদিও প্রায় সময়ই পরিবার থেকে দূরে কাজ করতে হত ।
কেইন পরিবার একসময় বেলজিয়ামে ব্রাসেলস শহরে চলে আসে বসবাস এর জন্যে, যেখানে কেইন এবং তার স্ত্রী একসাথে ন্যাটোর সাথে কাজ করছে আবার নিজ পরিবারকেও সময় দিচ্ছে। মেয়েদের দ্বাদশ জন্মদিনে গ্যাবি তাদের নিয়ে বাইরে ঘুরতে বের হয়।
কিন্তু মাঝপথে রিলিজিয়ন অভ ক্রাইম নামে একদল সন্ত্রাসী তাদের আক্রমণ করে এবং অপহরণ করে নিয়ে যায়। গোয়েন্দারা সন্ত্রাসীদের সনাক্ত করে এবং জ্যাককে উদ্ধারকারী দলের নেতৃত্বাধীন করা হয়।
কিন্তু উদ্ধার করতে দেরী হয়ে যায়, সন্ত্রাসীদের হাতে মারা পড়ে জ্যাক এর স্ত্রী গ্যাবি এবং তার এক মেয়ে বেথ। জ্যাক একমাত্র কেটকে উদ্ধার করতে সক্ষম হন। কিন্তু চোখের সামনে মা-বোনের হত্যা-কান্ড দেখে কেট মানসিকভাবে অনেকটা ভেঙ্গে পড়ে।
জ্যাক অনেক চেষ্টা করে নিজের মেয়ের বাজে দিনগুলো ভুলিয়ে দিতে । অন্যদিকে কেট বাবাকে খুশি করতে, একজন ক্যাডেট হিসেবে ভর্তি হয় ইউনাইটেড স্টেটস মিলিটারি একাডেমিতে। সে একাডেমিতে উচ্চশিক্ষা অব্যাহত রাখে এবং ব্রিগেড এক্সিকিউটিভ অফিসার পদমর্যাদা অর্জন করে।
তারপরে সে এয়ার অ্যাসল্ট স্কুল এবং ইউএস আর্মি এয়ারবর্ন স্কুল উভয়ই সম্পন্ন করে। নিজের কৃতিত্বের জন্য রিকোন্ডো ব্যাজ এবং সুপারিনটেনডেন্ট পুরস্কারের মতো সম্মানিত অর্জন লাভ করে।
এইসময়ে তার সাথে আরেক ক্যাডেট " সোফি মর "এর সাথে গোপন সমকামী সম্পর্ক শুরু হয়। কিন্তু কিছুদিন পরেই সম্পর্কটির ব্যাপারে সেনাবাহিনী কর্তৃপক্ষ জেনে ফেলে। তখন কেট বান্ধবীকে রক্ষা করার জন্য নিজের সমকমিতার ব্যাপারে স্বীকার করে নেয়।
এরই ধারাবাহিকতায় সেনাবাহিনী থেকে তাকে বের করে দেওয়া হয়। তবে জ্যাক এই সমকামী ব্যাপারের জন্য কেটকে ক্ষমা করে দেয়। কারণ কেট নিজেকে বাঁচানোর জন্য অন্তত কোন মিথ্যা কথা বলেনি।
এর কিছুদিন পরে জ্যাক আবার বিয়ে করে অস্ত্রব্যবসায়ী ক্যাথেরিন হ্যামিল্টনকে। ক্যাথেরিনের এই বিশাল সম্পত্তি কেটকে পরিণত করে একজন সমাজমুখী মাদাকাসক্তি রুপে।
একদিন রাতের এক পার্টিতে গিয়ে তার সাথে পরিচয় হয় গোথাম পুলিশ সদস্য রেনে মন্টোয়ার সাথে। তার সাথে কেটের বেশ ভালো সম্পর্ক হয়, যা একপর্যায়ে ভালবাসায় রুপ নেয় । কিন্তু এই সম্পর্কও বেশিদিন টেকেনা। রেনে আর কেটের মধ্যে ঝগড়া হয়ে যায়।
রেনে মুখের উপর বলে দেয় যে কেটের জীবন নিয়ে কোন পরিকল্পনা নেই। এমন মানুষের সাথে সে নিজের জীবন কাটাতে ইচ্ছুক নয়। এরপরে বেশিদিন লাগে না কেটের নিজের জীবনের উদ্দেশ্য খুঁজে পেতে।
একবার গোথাম শহরের এক অন্ধকার গলিতে বিপদ থেকে ব্যাটম্যান তাকে উদ্ধার করে। ব্যাটম্যানকে দেখেই কেট সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয় যে সে আজ থেকে ন্যায়ের পক্ষে লড়াই করবে, সত্যের জন্য যুদ্ধ করবে।
কেট পরবর্তী দুইবছর পৃথিবীজুড়ে ভ্রমণ করতে থাকে লড়াই এবং মারামারি এর বিভিন্ন টেকনিক শেখার জন্য। তার বাবা জ্যাক এক্ষেত্রে তাকে আর্থিকভাবে প্রচুর সাহায্য করে এবং নিজের যোগাযোগের মাধ্যম ব্যাবহার করতে দেওয়ার মাধ্যমে।
এছাড়াও সেনাবাহিনীর বিভিন্ন প্রোটোটাইপ অস্ত্রও মেয়েকে দিয়ে পরীক্ষামূলক ব্যবহার করাতে থাকেন তিনি। এভাবেই শুরু হয় ক্যাথেরিন কেইন এর ব্যাটওম্যান যাত্রা।
ব্যাটওম্যান টিভি সিরিজের প্রথম এপিসোডটির রিভিউ পড়ুন এই লিংক থেকে

ব্যাটওম্যান এর আগমন পরবর্তী জীবনী

ডিসি কমিক্সের দুনিয়ায় ২০১১ সালে জেফ জোন্সের লেখা ফ্ল্যাশপয়েন্ট গল্পের মাধ্যমে বেশ ভালোরকম পরিবর্তন আনা হয়। গল্পগুলো শুরু থেকে নতুনভাবে উপস্থাপন করা হয় যাতে নতুন পাঠকদের গল্পের চরিত্রগুলো বুঝতে সুবিধা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় ব্যাটওম্যানের গল্পেও বেশ পরিবর্তন আসে।
দ্য নিউ ৫২ নামে পরিচিত ডিসির এই নতুন গল্পধারায় ব্যাটওম্যানকে প্রথম দেখা যায় ২০১১ সালের নভেম্বরে প্রকাশিত হওয়া ব্যাটওম্যান কমিক্সের প্রথম সংখ্যায়। সংখ্যাটির লেখক এবং আঁকিয়ে ছিলেন তৃতীয় জেমস উইলিয়ামস।
যদিও এই গল্পে কেটের সেনাবাহিনী থেকে বহিষ্কৃত হওয়া পর্যন্ত কাহিনী আগের মতোই রেখে দেওয়া হয়। কিন্তু এর পর থেকে গল্পের পরিবর্তন শুরু করা হয়। বহিষ্কার হওয়ার পরে কেট তার বিষণ্নতা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করে। 'নিজেকে খুঁজে পেতে' এবং সামরিক বাহিনীর জীবনের বাইরে আলাদা একটি জীবন প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করার জন্য সে বিশ্ব ভ্রমণ করার সিদ্ধান্ত নেয়।
ভ্রমণের সময় মাল্টা উপকূলের কর‍ল্যানা নামের একটি অঞ্চলে কেটের সাথে দুর্ঘটনা ঘটে । একটি শিলার আঘাতে ধংস হয়ে যায় জেট বিমানটি । পরে সাফিয়া নামের সেখানকার একদল আদিবাসী গোষ্ঠীর নেত্রী দ্বারা তাকে উদ্ধার করা হয়।
কেট এবং সাফিয়ার মধ্যে দ্রুতই একটি বন্ধুভাব সম্পর্ক তৈরি হয়। এই সম্পর্ক দ্বীপটির অধিকাংশ মানুষের ভালো লাগে নি। তারা মনে করে কেটের কারণে সাফিয়া তার দায়িত্ব থেকে দূরে সরে যাচ্ছে এবং কাজের প্রতি অমনোযোগী হয়ে পড়ছে।
ব্যাটওম্যান অরিজিন ইতিহাস রিভিউ
সাফিয়াকে পছন্দ করা তাহানী নামের এক প্রেমিক কেটকে একটু বেশিই ঘৃণা করতো। হিংসার বশে একসময়ে সে কেটকে হত্যা করার চেষ্টাও করে। এসব ঘটে যাওয়ার পর সাফিয়ার সাথেও তার সম্পর্কের অবনতি ঘটলে সে সেই স্থান থেকে অন্য স্থানে চলে যায়।
একসময় কেট গোথাম সিটিতে ফিরে আসেন এবং এবার রেনে মন্টোয়ার সাথে সম্পর্কে জরিয়ে যায়। যদিও খুব দ্রুতই তাদের সম্পর্ক খারাপ হয়। একদিন কেট নিজের সমস্ত দুঃখের কথা চিন্তা করছিল, এমনসময় তাকে একদল সন্ত্রাসী আক্রমণ করে বসে।
ওই সময় ব্যাটম্যান সেখানে হাজির হয় এবং তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে। ব্যাটম্যানকে দেখে কেট উপলব্ধি করে যে সে এখন বেশ জীবিত বোধ করছে এবং এই সতর্কতাটি তার জীবনের নতুন উদ্দেশ্য হতেও পারে।
এই সব ঘটনার প্রায় একবছর পর জ্যাক তাকে খুঁজে পায়। শুরুতে যদিও মেয়ের উপর বেশ রাগান্বিত থাকলেও তার ন্যায় নিয়ে লড়ার অদম্য উৎসাহ দেখে, তিনি সেনা অভিযানে কেটকে সাথে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সম্মত হন।
জ্যাক এর সাবেক বিশেষ বাহিনীর কমরেড দ্বারা পরিচালিত একটি দলকে নিয়োগ দেন মেয়ের দক্ষতা বৃদ্ধি করার জন্য। কেট পরের তিন বছর ধরে প্রচণ্ড প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে। তৃতীয় বছর শেষে জ্যাক তাকে একটা শেষ এবং বিশেষ অভিযান দেন।
অভিযানটি হলো, একদল রাশিয়ান সন্ত্রাসী দল একটি পরিবার অপহরণ করেছে। কেট তাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসবে, এবং এই অভিযান পুরোটা সে একাই চালাবে। অভিযানে গিয়ে সে দেখে যে সন্ত্রাসীরা পরিবারের সকল সদস্যকে ইতিমধ্যে হত্যা করে ফেলেছে।

প্রিডেটর বাংলা অরিজিন পড়ুন

এটি দেখার পর কেটের রাগ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায় এবং সন্ত্রাসী দলের নেতাকে প্রচুর মারধর করে। লোকটাকে পুরো মেরে ফেলতে যাবে এমনসময় সে দেখতে পায় যে লোকটি আর কেউ নয়, তারই বাবা জ্যাক। পুরো অভিযানটি ছিল বানোয়াট; একটি পরীক্ষা যা প্রমাণ করবে যে কেট নিজের সীমা অতিক্রম করা থেকে নিজেকে থামাতে পারে কিনা।
এটির পরই কেটের আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যাটওম্যান হিসেবে যাত্রা শুরু হয়। কেট একজন সাধারণ মানুষ। তার কোন অতিমানবিয় শক্তি বা ক্ষমতা নেই। তবে কঠোর প্রশিক্ষণ এবং ইচ্ছাশক্তির জোরে সে নিজেকে নিয়েছে সাধারণ যেকোন মানুষের চেয়েও উচ্চপর্যায়ে।
ব্রিটিশ স্পেশাল এয়ার সার্ভিস, ইউ.এস নেভি সীল হলো তার প্রশিক্ষণের প্রধান ক্ষেত্র। এছাড়াও ওয়েস্ট পয়েন্টে থাকাকালীন সময়ে বাবার সাহয়তাও পেয়ে ছিলো প্রচুর। ব্যথা সহ্য করে নেওয়ার ক্ষমতা কেটের প্রচুর। বহুবার তাকে মারাত্মকভাবে আহত অবস্থায় শত্রুদের মুখোমুখি হতে দেখা গিয়েছে।
এমনকি একবার সরাসরি তার হৃৎপিণ্ডে ছুরির আঘাত করার পরও সে লড়াই থামায়নি একটুও। উল্টো বুক থেকে ছুরিটা বের করে ফেলেছিলো। অ্যাক্রোব্যাটিকেও কেট বেশ পারদর্শী। খুব সহজেই সে বড় দেয়াল কিংবা ছাদ টপকিয়ে অন্যপাশে চলে যেতে পারে।
এক্ষেত্রে তার দক্ষতাকে কখনও কখনও রবিন ও নাইটউইং নামে খ্যাতি পাওয়া ডিক গ্রেসনের বা রিল গ্রেসনের দক্ষতার সাথে তুলনা করা হয়। এছাড়াও তার মার্শাল আর্ট এবং মানবদেহের গঠনের উপর দক্ষতা বেশ সমাদৃত। যেকোন মিলিটারি যন্ত্রপাতি ব্যবহারে কেটের উপর রয়েছে তার বাবার অগাথ আশির্বাদ।
সেনাসদস্য হওয়ার ফলে জ্যাক ও নিজের মেয়েকে দারুণ সব অস্ত্রের যোগান দিতে পেরেছেন যেগুলোর সবই মরণঘাতি। এছাড়াও তার ব্যাটওম্যান স্যুটটিও সম্পূর্ণ আধুনিক। এটি গুলিরোধী হওয়া ছাড়াও এর মধ্যে আছে জিপিএস ট্র‍্যাকার, রেডিও, বায়ো মনিটর ইত্যাদি।
স্যুটটির পায়ের দিকে রয়েছে একটা নেটওয়ার্ক সিস্টেম যা তার বাসগৃহে থাকা কম্পিউটারের সাথে সংযুক্ত। এটি ব্যবহৃত হয় অভিযানে পাওয়া তথ্য পরীক্ষা এবং সংরক্ষণ করতে। এছাড়াও এই স্যুটে মাঝে মধ্যেই বেশকিছু ভিলেনের পছন্দের অস্র দেখা গিয়েছে। যেমন ইলেক্ট্রোকিউশনার এর টেজার গ্লাভ, স্কেয়ারক্রো এর ফিয়ার টক্সিন ইত্যাদি।

ব্যাটওম্যান এর সুপারহিরোইন জীবনী এবং ব্যাটওম্যান এর রূপালী পর্দায় আগমন

★ কেট একজন ইহুদী ধর্মাবলম্বিনী। তাকে একবার ইহুদী ধর্মের পবিত্রতম উৎসব হনুকা পালন করতে দেখা গিয়েছে।
★ কমিকবুক জগতে সর্বকালের অন্যতম সেরা চিত্রকর হিসেবে খ্যাতি পাওয়া অ্যালেক্স রসকে একবার বিখ্যাত কিছু অ্যানিমেশনের লেখক পল ডিনি একটা নেতিবাচক সত্ত্বাধারী ব্যাটগার্লের ডিজাইন করতে বলেন। কাহিনী অনুসারে এই ব্যাটগার্ল হবে খলনায়ক রা’স আল ঘুলের ল্যাজারাস পিট থেকে নিজের প্যারালাইসিস সারিয়ে তোলা ব্যাটগার্ল। ঘটনাচক্রে কোন অ্যানিমেশনেই এই গল্পটা আনা হয়নি। তবে অ্যালেক্স রসের করা ডিজাইনটি একসময় ব্যাটওম্যানের ডিজাইন হয়ে যায়।
★ প্রেমের সম্পর্ক বেশিদিন না টিকলেও পুলিশ কর্মকর্তা রেনে মন্টোয়ার সাথে প্রায়ই কেটকে অপরাধ দমনের অভিযানে দেখা গিয়েছে।
★ রেনে মন্টোয়া ছাড়াও ডিসির আরেক বিখ্যাত নারী পুলিশ কর্মকর্তা ম্যাগি সয়্যারের সাথেও কেটের সম্পর্কে জড়ানোর ইতিহাস বিদ্যমান। এই সম্পর্ক অবশ্য বেশ ভালোই চলেছিলো। নিউ ৫২ তে দেখা গিয়েছিলো যে ম্যাগি কেটের বিয়ের প্রস্তাব গ্রহণ করছে।
★ ফাইনাল ক্রাইসিস গল্পে দেখা যায় ব্যাটওম্যানকে ডার্কসাইড নিজের কব্জায় নিয়ে ফেলেছে। তাকে ক্যাটওম্যান, ওয়ান্ডার ওম্যানদের সাথে ডার্কসাইডের নারীদল ‘ফিমেল ফিউরি’ তে দেখা যায়।
★ ডিসি কমিক্স: বম্বশেলস নামক কমিকে দেখা যায় কেটের একটি ভিন্নরূপ। এখানে শুরুতে সে একজন বাস্কেটবল দলের সদস্য থাকে। এমন সময় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের দামামা বাজলে দে ব্যাটওম্যান পরিচয়ে নেমে পড়ে নাৎসিদের মারতে । পরে আমান্ডা ওয়ালার কর্তৃক বম্বশেলস প্রজেক্টে নিযুক্ত হয়।
★এছাড়াও বিখ্যাত গ্রাফিক নোবেল ইঞ্জাস্টিস: গডস অ্যামং আস এর একই নামের পূর্বের কাহিনী নিয়ে তৈরি কমিকে দেখা যায় ব্যাটওম্যান এর আরেকটি সংস্করণ।
★ ব্যাটওম্যানকে রূপালী পর্দায় প্রথম দেখা যায় ব্যাটম্যান: ব্যাড ব্লাড অ্যানিমেশনে। এটিতে ব্যাটওম্যানের কণ্ঠ দেন অভিনেত্রী ইয়োহোনে স্ট্রাহোভস্কি। এটিই ব্যাটওম্যানের এ পর্যন্ত একমাত্র পর্দায় উপস্থিতি।
★ ২০১৮ সালের ডিসেম্বর টিভি চ্যানেল সিডব্লিউ-এ সম্প্রচারিত হওয়া, অ্যারোভার্স নামে পরিচিত ডিসি টিভি সিরিজের বাৎসরিক ক্রসওভারে ব্যাটওম্যানকে নিয়ে আসা হয়। এটিই ব্যাটওম্যানের লাইভ অ্যাকশনে প্রথম আগমন।
★ ক্রসওভারের পর ২০১৯ সাল থেকে একই টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত হচ্ছে ব্যাটওম্যানের নিজস্ব টিভি সিরিজ। ব্যাটওম্যান তথা ক্যাথেরিন কেইন চরিত্রে নেওয়া হয়েছে অভিনেত্রী রুবী রোজকে।
★ এছাড়াও ডিসি ইউনিভার্স অনলাইন এবং লেগো ব্যাটম্যান ৩: বেয়ন্ড গোথাম নামক গেমে ব্যাটওম্যানকে দেখা গিয়েছে।
★বিখ্যাত ব্যাটম্যান গেম আর্কহাম নাইটে একবার কেট কেইন নামটা শোনা যায়।
Disclosure: This post May contains affiliate links that support our Blog. When you purchase something after clicking an affiliate link, we may receive a commission. Also Note That We Are Not Responsible For Any Third-party Websites Link Contents
MD: Ashikur Rahman

আমি একজন মুভি ও সিরিজ লাভার। সুপারহিরো জেনরে আমি মার্ভেল ও ডিসি সকলের তৈরী সিনেমাই পছন্দ করি দেখতে। আমার ব্লগ সাইটঃ www.Tvhex.Com চাইলে আমাকে ফেসবুক ও টুইটারে ফলো করতে পারেন। facebook twitter

Post a Comment

আপনাদের কোন কিছু জানার থাকলে আমাদের কে কমেন্ট করে জানাতে পারেন ।



if you have something to say, “Please Comment your Opinion ” Thank You.

Previous Post Next Post